৩১ মার্চ, ২০২১ ০৭:৫৯ পিএম

উৎস বন্ধ না করলে করোনা নিয়ন্ত্রণ অসম্ভব: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

উৎস বন্ধ না করলে করোনা নিয়ন্ত্রণ অসম্ভব: স্বাস্থ্যমন্ত্রী
স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক

মেডিভয়েস রিপোর্ট: করোনাভাইরাস উৎপত্তির উৎস বন্ধ না করলে শুধুমাত্র সেবা দিয়ে সংক্রমণ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করা যাবে না। যে হারে রোগী বাড়ছে তাতে ঢাকা শহরকে হাসপাতালে পরিণত করলেও সকলকে চিকিৎসা দেওয়া সম্ভব না বলে মন্তব্য করেছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক।

আজ বুধবার (৩১ মার্চ) বাংলাদেশ প্রাইভেট মেডিকেল কলেজ অ্যাসোসিয়েশনের (বিপিএমসিএ) আয়োজনে এক ভার্চুয়াল আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ‘গত দুইদিনে দেশে সংক্রমণের হার অনেক বেড়ে গেছে। এর কারণ আমাদের দেশের মানুষের স্বাস্থ্যবিধি মানা ছেড়ে দেওয়া। কোনো স্বাস্থ্যবিধির তোয়াক্কা না করে তাঁরা বিনোদন কেন্দ্রে ভ্রমণ করেছে। গত একমাসে প্রায় ২৫ লাখ মানুষ চট্টগ্রাম, পার্বত্য চট্টগ্রাম ও কক্সবাজার। পাশাপাশি সারাদেশে কোথাও কেউ স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলেনি। এটাই আমাদের কাল হয়ে দাঁড়িয়েছে। উৎস বন্ধ না করলে সিট বা সেবা বাড়িয়ে কোনো লাভ হবে না।’

সরকারের পদক্ষেপের বিষয়ে তিনি বলেন, ‘সরকারি উদ্যোগে দ্রুততার সাথে আগামী কয়েক দিনের মধ্যেই প্রায় আড়াই হাজার বেড বৃদ্ধি করার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। ৪০টি নতুন আইসিইউ বেড স্থাপন করা হচ্ছে। ঢাকা নর্থ সিটি কর্পোরেশন হাসপাতালটি করোনা ডেডিকেটেড করা হচ্ছে। এছাড়া রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী হাসপাতাল, শেখ হাসিনা বার্ন ইনস্টিটিউট, ঢাকা মেডিকেল কলেজ, শেখ রাসেল গ্যাস্ট্রোলিভার হাসপাতালসহ দেশের বেশিরভাগ হাসপাতালে শত শত শয্যা কোভিড ডেডিকেটেড করা হচ্ছে।’

‘প্রতিদিন যদি ৫০০-১০০০ রোগী হাসপাতালে ভর্তি হতে থাকে তাহলে গোটা ঢাকা শহরকে হাসপাতাল করে ফেললেও রোগী রাখার জায়গা দেওয়া যাবে না। এজন্য যা করার এখনই করতে হবে। এই মুহূর্তে যা করতে হবে তা হচ্ছে, যে যে স্থান থেকে করোনা সৃষ্টি হচ্ছে সেই সকল স্থানে এখনই জরুরি প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে হবে। সবাইকে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ১৮টি নির্দেশনা কঠোরভাবে মেনে চলতে হবে’, যোগ করেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক।

তিনি বলেন, এ লক্ষ্যে দেশের সকল পর্যটন কেন্দ্র, হোটেল, যানবাহনসহ অন্যান্য সংশ্লিষ্ট ক্ষেত্রসমূহে কঠোরভাবে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। বিয়ে-শাদি, ধর্মীয় অনুষ্ঠান, পিকনিক আয়োজন বন্ধ রাখতে হবে। সকল মানুষকে মুখে মাস্ক পড়তে হবে।

এ সময় বেসরকারি মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশনের পক্ষ থেকে এন্টিবডি টেস্টের অনুমোদন দেওয়ার অনুরোধ জানালে ঢাকার বড় বড় প্রাইভেট মেডিকেলগুলোকে এন্টিবডি টেস্টের অনুমোদন দেওয়ার জন্য স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালককে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণের নির্দেশনা দেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী।

সংগঠনটির সভাপতি মুবিন খানের সভাপতিত্বে সভায় আরও বক্তব্য রাখেন দুর্যোগ ব্যাবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী ও বিপিএমসিএর উপদেষ্টা ডা. মো. এনামুর রহমান, বিপিএমসিএর সাধারণ সম্পাদক ও আনোয়ার খান মডার্ন মেডিকেল কলেজের চেয়ারম্যান ড. আনোয়ার গোসেন খান, স্বাস্থ্য শিক্ষা বিভাগের সচিব আলী নূর, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক এবিএম খুরশিদ আলম প্রমুখ। 

মেডিভয়েসের জনপ্রিয় ভিডিও কন্টেন্টগুলো দেখতে সাবস্ক্রাইব করুন MedivoiceBD ইউটিউব চ্যানেল। আপনার মতামত/লেখা পাঠান [email protected] এ।
  ঘটনা প্রবাহ : করোনাভাইরাস
  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
নিবন্ধনহীন ওষুধ লিখলে চিকিৎসকের শাস্তি
জাতীয় ওষুধনীতি-২০১৬’ এর খসড়ার নীতিগত অনুমোদন

নিবন্ধনহীন ওষুধ লিখলে চিকিৎসকের শাস্তি