১৩ ফেব্রুয়ারী, ২০২২ ০৫:৩৭ পিএম

হেলথ বন্ধু’র আয়োজনে হেলথ অ্যাওয়ারনেস ক্যাম্পেইন অনুষ্ঠিত

হেলথ বন্ধু’র আয়োজনে হেলথ অ্যাওয়ারনেস ক্যাম্পেইন অনুষ্ঠিত
রোববার (১৩ ফেব্রুয়ারি) সকালে সাড়ে ১০টায় সভায়কে স্বাগত জানিয়ে অনুষ্ঠানের সূচনা করা হয়।ছবি: ফাইল

মেডিভয়েস রিপোর্ট: কৃমিজনিত রোগ ও এর প্রতিরোধে সচেতনতা সৃষ্টির উদ্দেশ্যে হেলথকেয়ার অ্যাগ্রেগেটর প্ল্যাটফর্ম হেলথ বন্ধু'র আয়োজনে ‘হেলথ অ্যাওয়ারনেস ক্যাম্পেইন’ অনুষ্ঠিত হয়েছে। শিশু ও অভিভাবকদের মধ্যে সচেতনতা বৃদ্ধির উদ্দেশ্যে প্রায় ৩৭০ জনের বেশি অংশগ্রহণকারী নিয়ে ওয়ার্কশপ, সেমিনার ও কৃমিনাশক ওষুধ বিতরণ করে সংস্থাটি। 

আজ রোববার (১৩ ফেব্রুয়ারি) সকালে সাড়ে ১০টায় সভায়কে স্বাগত জানিয়ে অনুষ্ঠানের সূচনা করা হয়। 

সেমিনারে আইএইচএফ স্কুল থেকে শিশু ও অভিভাবক মিলিয়ে প্রায় ৩৭০ জনের অধিক শিশু ও অভিভাবক অংশগ্রহণ করে। পরে কোভিড স্বাস্থ্যবিধি মেনে সবার হাত স্যানিটাইজ করা হয়। প্রথম সেশনে শিশু ও অভিভাবকদের নিয়ে আয়োজিত একটি সেমিনারে বক্তারা কৃমির কারণে শিশুর বিকাশ কীভাবে প্রভাবিত হয় ও এগুলো রোধ করতে কীভাবে কাজ করা উচিৎ সে সম্পর্কে সবাইকে সচেতন করেন। 

জাতীয় ফাইলেরিয়া দমন প্রোগ্রামের অংশ হিসেবে বিগত দশক থেকেই বাংলাদেশে শিশুদেরকে কৃমিনাশক ট্যাবলেট বিতরণ ও নানা ধরনের ক্যাম্পেইন পরিচালন করা হয় নিয়মিতভাবে। তৃতীয় বিশ্বের একটি দেশ হওয়ায় বাংলাদেশে অপুষ্টিজনিত রোগ ও অস্বাস্থ্যকর পরিবেশের কারণে উদ্ভুত রোগের সংখ্যা সবসময়ই বেশি। তবে কৃমি এক্ষেত্রে শিশুদের বিকাশে খুবই নেতিবাচক ভূমিকা পালন করে৷ কৃমি এক ধরনের পরজীবী যা খালি চোখে দেখা যায় না। তবে অপরিষ্কার ও স্যাঁতসেঁতে জায়গা কৃমির বাসস্থান। এসব জায়গা থেকে শিশুর অন্ত্রে কৃমি প্রবেশ করলে মস্তিষ্ক ও অন্ত্র খুবই ক্ষতিগ্রস্ত হয়। শিশুর রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমে যায়৷ এসমস্ত বিষয়ে শিশু ও তাদের অভিভাবকদের সচেতন করতে হেলথ বন্ধু (It's Humanity Foundation-IHF) আইএইচএফ স্কুলের টঙ্গী ক্যাম্পাসে এই সেমিনারটি আয়োজন করে। 

সংস্থাটির চিফ এক্সিকিউটিভ অফিসার (সিইও) আর এইচ রিফাত প্রথম সেশনটি পরিচালনা করেন, এ সময় ভিজুয়াল প্রেজেন্টেশন ও প্রশ্নোত্তরের মাধ্যমে শিশু ও অভিভাবকদের মধ্যে কৃমি সংক্রান্ত সচেতনবার্তা দেন ও এ সম্পর্কে প্রচলিত ভুল ধারণাগুলোকে স্পষ্ট করেন তিনি।

হেলথ বন্ধু’র ম্যানেজিং ডিরেক্টর (এমডি) নাফিজুল ইসলাম বলেন,‘কৃমিনাশক সম্পর্কে এখনো অনেক অভিভাবক সঠিক ধারণা রাখেন না, তাই আমাদের এই আয়োজনে আমরা শিশু ও অভিভাবক দুই পক্ষের সাথেই একটি সেতুবন্ধন তৈরির চেষ্টা করেছি। অভিভাবক সচেতন হওয়াটা শিশু স্বাস্থ্যের জন্য সর্বোচ্চ গুরুত্বপূর্ণ।’

দ্বিতীয় সেশনে শিশুদের মধ্যে কৃমিনাশক ট্যাবলেট বিতরণ করা হয়। সর্বশেষ ফটোসেশন ও আইএইচএফ স্কুলকে হেলথ বন্ধু’র পক্ষ থেকে কিটসহ ফাস্ট এইড বক্স ও মাস্ক দেওয়া হয়। 

মেডিভয়েসের জনপ্রিয় ভিডিও কন্টেন্টগুলো দেখতে সাবস্ক্রাইব করুন MedivoiceBD ইউটিউব চ্যানেল। আপনার মতামত/লেখা পাঠান [email protected] এ।
দাবি মেনে নেওয়ার আশ্বাস বিভিন্ন মেডিকেলের

বর্ধিত ভাতা পাচ্ছেন ৭ বেসরকারি মেডিকেলের ইন্টার্ন চিকিৎসকরা

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
এক দিনে চিরবিদায় পাঁচ বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক
করোনা ও বার্ধক্যজনিত অসুস্থতা

এক দিনে চিরবিদায় পাঁচ বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক