২৬ জানুয়ারী, ২০২১ ০৫:৪৭ পিএম

ঝিনাইদহে চিকিৎসক লাঞ্ছিত

ঝিনাইদহে চিকিৎসক লাঞ্ছিত
শৈলকুপা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স। ছবি: সংগৃহীত

মেডিভয়েস রিপোর্ট: রোগী আনতে বাসায় অ্যাম্বুলেন্স না যাওয়ার জেরে স্বজনের হাতে লাঞ্ছিত হয়েছেন ঝিনাইদহের শৈলকুপা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল অফিসার ডা. কিশোর কুমার কুন্ডু। গত ২৪ জানুয়ারি রাতে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এ ঘটনা ঘটে।

হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, রোববার রাত ১টার দিকে উপজেলার ছোট মোকুড়ী গ্রামের নজরুল ইসলামের স্ত্রী সুইটি খাতুনকে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে নিতে অ্যাম্বুলেন্স ডেকে পাঠান স্বজনেরা। বিধান না থাকায় রোগীকে নিজ দায়িত্বে হাসপাতালে আনার কথা বলা হয়।

সুইটি খাতুনকে হাসপাতালে নিয়ে আসার পর নজরুলের ভাই নাজমুল হাসান ও তার সঙ্গে থাকা ৮/১০ জন যুবক জরুরি বিভাগে গ্রিলে ধাক্কা মারতে থাকেন। গ্রিল খোলে দেওয়া হলে তারা জরুরি বিভাগে তাণ্ডব চালাতে থাকেন।

এ সময় ইমার্জেন্সি মেডিকেল অফিসার ডা. কিশোরের ওপর চড়াও হন তারা। ওই চিকিৎসকের শার্টের কলার ধরে চড়-থাপ্পড় মারার পাশাপাশি গলা থেকে টেনে নিয়ে তার স্টেথোস্কোপ ছিঁড়ে ফেলা হয়। রোগীর স্বজনদের ধাক্কায় এক পর্যায়ে মেঝেতে পড়ে যান তিনি। সহকারীরা বাধা দিতে এলে তাদেরও শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করা হয়।

নিগ্রহের শিকার ওই চিকিৎসক বাম কানে আঘাত পেয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে ঝিনাইদহ জেলা সিভিল সার্জন ডা. সেলিনা বেগম আজ মঙ্গলবার (২৬ জানুয়ারি) বিকেলে মেডিভয়েসকে বলেন, একজন মেডিকেল অফিসারের সঙ্গে রোগীর স্বজনদের খারাপ আচরণের ঘটনায় থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছেন নির্যাতিত মেডিকেল অফিসার কিশোর কুমার কুন্ডু। এতে শৈলকুপার ছোট মৌকুড়ি গ্রামের আফিল উদ্দিনের ছেলে নাজমুল হাসান ও তার ভাই নজরুল ইসলামের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

কেন এমন আচরণ করা হয়েছে—জানতেই চাইলে তিনি বলেন, অ্যাম্বুলেন্স না যাওয়ায় রোগীর স্বজনেরা হাসপাতালে আসার পর ওই চিকিৎসককে মারধর শুরু করেন। তবে রোগীকে যথাযথ চিকিৎসা প্রদান করা হয়েছে। চিকিৎসায় কোনো রকমের অবহেলা করা হয়নি।

বাসায় অ্যাম্বুলেন্স না পাঠানোর বিষয়ে তিনি বলেন, ‘গুরুতর অসুস্থ না হলে রোগী আনতে বাসায় অ্যাম্বুলেন্স পাঠানোর বিধান নাই। সাধারণত হাসপাতালে আসা রোগীর অবস্থা সংকটাপন্ন হলে এবং ইমার্জেন্সি মেডিকেল অফিসার যদি মনে করেন তাকে রেফার্ড করা প্রয়োজন—কেবল তখনই অ্যাম্বুলেন্স দেওয়া হয়। রোগী আনতে বাসায় অ্যাম্বুলেন্স পাঠানো হলে হাসপাতালে থাকা গুরুতর কোনো রোগীকে রেফার্ডের সময় ব্যাপক সমস্যা হতে পারে।’

হামলায় জড়িত নাজমুল হাসান নিজেকে সেনা সদস্য বলে পরিচয় দিয়েছেন। 

মেডিভয়েসের জনপ্রিয় ভিডিও কন্টেন্টগুলো দেখতে সাবস্ক্রাইব করুন MedivoiceBD ইউটিউব চ্যানেল। আপনার মতামত/লেখা পাঠান [email protected] এ।
  ঘটনা প্রবাহ : চিকিৎসক লাঞ্ছিত
  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
নিবন্ধনহীন ওষুধ লিখলে চিকিৎসকের শাস্তি
জাতীয় ওষুধনীতি-২০১৬’ এর খসড়ার নীতিগত অনুমোদন

নিবন্ধনহীন ওষুধ লিখলে চিকিৎসকের শাস্তি