ডা. মোশাররফ তানভীর

ডা. মোশাররফ তানভীর

নন-রেসিডেন্সি চিকিৎসক,

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়।


২৭ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ০৬:৪৪ পিএম

‘ভাতার মাধ্যমে ন্যায্য সম্মান পেলেন নন-রেসিডেন্সি চিকিৎসকরা’

‘ভাতার মাধ্যমে ন্যায্য সম্মান পেলেন নন-রেসিডেন্সি চিকিৎসকরা’

যে জাতি নিজের উন্নতির জন্য কিছু করে না, সৃষ্টিকর্তাও তাদের জন্য কিছু করেন না। বিনা পারিশ্রমিকে নন-রেসিডেন্সি চিকিৎসকদের ডিগ্রি নামক এক প্রহসন প্রচলিত ছিল এই দেশে। করোনার এই দুর্দশায় কেউ কেউ বলতে বাধ্য হয়েছিলেন যে ডিপ্লোমা ডিগ্রিটাই বাতিল হোক। কিন্তু আমরা হতাশ হইনি, আমরা দমে যাইনি। আমরা নন-রেসিডেন্সি চিকিৎসক ২০২০ জুলাই সেশন লড়াই করে গেছি, বারবার হতাশা গ্রাস করলেও আমরা থেমে থাকিনি, দীর্ঘ সাত মাস ধরে আমরা চেষ্টা করে গেছি।

আলহামদুলিল্লাহ, আমাদের এই চেষ্টা সাফল্যের মুখ দেখছে। তবে এই সাফল্যে যাদের অভাবনীয় সাহায্য এবং দিক নির্দেশনা পেয়েছি তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা কখনো শেষ হবে না।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) উপাচার্য অধ্যাপক ডা. কনক কান্তি বড়ুয়া স্যার, উপউপাচার্য (শিক্ষা) অধ্যাপক ডা. সাহানা আখতার রহমান ম্যাডাম আমাদের ব্যাপারটা নিয়ে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেন ও আমাদের দিকনির্দেশনা দিয়েছেন। আমরা স্বাস্থ্য সচিব আবদুল মান্নান স্যারের নিকট কৃতজ্ঞ। শুরু থেকে আজ পর্যন্ত তিনি আমাদের সাহায্য করেছেন। আশা করছি শেষ পর্যন্তও আমাদের সাথে থাকবেন।

আমরা স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল বাশার মোহাম্মদ খুরশিদ আলম স্যার এবং স্বাস্থ্যশিক্ষা ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সচিব আলী নুর স্যারের প্রতিও কৃতজ্ঞ। উপসচিব নেওয়াজ স্যারের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশের ভাষা সত্যিই আমাদের জানা নাই।

প্রধানমন্ত্রীর ব্যক্তিগত চিকিৎসক অধ্যাপক ডা. এবিএম আবদুল্লাহ স্যার, স্বাচিব সভাপতি অধ্যাপক ডা. ইকবাল আর্সলান স্যার ও বিএমএ সভাপতি ডা. মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন স্যারের প্রতিও আমরা কৃতজ্ঞ। প্রত্যেকে আমাদের ব্যাপারটা অনেক গুরুত্ব সহকারে দেখেছেন। 

এছাড়াও আমারা বিভিন্ন ডিপার্টমেন্টের স্যার ম্যাডামদের সাথেও দেখা করেছি, উনারাও আমাদের সর্বদা দিক নির্দেশনা দিয়ে গেছেন। অনেক ভাইয়া আপুরা আছেন যারা আমাদের বিভিন্নভাবে সহযোগিতা করে গেছেন। তাদের প্রতিও আমরা কৃতজ্ঞ। এতোদিনের পুরোনো ডিগ্রিটায় আজ এক নতুন মাত্রা সংযোজিত হলো আমাদের প্রত্যেকের প্রচেষ্টায়। ইনশাল্লাহ, আজ থেকে ডিপ্লোমা ডিগ্রিতে যারা আছেন এবং যারা আসবেন তারা প্রত্যেকে তাদের ন্যায্য সম্মানিটা পাবেন। 

এই দেশে ডাক্তাররাই পেশাগত দিক থেকে সবচেয়ে অবহেলার স্বীকার। এটা আমরাও টের পেয়েছি। কিন্তু চেষ্টা করতে তো সমস্যা নেই। চেষ্টা করলে সাহায্যও পাওয়া যায়, যেটা আমরা পেয়েছি।
 
সৃষ্টিকর্তার কাছে কৃতজ্ঞতা তিনি আমাদের নিজেদের এবং চিকিৎসক সমাজের জন্য কিছু করার সুযোগ দিয়েছেন। তার বদান্যতায় আমরা সফল হয়েছি। সবাইকে ধন্যবাদ এবং সকলের নিকট দোয়া চাই যেন একজন সুযোগ্য চিকিৎসক হিসেবে নিজেকে গড়ে তুলতে পারি।

স্বাস্থ্য প্রশাসনে অন্য ক্যাডার

কর্মসূচিতে যাওয়ার হুমকি পেশাজীবী চিকিৎসক নেতাদের

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত