১০ জুলাই, ২০২০ ০৪:৪৭ পিএম

কথাসাহিত্যিক ডা. বুলবুল সরওয়ারের স্বাস্থ্যে কিছুটা অগ্রগতি 

কথাসাহিত্যিক ডা. বুলবুল সরওয়ারের স্বাস্থ্যে কিছুটা অগ্রগতি 

মো. মনির উদ্দিন: ইশকেমিক স্ট্রোকে আক্রান্ত হয়ে প্রায় পৌনে দুই বছর ধরে স্বাভাবিক জীবন থেকে ছিটকেপড়া প্রথিতযশা কথাসাহিত্যিক ডা. বুলবুল সরওয়ারের শারীরিক অবস্থার কিছুটা অগ্রগতি হয়েছে। বাম হাতে চামচের সাহায্যে খাওয়া-দাওয়ার পাশাপাশি কারও সহযোগিতায় উঠে দাঁড়াতে পারছেন জনপ্রিয় এ চিকিৎসক। তবে আগের মতোই কথাবার্তা বন্ধ থাকলেও ইশারা-ইঙ্গিতে কোনো বিষয় বোঝাতে পারেন। চিকিৎসা অব্যাহত থাকলে আগামী কয়েক মাসের মধ্যে তিনি হাঁটাফেরা করতে পারবেন বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা।

ডা. বুলবুল সরওয়ারের স্বাস্থ্যের অগ্রগতির খবর জানিয়ে তাঁর সহধর্মিনী দিলরুবা সরওয়ার মেডিভয়েসকে বলেন, ‘বেশ কিছু দিন ধরেই মাখানো খাবার বাম হাতে চামচ দিয়ে খাচ্ছেন। স্যারের ডান সাইট অবশ। আগের মতোই কথা-বার্তা বলতে পারেন না, এ ক্ষেত্রে তাঁর মধ্যে চেষ্টাও পরিলক্ষিত হয় না। ভাঙা ভাঙা কিছু শব্দ উচ্চারণ করেন। আমরা কিছু বললে সাড়া দিতে পারেন। কাউকে ধরে দাঁড়াতে পারেন। এই অগ্রগতিটা এসেছে।’  

ফিজিওর পাশাপাশি চলছে আকুপাংচার থেরাপি 

দিলরুবা সরওয়ার বলেন, ‘তাঁর অবস্থা আগে যেমন ছিল এখনও তেমনই আছে। তবে চিকিৎসা পদ্ধতি একটু পরিবর্তন করে আকুপাংচার থেরাপি শুরু করেছি। জুনের শুরু থেকে এ চিকিৎসা চলছে। যেহেতু এ মুহূর্তে কোনো অপারেশনে যাওয়া যাবে না। সেজন্য এ পদ্ধতির চিকিৎসা শুরু করেছি। অনেক রোগীর ক্ষেত্রে এ পদ্ধতি কার্যকর ভূমিকা রেখেছে। আল্লাহর ওপর ভরসা করে চেষ্টা করে যাচ্ছি।’ 

তিনি আরও বলেন, প্রশিক্ষণপ্রাপ্তির পর গত ১৫ বছর ধরে এ চিকিৎসায় যুক্ত কোরিয়ার চিকিৎসক জিন্ড গত দুই বছর ধরে বাংলাদেশের একটি আকুপাংচার সেন্টারে কাজ করছেন। তিনি বাসায় এসে এ থেরাপি দিচ্ছেন। এজন্য মাসে খরচ হচ্ছে ত্রিশ হাজার টাকা। এটা চলবে তিন মাস। এর পর তিনি হাঁটতে পারবেন বলে জানিয়েছেন চিকিৎসক। এরই মধ্যে তাঁর পায়ে কিছু জোর পাচ্ছেন। 

একই সঙ্গে ফিজিও থেরাপি চলছে জানিয়ে ডা. বুলবুল সরওয়ারের সহধর্মিনী বলেন, ইউনাইটেড হাসপাতাল থেকে রবিউল ইসলাম নামে একজন চিকিৎসক বাসায় এসে এ থেরাপি দেন। ফিজিওথেরাপির জন্য প্রতি মাসে খরচ হচ্ছে ১৫ হাজার টাকা। 

