১৪ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ০৬:১৭ পিএম
করোনাভাইরাস পরিস্থিতি 

সমাপনী পরীক্ষা ছাড়াই ষষ্ঠ শ্রেণিতে ভর্তির সুযোগ

সমাপনী পরীক্ষা ছাড়াই ষষ্ঠ শ্রেণিতে ভর্তির সুযোগ

মেডিভয়েস রিপোর্ট: করোনা পরিস্থিতির কারণে এ বছর পঞ্চম শ্রেণির সমাপনী পরীক্ষা না নেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়। ফলে পরীক্ষায় অংশগ্রহণ ছাড়াই ষষ্ঠ শ্রেণিতে ভর্তির সুযোগ পাচ্ছে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সকল শিক্ষার্থী।

প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর (ডিপিই) জানিয়েছে, বৈশ্বিক মহামারির জন্য গত ১৮ মার্চ থেকে দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। এ পরিস্থিতির কারণে চলতি বছর পঞ্চম শ্রেণির সমাপনী পরীক্ষা আয়োজন করা হচ্ছে না। তাই ডিসেম্বরে গ্রেড বা জিপিএ নম্বর ছাড়া সব পরীক্ষার্থীর জন্য পাসের সার্টিফিকেট বিতরণ করা হবে।

জানা গেছে, পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হলেও স্কুল খোলা হবে বলে সরকারিভাবে ঘোষণা দেওয়া হয়েছে। আজ সোমবার (১৪ সেপ্টেম্বর) সচিবালয়ে মন্ত্রিসভার বৈঠকের ব্রিফিংয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল বলেন, কেন্দ্রীয়ভাবে নয়, স্ব স্ব মন্ত্রণালয় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবে। বিষয়টি সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের ওপর ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। তারা (শিক্ষা মন্ত্রণালয় এবং প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়) আলাদা চিন্তা-ভাবনা (শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার বিষয়ে) করছে, কীভাবে করা যায়। কওমি মাদরাসা খুলে দেওয়া হয়েছে।

ডিপিই জানিয়েছে, আগামী নভেম্বরের মধ্যে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা সম্ভব না হলে পঞ্চম শ্রেণির অপেক্ষমাণ রেজিস্ট্রেশন করা পরীক্ষার্থীদের পাসের সার্টিফিকেট দেওয়া হবে। 

প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মো. ফসিউল্লাহ গণমাধ্যমকে বলেন, করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হলে নিবন্ধন করা পঞ্চম শ্রেণির সব শিক্ষার্থীকে পাসের সার্টিফিকেট দেওয়া হবে। পরীক্ষা নেওয়া সম্ভব না হলে গ্রেড বা জিপিএ দেওয়া হবে। ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে শিক্ষার্থীদের সার্টিফিকেট স্ব স্ব বিদ্যালয়ে পাঠানো হবে। সেখান থেকে বিতরণ করা হবে।

তবে সেসব সার্টিফিকেটে কোনো জিপিএ বা গ্রেড পয়েন্ট উল্লেখ থাকবে না জানিয়ে তিনি বলেন, সার্টিফিকেটে শুধু উত্তীর্ণ লেখা থাকবে। সেটি নিয়ে শিক্ষার্থীরা ষষ্ঠ শ্রেণিতে ভর্তি হতে পারবে।

করোনা পরিস্থিতির কারণে সমাপনী-ইবতেদায়ি পরীক্ষা বাতিলে গত ১৯ আগস্ট প্রধানমন্ত্রীর কাছে একটি সারসংক্ষেপ পাঠানো হয়। এ নিয়ে সম্প্রতি প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মুখ্য সচিব আহমদ কায়কাউসের উপস্থিতিতে শিক্ষা এবং প্রাথমিক ও গণশিক্ষা সচিবের একটি বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

সেখানে পরীক্ষা না নেওয়ার প্রস্তাব প্রধানমন্ত্রীকে পাঠানোর সিদ্ধান্ত হয়। এর ভিত্তিতে একটি সারসংক্ষেপ তৈরি করে প্রধানমন্ত্রীর কাছে পাঠানো হলে তাতে সম্মতি দেওয়া হয়। পরে পরীক্ষা না নেওয়ার ঘোষণা দেওয়া হয়।

এ বিষয়ে গত ২৭ আগস্ট গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সে বিদ্যুতায়ন কার্যক্রম উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, করোনা পরিস্থিতিতে সরকার স্কুলে অটোপ্রমোশনের কথা ভাবছে। একজন শিক্ষার্থীর বক্তব্যের জবাবে তিনি আরও বলেন, করোনা পরিস্থিতিতে প্রায় ছয় মাস দেশের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। কবে সব খুলে দেওয়া যাবে তাও নিশ্চিত নয়। এ অবস্থায় স্কুলে অটোপ্রমোশন কিংবা বিকল্প কোনকিছু ভাবা হচ্ছে। 

মেডিভয়েস এর জনপ্রিয় ভিডিও কন্টেন্ট গুলো দেখতে সাবস্ক্রাইব করুন MedivoiceBD ইউটিউব চ্যানেল। আপনার মতামত/লেখা পাঠান [email protected] এ।
  ঘটনা প্রবাহ : করোনাভাইরাস
সিন্ডিকেট মিটিংয়ে প্রস্তাব গৃহীত

ভাতা পাবেন ডিপ্লোমা-এমফিল কোর্সের চিকিৎসকরা

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা উপেক্ষা

অতিরিক্ত বেতন নিচ্ছে একাধিক বেসরকারি মেডিকেল

প্রস্তুতির নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

অক্টোবর-নভেম্বরে ২য় ধাপে করোনা সংক্রমণের শঙ্কা

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
নিবন্ধনহীন ওষুধ লিখলে চিকিৎসকের শাস্তি
জাতীয় ওষুধনীতি-২০১৬’ এর খসড়ার নীতিগত অনুমোদন

নিবন্ধনহীন ওষুধ লিখলে চিকিৎসকের শাস্তি