২৪ নভেম্বর, ২০২০ ০১:৩৯ পিএম
এ সপ্তাহে ৪২তম বিশেষ বিসিএসের বিজ্ঞপ্তি 

আরও ২০০০ চিকিৎসক নিয়োগের প্রক্রিয়া চূড়ান্ত

আরও ২০০০ চিকিৎসক নিয়োগের প্রক্রিয়া চূড়ান্ত
প্রতীকী ছবি

মেডিভয়েস রিপোর্ট: ৪২তম বিশেষ বিসিএসের মাধ্যমে নেওয়া হবে আরও ২ হাজার চিকিৎসক। এ লক্ষ্যে আগামীকাল বুধবার (২৫ নভেম্বর) বিশেষ সভা আহ্বান করেছে বাংলাদেশ সরকারি কর্ম কমিশন (পিএসসি)। সেখানে এ বিসিএসের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের তারিখ চূড়ান্ত হবে। বিশেষ বিসিএসে নিয়োগের বাধ্যবাধকতা থাকায় এরই মধ্যে বিধিমালাও সংশোধন করা হয়েছে। এদিকে আগামী সপ্তাহে ৪৩তম বিসিএসের বিষয়ে আলোচনা করবে পিএসসি।

পিএসসি সূত্র জানা গেছে, ৪২তম বিশেষ বিসিএসে দুই হাজার চিকিৎসকের নিয়োগের প্রক্রিয়া চূড়ান্ত করা হয়েছে। বিশেষ বিসিএসে নিয়োগে বাধ্যবাধকতা থাকায় বিধিমালা সংশোধন করতে হয়। সেই প্রক্রিয়া এরই মধ্যে শেষ করেছে। 

সংশোধিত নিয়ম অনুযায়ী, লিখিত পরীক্ষা (এমসিকিউ টাইপ) ২০০ নম্বরের, মৌখিক পরীক্ষা ১০০ নম্বরসহ মোট ৩০০ নম্বরের হবে।

এছাড়া লিখিত পরীক্ষায় সাতটি বিষয়ের জন্য সময় নির্ধারণ করা হয়েছে দুই ঘণ্টা। এর মধ্যে মেডিকেল সায়েন্সে ১০০ নম্বর, বাংলা, ইংরেজি, বাংলাদেশ বিষায়াবলি এবং আন্তর্জাতিক বিষয়াবলিতে ২০ নম্বর করে। মানসিক দক্ষতা ও গাণিতিক যুক্তিতে ১০ নম্বর করে থাকবে।

বিধিমালা সংশোধনের ধারাবাহিকতায় বুধবার (২৪ নভেম্বর) বিশেষ সভা আহ্বান করেছে পিএসসি, সেখানে ৪২তম বিসিএসের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের তারিখ চূড়ান্ত হবে।

আর আগামী সপ্তাহে ৪৩তম বিসিএসের বিষয়ে আলোচনা করবে পিএসসি। কারণ এরই মধ্যে ৪৩তম সাধারণ বিসিএসের চাহিদা পেয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। সোমবার (২৩ নভেম্বর) জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের পাঠানো চাহিদায় মোট ১ হাজার ৮১৪ পদে নিয়োগের কথা জানানো হয়েছে। এর মধ্যে শিক্ষায় সবচেয়ে বেশি ৮৪৩টি নিয়োগ দেওয়া হবে। এ ছাড়া প্রশাসনে ৩০০, পুলিশে ১০০, পররাষ্ট্রে ২৫, অডিটে ৩৫, ট্যাক্সে ১৯, কাস্টমসে ১৪, সমবায়ে ২০, ডেন্টাল সার্জন ৭৫ জন এবং অন্যান্য ক্যাডারে ৩৮৩টির পদ রয়েছে।

এদিকে ৪১তম বিসিএসে প্রিলিমিনারি পরীক্ষার অপেক্ষায় আছেন সাড়ে চার লাখের বেশি প্রার্থী। গত বছরের ২৭ নভেম্বর ৪১তম বিসিএসের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে পিএসসি।

এতে বিভিন্ন পদে ২ হাজার ১৩৫ কর্মকর্তা নিয়োগ দেওয়ার কথা রয়েছে। এ ছাড়া ৪০তম বিসিএসের লিখিত পরীক্ষা নিয়েছে পিএসসি। এখন মৌখিক পরীক্ষার দিন ঘোষণার অপেক্ষায় আছেন প্রার্থীরা।

২০১৮ সালের ১০ এপ্রিল চিকিৎসকদের জন্য ৩৯তম বিশেষ বিসিএসের বিজ্ঞপ্তি দেওয়া হয়। ওই বছরের তিন আগস্ট প্রিলিমিনারি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। এতে ৩৭ হাজার ৫৮৩ জন অংশ নেন। পরীক্ষায় পাস করেন ১৩ হাজার ৭৫০ জন চিকিৎসক। চূড়ান্ত মৌখিক পরীক্ষার পর আট হাজার ৩৬০ জন উত্তীর্ণ হন। সেখান থেকে ৪ হাজার ৭৯২ জন চিকিৎসককে নিয়োগের সুপারিশ করে পিএসসি।

গত বছরের নভেম্বর মাসে তাঁদের মধ্য থেকে চার হাজার ৪৪৩ জনকে স্বাস্থ্য ক্যাডারে নিয়োগ দিয়ে আদেশ জারি করে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়। বাকিরা অপেক্ষমাণ তালিকায় ছিলেন। ওই তালিকা থেকে এ বছরের ১২ ফেব্রুয়ারি ওই ৫৩৫ জন চিকিৎসককে মেডিকেল অফিসার হিসেবে পরিবার পরিকল্পনা কল্যাণ অধিদপ্তরে নিয়োগের সুপারিশ করা হয়েছিল।

এ ছাড়া আরও ২৯ জনকে অন্যান্য দপ্তরে নিয়োগের সুপারিশ করা হয়। সরকার নতুন করে দুই হাজার চিকিৎসক নিয়োগের সিদ্ধান্তের পরিপ্রেক্ষিতে পিএসসি নন-ক্যাডারে সুপারিশপ্রাপ্ত ৫৬৪ জনের নিয়োগ বাতিল করে দেয়।

এদিকে করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে এ বছর ৩৯তম বিসিএসের অপেক্ষমাণ তালিকা থেকে আরও ২ হাজার চিকিৎসক নিয়োগ দেয় সরকার।

মেডিভয়েসের জনপ্রিয় ভিডিও কন্টেন্টগুলো দেখতে সাবস্ক্রাইব করুন MedivoiceBD ইউটিউব চ্যানেল। আপনার মতামত/লেখা পাঠান [email protected] এ।
মেডিকেল শিক্ষার্থী-চিকিৎসকদের পরীক্ষা

সংক্রমিতদের মৌখিক পরীক্ষায় নমনীয় মেডিকেলগুলো

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
নিবন্ধনহীন ওষুধ লিখলে চিকিৎসকের শাস্তি
জাতীয় ওষুধনীতি-২০১৬’ এর খসড়ার নীতিগত অনুমোদন

নিবন্ধনহীন ওষুধ লিখলে চিকিৎসকের শাস্তি