দিলরুবা সরওয়ার বলেন, করোনার পরিস্থিতির কারণে কয়েক মাস ধরে সাভারের পক্ষাঘাতগ্রস্ত ব্যক্তিদের পুনর্বাসন কেন্দ্রে (সিআরপি) যাওয়া যাচ্ছে না। চিকিৎসকরা রোগীর সংস্পর্শে থাকার কারণে ওখানে না যাওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন। যেহেতু তাঁর (ডা. বুলবুল সরওয়ার) রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কিছুটা কম। স্ট্রোকের মাত্রাটাও বেশি। এতে অনেকটা ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে যায়। 

পাশে আছে ‘ডক্টরস ওয়েলফেয়ার ট্রাস্ট’

চিকিৎসকদের সংগঠন ‘ডক্টরস ওয়েলফেয়ার ট্রাস্ট’ ডা. বুলবুল সরওয়ারের পাশে আছেন জানিয়ে তাঁর সহধর্মিনী বলেন, ‘তারা নিয়মিত খোঁজ-খবর নিচ্ছে। আমরা তো হালই ছেড়ে দিয়েছিলাম। উনাদের সহযোগিতায় এ চিকিৎসা চালিয়ে যাওয়া সম্ভব হয়েছে। দুইটা চিকিৎসার খরচই বহন করছেন তারা। ফিজিওথেরাপির পাশাপাশি আকুপাংচারের ব্যয়টাও বহন করছেন তারা।’ 

করোনায় থমকে আছে বিদেশযাত্রা 

করোনার কারণে ভারতে যেতে পারছেন না উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘ভারতের কয়েকটি হাসপাতালে যোগাযোগ করে রেখেছিলাম। কিন্তু বর্তমান পরিস্থিতিতে এ সিদ্ধান্ত থেকে পিছিয়ে আসতে হয়েছে। কারণ যেসব প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে কথা বলেছিলাম, সেগুলো প্রায় বন্ধ।’

অসুস্থ হওয়ার ইতিহাস 

২০১৮ সালের ২৮ অক্টোবর ইশকেমিক স্ট্রোকে আক্রান্ত হন জনপ্রিয় এ চিকিৎসক। পরে তাঁকে ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব নিউরোসায়েন্স হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়। ওই বছরের ৩০ নভেম্বর ডা. বুলবুল সরওয়ারের টাইমলাইনে একটি পোস্টে বলা হয়, ডাক্তার বুলবুল সরওয়ার এর দীর্ঘমেয়াদি চিকিৎসার প্রয়োজন। কিন্তু তার জন্যে অনেক বড় অংকের টাকা প্রয়োজন।

একজন বুলবুল সরওয়ার 

১৯৬২ সালে গোপালগঞ্জ জেলায় জন্মগ্রহণ করেন ডা. বুলবুল সরওয়ার। গ্রামের স্কুল থেকে মেট্রিক ও ঢাকা কলেজ থেকে এইচএসসি পরীক্ষা কৃতিত্বের সঙ্গে উত্তীর্ণ হন। পরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ থেকে এমবিবিএস পাস করেন তিনি। পরবর্তীতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পোস্ট গ্র্যাজুয়েশন করেছেন। বাংলাদেশের একটি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে তিনি মিশরের কায়রো থেকে উচ্চশিক্ষা, পিএইচডি করেছেন। 

সাহিত্য চর্চা

ডা. বুলবুল সরওয়ার ৫৫টি বই লিখেছেন। তার মধ্যে ঝিলাম নদীর দেশ, ইস্তাম্বুল, রাজকন্যা কংকাবতী, মীর ত্বকী মীর, মহানগরী, রুবাইয়াতে বুলবুল, পত্র নয় প্রেম উল্লেখযোগ্য। এছাড়াও তিনি একজন প্রতিষ্ঠিত অনুবাদক ও লেখক।

করোনা ভাইরাস থেকে সুরক্ষিত থাকতে গুরুত্বপূর্ণ নিয়ম গুলো মেনে চলুন। সর্দি কাশি জ্বর হলে হাসপাতালে না গিয়ে স্বাস্থ্য সেবা দানকারী হটলাইন গুলোতে ফোন করুন। আইইডিসিআর হটলাইন- 10655, email: [email protected]
  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
নিবন্ধনহীন ওষুধ লিখলে চিকিৎসকের শাস্তি
জাতীয় ওষুধনীতি-২০১৬’ এর খসড়ার নীতিগত অনুমোদন

নিবন্ধনহীন ওষুধ লিখলে চিকিৎসকের শাস্তি