২৬ অগাস্ট, ২০২১ ০২:১১ এএম

মৃত্যুর আগে ফেসবুকে যা লিখেছিলেন ডা. আরেফিন

মৃত্যুর আগে ফেসবুকে যা লিখেছিলেন ডা. আরেফিন
ডা. চৌধুরী ফাহিম আরেফিন। ফাইল ছবি

মেডিভয়েস রিপোর্ট: ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ (মমেক) হাসপাতালের ইন্টার্ন চিকিৎসক ডা. চৌধুরী ফাহিম আরেফিনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। বুধবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজের মিলন হলের ২০৭ নম্বর কক্ষ থেকে তার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। 

তার মৃত্যুর আগের দিন মঙ্গলবার রাত ১টার দিকে ফেসবুকে নিজের টাইমলাইনে সর্বশেষ স্ট্যাটাস দেন। অপারেশন থিয়েটারে নিজের দায়িত্বপালনের ছবি দিয়ে ওই স্ট্যাটাসে তিনি লেখেন, ‘I gave up my life to learn how to save yours.’

এর আগে গত বুধবার নিজের দাদা ডা. চৌধুরী আরেফিনের মৃত্যুর খবর ফেসবুকে শেয়ার করেন। 

এ বিষয়ে শোকাহত ডা. চৌধুরী আরেফিন তার ফেসবুক টাইমলাইনে লেখেন, আমার দাদাভাই, 'আলহাজ ডা. হাবিবুর রহমান চৌধুরী' আজকে আমাদের সবাইকে ছেড়ে চলে গিয়েছেন। তার মৃত্যুশয্যায় তার একমাত্র নাতি হয়ে থাকতে পারলাম না, যেই দাদাভাই নিজেই আমাকে আজ এই পর্যন্ত নিয়ে আসলো। সবাই আমার দাদাভাইয়ে জন্য দু'আ করবেন। তার কোনো ভুলত্রুটি থাকলে ক্ষমা করে দিবেন। আল্লাহ উনার রূহের মাগফিরাত করুক।

আগস্ট মাসজুড়ে তার বিভিন্ন স্ট্যাটাসে করোনা ভ্যাকসিন নিয়ে বিভিন্ন সচেতনতামূলক স্ট্যাটাস দেন। জুলাইয়ে তিনি আর্জেন্টিনার কোপা আমেরিকা জয়ের বন্ধুদের সঙ্গে বিজয়োল্লাসের ছবি নিজের ফেসবুক টাইমলাইনে দেন। জুন মাসে তার বিভিন্ন স্ট্যাটাসে নিজের সহধর্মিনী তাজমিন শান্তাকে নিয়ে বিভিন্ন আনন্দঘন মুহূর্ত ছবিসহ শেয়ার করেন। 

গত ১৩ ফেব্রুয়ারি তিনি করোনা ভ্যাকসিনের প্রথম ডোজ নেন। ১৪ মার্চ তিনি করোনার দ্বিতীয় ডোজ ভ্যাকসিন গ্রহণ করেন। এসব তথ্য তিনি ফেসবুকে শেয়ার করেছেন।

প্রসঙ্গত, ১৯৯৬ সালে নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লা থানার এনায়েতনগর ইউনিয়নে জন্মগ্রহণ করেন চৌধুরী ফাহিম আরেফিন। তার বাবার নাম চৌধুরী মোস্তফা হাবিব। তিনি যশোর মেডিকেল কলেজ থেকে এমবিবিএস পাস করে চলতি বছরের মার্চ মাস থেকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ইন্টার্নশিপ করছিলেন। গত বছরের জুন মাসে তিনি বিয়ে করেছিলেন। 
আরও পড়ুন

►ময়মনসিংহ মেডিকেলের ছাত্রাবাসে ডা. আরেফিনের লাশ

  ঘটনা প্রবাহ : চিকিৎসকের মৃত্যু
  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
নিবন্ধনহীন ওষুধ লিখলে চিকিৎসকের শাস্তি
জাতীয় ওষুধনীতি-২০১৬’ এর খসড়ার নীতিগত অনুমোদন

নিবন্ধনহীন ওষুধ লিখলে চিকিৎসকের শাস্তি