১৭ মে, ২০২১ ০৮:২৬ এএম

ইনসেপ্টার কারখানায় সিনোফার্মের টিকা উৎপাদনের সংবাদ সঠিক নয়

ইনসেপ্টার কারখানায় সিনোফার্মের টিকা উৎপাদনের সংবাদ সঠিক নয়
ছবি: মেডিভয়েস

মেডিভয়েস রিপোর্ট: ইনসেপ্টা ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেডের কারখানায় সিনোফার্মের টিকা উৎপাদনের সংবাদটি সঠিক নয় বলে জানিয়েছে ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তর। রোববার (১৬ মে) এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ কথা জানানো হয়েছে।

অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মো. মাহবুবুর রহমান স্বাক্ষরিত ওই বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়েছে, এত দ্বারা সংশ্লিষ্ট সকলের অবগতির জন্য জানানো যাচ্ছে যে, বিভিন্ন ইলেক্ট্রনিক মিডিয়াতে এই মর্মে সংবাদ প্রকাশিত হচ্ছে যে, সিনোফার্ম কর্তৃক উৎপাদিত ভ্যাকসিন ইনসেপ্টা ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেডের কারখানায় উৎপাদনের নিমিত্তে ঔষধ অধিদপ্তর কর্তৃক অনুমোদন করা হয়েছে, যা সঠিক নয়। মূলত দেশে কোভিড-১৯ উৎপাদনের অনুমতি এখন পর্যন্ত কোনো ভ্যাকসিন উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানকে দেওয়া হয়নি।

এ ধরনের বিভ্রান্তিমূলক সংবাদ প্রকাশ করে জনমনে বিভ্রান্তি সৃষ্টি না করার জন্য সকল প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক মিডিয়াকে বিশেষভাবে অনুরোধ করা যাচ্ছে।

এর আগে একই দিন বিকেলে বিভিন্ন গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশিত হয়, চীনের উৎপাদিত করোনাভাইরাসের টিকা তৈরির অনুমোদন পেয়েছে ইনসেপ্টা ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড।

ঔষুধ প্রশাসন অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মাহবুবুর রহমানের উদ্ধৃতি দিয়ে প্রকাশিত ওই সংবাদে উল্লেখ করা হয়, সিনোফার্মের টিকা উৎপাদনের অনুমতি দিয়েছে ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তর। এ ব্যাপারে সোমবার (১৭ মে) সংবাদ সম্মেলনে বিস্তারিত তুলে ধরা হবে।

তিনি বলেন, ‘উৎপাদনে সক্ষমতা আছে এমন তিন চারটি কোম্পানি আমাদের কাছে আবেদন করেছিল। আমরা বিভিন্ন খুঁটিনাটি বিষয় দেখে ইনসেপ্টাকে টিকা উৎপাদনের অনুমতি দিয়েছি। এ মাসেই তারা কাজ শুরু করবে।’

অন্যদিকে ইনসেপ্টা সূত্র জানায়, চলতি মাস থেকে টিকা উৎপাদন শুরু হচ্ছে। 

এ প্রসঙ্গে ইনসেপ্টা ফার্মাসিউটিক্যালসের ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার (মার্কেটিং) মোহাম্মদ হাবিবুর রহমান সাংবাদিকদের বলেন, ‘এখনও আনুষ্ঠানিকভাবে অনুমোদনের বিষয়টি ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তর থেকে আমাদের জানায়নি। গণমাধ্যম সূত্রেই জানতে পেরেছি যে, আমরা টিকা উৎপাদনের অনুমতি পেয়েছি।’

প্রস্তুতির বিষয়ে তিনি বলেন, ‘আমরা টিকা উৎপাদনে প্রস্তুত। আমরা ২০১১ সাল থেকেই টিকা তৈরি করে আসছি। দেশের লোকাল মার্কেটে যে টিকাগুলো ব্যবহার হয়, হেপাটাইটিস, টিটেনাস থেকে শুরু করে কুকুরে কামড়ালে যে টিকা (রেভিস) দেওয়া হয়, সেগুলোও আমরা উৎপাদন করে থাকি। এ রকম প্রায় ১৪/১৫টি টিকা মার্কেটে আমাদের রয়েছে। সেই হিসাবে আমাদের প্রস্তুতি সবসময়ই থাকে। কোভিডের টিকা উৎপাদনেও আমাদের যথেষ্ট প্রস্তুতি রয়েছে।’

উৎপাদন সক্ষমতা প্রসঙ্গে জানতে চাইলে তিনি আরও বলেন, ‘প্রতিমাসে এখন আমাদের চার কোটি ডোজ উৎপাদনের সক্ষমতা রয়েছে।’

এর আগে ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তর জানিয়েছিল, ইনসেপ্টা ফার্মাসিউটিক্যালস, পপুলার ফার্মাসিউটিক্যালস, হেলথকেয়ার ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেডকে টিকা উৎপাদনে অনুমতি দেওয়া যায় কি না তা প্রাথমিক সক্ষমতা যাচাইয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছে টিকা সংগ্রহ ও বিতরণ বিষয়ক আন্তঃমন্ত্রণালয় সংক্রান্ত কমিটি।

এদিকে রেনেটা এবং ওরিয়ন ফার্মাসিউটিক্যালস রাশিয়ার টিকা উৎপাদনের অনুমতি চেয়ে ঔষধ প্রশাসনের কাছে আবেদন করেছে। 

মেডিভয়েসের জনপ্রিয় ভিডিও কন্টেন্টগুলো দেখতে সাবস্ক্রাইব করুন MedivoiceBD ইউটিউব চ্যানেল। আপনার মতামত/লেখা পাঠান [email protected] এ।
  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
নিবন্ধনহীন ওষুধ লিখলে চিকিৎসকের শাস্তি
জাতীয় ওষুধনীতি-২০১৬’ এর খসড়ার নীতিগত অনুমোদন

নিবন্ধনহীন ওষুধ লিখলে চিকিৎসকের শাস্তি