২৯ নভেম্বর, ২০২০ ০৯:১৫ পিএম

‘সরকারি-বেসরকারি হাসপাতাল মিলেই করোনার দ্বিতীয় ঢেউ সামাল’ 

‘সরকারি-বেসরকারি হাসপাতাল মিলেই করোনার দ্বিতীয় ঢেউ সামাল’ 

মেডিভয়েস রিপোর্ট: দেশের সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতাল মিলে একযোগে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ মোকাবেলা করতে হবে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। তিনি আরও বলেন, করোনার প্রথম পর্যায়ে দেশের বেসরকারি হাসপাতালগুলোর মধ্য থেকে অন্তত ৭৫টি হাসপাতাল করোনা নিয়ে কোনো না কোনোভাবে কাজ করেছে। এদের মধ্যে ১৫টি হাসপাতাল ছিল কোভিড ডেডিকেটেড। এসব হাসপাতালে লক্ষ লক্ষ লোকের কর্মসংস্থান অব্যাহত ছিল।

আজ রোববার (২৯ নভেম্বর) বিকেলে রাজধানীর ইন্টারকন্টিনেন্টাল হোটেলের বলরুমে বাংলাদেশ প্রাইভেট মেডিকেল এসোসিয়েশনের (বিপিএমসিএ) আয়োজনে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ মোকাবেলা ও ভ্যাকসিন বিষয়ক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি। 

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, করোনার এই দুঃসময়ে এই প্রাইভেট হাসপাতালগুলোর মাধ্যমে প্রায় ১২ হাজার কোভিড রোগীর চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে এবং লক্ষাধিক করোনা টেস্ট করা হয়েছে। এগুলো এই দুঃসময়ে দেশের মানুষের কাজে লেগেছে। বেসরকারি হাসপাতালগুলো যেভাবে সরকারের সাথে থেকে করোনার প্রথম পর্যায়ে কাজ করে গেছে দ্বিতীয় তরঙ্গেও ঠিক সেভাবেই কাজ করবে। 

একই সঙ্গে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চললে করোনার দ্বিতীয় তরঙ্গেও দেশের মানুষ এখনকার মতো করেই নিরাপদে থাকতে পারবে বলেও জানান জাহিদ মালেক। 

মাস্ক ব্যবহারের ওপর গুরুত্বারোপ করে মন্ত্রী বলেন, ‘করোনায় মাস্ক ব্যবহার না করে মানুষ এখন মাত্রাতিরিক্ত আত্মবিশ্বাস দেখাচ্ছে, যা কিছুটা চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। এ কারণে সরকার এখন কঠোর অবস্থানে চলে যাচ্ছে। করোনা থেকে বাঁচতে হলে এখন মাস্ক পরার বিকল্প নেই।’

ভ্যাক্সিন আনা প্রসঙ্গে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জানান, ‘বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা এখনো কোন দেশকেই ভ্যাক্সিন ব্যবহার করার অনুমোদন দেয়নি। তবে সরকার সব ধরনের প্রস্তুতি সম্পন্ন করে রেখেছে। যখনই বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বিশ্বের কোথাও কাউকে ভ্যাক্সিন ব্যবহারে অনুমতি দিবে, বাংলাদেশও সাথে সাথেই ভ্যাক্সিন পেয়ে যাবে।’

সভায় বাংলাদেশ মেডিকেল এসোসিয়েশনের সভাপতি মুবিন খান করোনার প্রথম পর্যায় ও দ্বিতীয় ঢেউ সামলানোর বিষয়ে তথ্য উপাত্ত তুলে ধরে বক্তব্য রাখেন। করোনার প্রথম পর্যায়ে বাংলাদেশ সরকারের পাশে থেকে বাংলাদেশ প্রাইভেট মেডিকেল এসোসিয়েশন কিভাবে কাজ করে গেছে, সে ব্যাপারে বিস্তারিত তথ্য তুলে ধরে বক্তব্য রাখেন তিনি।

বাংলাদেশ মেডিকেল এসোসিয়েশনের সভাপতি মুবিন খানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন স্বাস্থ্য শিক্ষা বিভাগের সচিব আলী নূর, বাংলাদেশ মেডিকেল এসোসিয়েশনের মহাসচিব আনোয়ার হোসেন খান, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা আবুল বাশার মোহাম্মদ খুরশিদ আলম। এছাড়া উপস্থিত ছিলেন দেশের বিভিন্ন বিভাগীয় শহর থেকে আসা প্রাইভেট মেডিকেল হাসপাতালের পরিচালকবৃন্দ।

মেডিভয়েসের জনপ্রিয় ভিডিও কন্টেন্টগুলো দেখতে সাবস্ক্রাইব করুন MedivoiceBD ইউটিউব চ্যানেল। আপনার মতামত/লেখা পাঠান [email protected] এ।
  ঘটনা প্রবাহ : করোনাভাইরাস
  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত