২৭ মে, ২০২০ ১০:৩১ পিএম

আরও ২ হাজার চিকিৎসক নিয়োগের পরিকল্পনা, সম্মত প্রধানমন্ত্রী

আরও ২ হাজার চিকিৎসক নিয়োগের পরিকল্পনা, সম্মত প্রধানমন্ত্রী

মেডিভয়েস রিপোর্ট: করোনাভাইরাস পরিস্থিতি সামাল দিতে নতুন করে আরও ২ হাজার চিকিৎসক নিয়োগের পরিকল্পনা করছে সরকার। এটি বাস্তবায়িত হলে করোনা সংকট মোকাবিলায় নিয়োগ পাবেন ৪ হাজার চিকিৎসক।

আজ বুধবার (২৭ মে) জাতীয় দৈনিক প্রথম আলোর অনলাইন প্রতিবেদনে এ কথা বলা হয়েছে। 

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, এতে প্রধানমন্ত্রীর সম্মতি আছে। এর পরিপ্রেক্ষিতে এরই মধ্যে কাজ শুরু করেছে মন্ত্রণালয়। ৩৯তম বিশেষ বিসিএসের অপেক্ষমাণ তালিকা থেকেই এসব চিকিৎসক নিয়োগ দেওয়া হবে জানিয়ে সূত্রটি বলছে, করোনার এ সংকটময় মুহূর্তে এটিই সহজতর সমাধান।

করোনাভাইরাসের চিকিৎসায় চিকিৎসক সংকটের কারণে আক্রান্তদের চিকিৎসা দিতে হিমশিম খাচ্ছে সরকার। প্রতিদিনই পাল্লা দিয়ে বাড়ছে করোনায় মৃত্য ও আক্রান্তের সংখ্যা। এরই মধ্য দেশের বিভিন্ন স্থানে চিকিৎসকেরা অনেকে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। চিকিৎসা সেবা প্রদান করতে গিয়ে প্রাণ হারিয়েছেন চারজন চিকিৎসক। 

চিকিৎসকদের সংগঠন বাংলাদেশ ডক্টরস ফাউন্ডেশনের (বিডিএফ) তথ্য মতে, এ পর্যন্ত দেশের প্রায় হাজারেরও বেশি চিকিৎসক করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। তাঁদের অধিকাংশই সরকারি হাসপাতালে কর্মরত।

বিডিএফ  প্রধান সমন্বয়ক ডা. নিরুপম দাশ জানান, দেশের সব সরকারি ও বেসরকারি উভয় হাসপাতালে গড়ে প্রতি ঘণ্টায় দুজন চিকিৎসক করোনাভাইরাস আক্রান্ত হচ্ছেন। 

এ অবস্থায় পরিস্থিতি মোকাবেলের সর্বশেষ এ মাসে নতুন ২ হাজার চিকিৎসক নিয়োগ দেয় সরকার। গত ১২ মে ওই চিকিৎসকেরা দেশের বিভিন্ন স্থানে যোগ দেন। 

এরই ধারাবাহিকতায় নতুন আরও ২ হাজার চিকিৎসক নিয়োগের কথা অনেকটাই চূড়ান্ত করছে সরকার।

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের একটি সূত্র জানিয়েছে, নতুনভাবে চিকিৎসক নিয়োগ দিতে গেলে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ, কয়েক দফা পরীক্ষার আয়োজন করতে হবে, যা সময় সাপেক্ষ। সেই অবস্থাও এখন নেই। দেশে এখন চিকিৎসক সংকট। এই বিশেষ সংকটের সময় জাতীয় স্বার্থের কথা বিবেচনা করে ৩৯তম বিশেষ বিসিএসের অপেক্ষমাণ তালিকা থেকে মেধার ভিত্তিতে দ্বিতীয় দফা আরও ২ হাজার চিকিৎসক নিয়োগ দেওয়া হবে।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তর দ্রুত গতিতে নতুন ২ হাজার চিকিৎসক নিয়োগ দিতে কার্যক্রম শুরু করেছে। অধিদপ্তর সূত্র জানিয়েছে, এ বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর সম্মতি পেয়েছেন তাঁরা। এটি নিয়ে কাজ করছেন।

স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, তারা আরও ২ হাজার চিকিৎসক নিয়োগ দিতে চান। এখন ৩৯তমে বিশেষ বিসিএসের অপেক্ষমাণ তালিকা থেকেই এই নতুন ২ হাজার নিযোগ দেওয়ার বিষয়ে কাজ করছে সরকার। কিছু আনুষ্ঠানিকতার কাজ চলমান আছে। পদ তৈরি করা, নতুন চিকিৎসকের বেতন দেওয়া এসবের জন্য অর্থ ও জনপ্রসাশন মন্ত্রণালয় এবং পিএসসির কিছু কাজ আছে। এসব কাজ দ্রুত সময়ে করা হচ্ছে। শিগগিরই তাঁদের নিয়োগ করা হবে। 

প্রসঙ্গত, ২০১৮ সালে ১০ এপ্রিল ৩৯তম বিশেষ বিসিএসের আবেদন কার্যক্রম শুরু হয়, শেষ হয় ৩০ এপ্রিল। ওই বছরের ৩ আগস্ট এই বিসিএসের প্রিলিমিনারি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়, এতে ৩৭ হাজার ৫৮৩ জন অংশ নেন। পরীক্ষায় পাস করেন মোট ১৩ হাজার ৭৫০ জন চিকিৎসক। এর মধ্যে সহকারী সার্জন পদে ১৩ হাজার ২১৯ চিকিৎসক ও ৫৩১ জন সহকারী ডেন্টাল সার্জন পদে উত্তীর্ণ হন। এখানে অপেক্ষমান তালিকায় থাকে আট হাজারের বেশ চিকিৎসক।

করোনা ভাইরাস থেকে সুরক্ষিত থাকতে গুরুত্বপূর্ণ নিয়ম গুলো মেনে চলুন। সর্দি কাশি জ্বর হলে হাসপাতালে না গিয়ে স্বাস্থ্য সেবা দানকারী হটলাইন গুলোতে ফোন করুন। আইইডিসিআর হটলাইন- 10655, email: [email protected]
  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত