০২ অগাস্ট, ২০২০ ১০:৫৯ এএম

রোগীদের সুস্থতার মাঝেই চিকিৎসকদের ঈদ আনন্দ

রোগীদের সুস্থতার মাঝেই চিকিৎসকদের ঈদ আনন্দ

মেডিভয়েস রিপোর্ট: রোগীদের সুস্থতার মাঝেই চিকিৎসকরা খুঁজে পান ঈদের আনন্দ। তবে কোভিড মহামারীতে এবারের ঈদ আনন্দে সঙ্গে মিশে আছে চ্যালেঞ্জ। রোগীকে সুস্থ করে পরিবারের কাছে ফিরিয়ে দিতে পারার আনন্দটুকুই স্বস্তি ও সাহসী করে তুলছে ফ্রণ্টলাইনারদের। সংক্রমণ রোধে সচেতনতার বিকল্প নেই বলছেন চিকিৎসকরা।

একজন চিকিৎসকের শপথ আর্তেও সেবা। ঈদের দিনেও দায়িত্বে কর্তব্যে নেই কোন ব্যতিক্রম। অন্য সময়ের তুলনায় এবার পরিস্থিতি ভিন্ন, কোভিড মোকাবেলায় শুরু থেকেই সামনের সারির যোদ্ধা চিকিৎসক-নার্সরা। সবাই যখন পরিজনদের সঙ্গে ঈদ আনন্দ ভাগাভাগি করছে; চিকিৎসক তখন হাসপাতালে, রোগীর শয্যার পাশে।  

জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ ও চট্টগ্রাম ফিল্ড হাসপাতালের সিইও ডা. বিদ্যুৎ বড়ুয়া বলেন, তারা যখন ডাক্তার হিসেবে কোন কাজে নিয়োজিত থাকেন তখন কোন উৎসবই তাকে ছুয়ে যায় না, রোগীর সুস্থতাই তাদের কাছে উৎসবের আনন্দ।

তিনি বলেন, প্রত্যেকটা মানুষই হচ্ছে এই সংক্রমণের নিয়ন্ত্রক, স্বাস্থ্য বিধি মেনে সংক্রমণ রোধে নিজেকে মাস্ক পরতে হবে এবং তার পাশের জন পড়েছে কিনা সেটাও  নিশ্চিত করতে হবে।

শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সার্জারি বিভাগের রেজিস্ট্রার ডা. রাজীব দে সরকার বলেন,  সার্জারি বিভাগ থেকে ভাগ হয়ে করোনা ইউনিটে কাজ করার পর আবারও কোয়ারেন্টিন করছি আমরা। কারণ, শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালতো একইসঙ্গে কোভিড এবং নন কোভিড রোগীদের চিকিৎসা দিচ্ছে।

তিনি বলেন, ঈদের ছুটি কখনও ছিল না। চিকিৎসক হওয়ার পর থেকে কখনও ঈদে ছুটি কাটাইনি মন্তব্য করে ডা. রাজীব বলেন, এটা নিয়ে দুঃখ নেই। এটা রুটিন হয়ে গেছে আমাদের।

রাজধানীর করোনা ডেডিকেটেড কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে ঈদে আইসিইউতে ডিউটি করেছেন ডা. ফাল্গুনি বসাক মিতু। তিনি বলেন, মেডিকেল অফিসার দুই জন, কনসালটেন্ট তিন জন। এছাড়া আইসিইউ ইনচার্জ ডা. শাহজাদ হোসেন মাসুম স্যার সকালে এসে সারাদিন ছিলেন। তাই খারাপ লাগেনি। আর এটাতো একটা দুর্যোগের সময়, মনকে সেভাবেই মানিয়ে নিয়েছি।

ডা. ফাল্গুনি বলেন, শনিবার (১ আগস্ট) সকাল আটটায় ডিউটিতে এসেছি। রবিবার সকালে পরবর্তী দলের কাছে দায়িত্ব হ্যান্ডওভার করে বাসায় যাবো। একটানা তিন দিনের ডিউটি করে বাসায় আইসোলেশনে থাকবেন তিনি  বলে জানান তিনি। 

পৃথিবীর দুর্দিন কেটে যাবে দ্রুত, মানুষ ফিরে যাবে তার স্বাভাবিক জীবন যাপনে, এমন প্রত্যাশা নিয়েই দায়িত্বে অবিচল চিকিৎসকরা। ধর্ম বর্ণ নির্বিশেষে ত্যাগের মহিমায় ঈদের আনন্দটুকু সবার মাঝে ছড়িয়ে পড়ুক; পৃথিবী থেকে দূর হোক মহামারীর কালো ছায়া। এমন প্রত্যাশায় সেবা-ধর্ম পালনের প্রতিজ্ঞায় সংকল্পবদ্ধ সম্মুখযোদ্ধারা।

  ঘটনা প্রবাহ : করোনাভাইরাস
  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
নিবন্ধনহীন ওষুধ লিখলে চিকিৎসকের শাস্তি
জাতীয় ওষুধনীতি-২০১৬’ এর খসড়ার নীতিগত অনুমোদন

নিবন্ধনহীন ওষুধ লিখলে চিকিৎসকের শাস্তি