১৯ ফেব্রুয়ারী, ২০২১ ০৩:২০ পিএম

কক্সবাজারে গভীর রাতে চিকিৎসকদের উপর হামলা

কক্সবাজারে গভীর রাতে চিকিৎসকদের উপর হামলা
আহত দু’জন ইন্টার্ন চিকিৎসক। ছবি: সংগৃহীত

মেডিভয়েস রিপোর্ট: গভীর রাতে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে কর্তব্যরত ইন্টার্ন চিকিৎসকদের উপর রোগীর স্বজনদের অতর্কিত হামলার অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন অন্তত পাঁচজন চিকিৎসক।

তবে পুলিশ বলছে, রোগী এবং চিকিৎসক উভয় পক্ষের মধ্যেই হাতাহাতি হয়েছে। যেখানে দুইজন পুলিশ সদস্যও আহত হয়েছেন। 

বৃহস্পতিবার (১৮ ফেব্রুয়ারি) রাত দেড়টার দিকে এই ঘটনা ঘটেছে বলে জানিয়েছেন কক্সবাজার সদর হাসপাতালের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শেখ মনিরুল গিয়াস।

মধ্যরাতের ওই ঘটনায় আহত কর্তব্যরত ইন্টার্ন চিকিৎসক ডা. মেসবাহ্ উদ্দিন মেডিভয়েসকে বলেন ‘গতকাল রাতে প্রায় ২৫-৩০ জন সন্ত্রাসী প্রথমে হাসপাতালের ইমার্জেন্সি বিভাগে হামলা করে। পরবর্তীতে তারা সার্জারি ওয়ার্ডের কর্তব্যরত নারী ইন্টার্ন চিকিৎসকদের সাথে খারাপ ব্যবহার করে। এরপর কর্তব্যরত ইন্টার্ন চিকিৎসকদেরকে মারধর করে। আহত অরেক নারী চিকিৎসককে রুমে অবরুদ্ধ করে রাখে।’

তিনি আরও বলেন, ‘এখন আমি খুব অসুস্থ। গতকাল রাত দেড়টার দিকে হাসপাতালে হামলার সময় আমরা ১৫ জন ইন্টার্ন চিকিৎসক কর্মরত ছিলাম। আমি ছাড়াও গুরুতর আহত হয়েছেন আরও পাঁচজন চিকিৎসক।’

ঘটনার অরেক প্রত্যক্ষদর্শী ডা. ইরফান চৌধুরী বলেন, ‘ঘটনার সময় আমি হাসপাতালেই ছিলাম। হামলার একপর্যায়ে সকল ইন্টার্ন চিকিৎসকরা ঘটনাস্থলে একত্রিত হলে তারা পালিয়ে যায়।’

এ ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী ডা. ইকবাল মাহমুদ বেলাল তাঁর ফেসবুক স্ট্যাটাসে লিখেছেন, হামলার সময় কর্তব্যরত ইন্টার্ন চিকিৎসকরা বাধা দিলে তাদেরকে বেধড়ক মারধর করা হয়।

মধ্যরাতে এমন নৃশংস হামলাকারীদের অনতিবিলম্বে আইনের আওতায় এনে শাস্তি প্রদানের জন্য হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ দৃষ্টি আকর্ষণ করেন তিনি। হামলাকারীদের অনতিবিলম্বে আইনের আওতায় না আনলে ইন্টার্ন চিকিৎসক পরিষদের পক্ষ থেকে কঠোর আন্দোলনে নামার হুশিয়ারি দেন ডা. ইকবাল মাহমুদ।

এ বিষয়ে জানতে কক্সবাজার সদর হাসপাতালের পরিচালক ডা. রফিকুস সালেহীন মেডিভয়েসকে বলেন, ‘আমি এমন একটি ঘটনা শুনেছি, কিন্তু বাইরে থাকার কারণে এখনও বিস্তারিত জানতে পারিনি। বিস্তারিত জেনে পরবর্তি পদক্ষেপ নেওয়া হবে।’

তবে ইন্টার্ন চিকিৎসকদের সাথে গতরাতে পেশেন্ট পার্টির একটা ঝামেলা হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন হাসপাতালের পরিচালক ডা. রফিকুস সালেহীন।

এ বিষয়ে কক্সবাজার জেলা সিভিল সার্জন ডা. মাহবুব রহমানের কাছে জানতে চাইলে তিনি মেডিভয়েসকে বলেন, ‘আমি হামলার বিষয়ে কিছুই অবগত নই।’

কক্সবাজার সদর হাসপাতালের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শেখ মনিরুল গিয়াস বলেন, ‘আমার কাছে কোনও অভিযোগ আসেনি। তবে ঘটনাটি উল্টো ঘটেছে। ইন্টার্ন চিকিৎসকদেরকে মারা হয়নি বরং রোগীর স্বজন এবং দুইজন পুলিশ সদস্যকে মারপিঠ করেছে ইন্টার্ন  চিকিৎসকরা।’

ইন্টার্ন চিকিৎসকরা রাতে রোগীসহ রোগীর স্বজনদেরকে বেধড়ক পিটিয়ে হাসপাতালে রেখেছে বলে পুলিশের কাছে মৌখিক অভিযোগ এসেছে বলে জানান ওসি।

কিন্তু পুলিশ সদস্যসহ রোগীদেরকে কেন বেধড়ক মারধর করা হয়েছে সে বিষয়ে কোনও কিছু জানাননি ওসি শেখ মনিরুল গিয়াস।

তবে মৌখিকভাবে অভিযোগ আসলেও এখন পর্যন্ত কোনও পক্ষের নিকট থেকে কোনও লিখিত অভিযোগ পাননি বলে জানিয়েছেন তিনি। লিখিত অভিযোগ পেলে পরবর্তী পদক্ষেপ নেওয়া হবে বলে জানান ওসি শেখ মনিরুল গিয়াস।

মেডিভয়েসের জনপ্রিয় ভিডিও কন্টেন্টগুলো দেখতে সাবস্ক্রাইব করুন MedivoiceBD ইউটিউব চ্যানেল। আপনার মতামত/লেখা পাঠান [email protected] এ।
  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
নিবন্ধনহীন ওষুধ লিখলে চিকিৎসকের শাস্তি
জাতীয় ওষুধনীতি-২০১৬’ এর খসড়ার নীতিগত অনুমোদন

নিবন্ধনহীন ওষুধ লিখলে চিকিৎসকের শাস্তি