০৮ জুলাই, ২০২০ ০৪:১৭ পিএম

করোনায় ম্যালেরিয়ার ওষুধ খেয়ে বিতর্কে ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট

করোনায় ম্যালেরিয়ার ওষুধ খেয়ে বিতর্কে ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট
ছবি: সংগৃহীত

মেডিভয়েস ডেস্ক: বিতর্ক যেনো পিছুই ছাড়ছে না ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট জাইয়া বলসোনারোর। এবার প্রাণঘাতী করোনাভাইরানেস আক্রান্ত হয়েও ম্যালেরিয়ার ওষুধ হাইড্রক্সিক্লোরোকুইন খেয়ে নতুন বির্তকে জড়িয়েছেন তিনি।

আজ মঙ্গলবার (৮ জুলাই) জার্মান ভিত্তিক সংবাদ মাধ্যম ডয়েচ ভেলের বাংলা শাখায় এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়। 

প্রতিবেদনে বলা হয়, করোনা সংক্রমণের শুরু থেকেই একের পর এক অসংলগ্ন মন্তব্য ও করোনা প্রতিরোধে কার্যকর কোন ব্যবস্থা গ্রহণ না করায় সামালোচনার মুখে পরেন তিনি। এবার করোনায় আক্রান্ত হয়ে ম্যালেরিয়ার ওষুধ খাওয়া নিয়ে নতুন বির্তকে বলসোনারো।

ব্রাজিলে করোনা সংক্রমণের শুরুতেই তিনি বলেছিলেন, ব্রাজিলে অন্তত ৭০ ভাগ মানুষের করোনা হবেই। কোনও ভাবেই তা আটকানো যাবে না। এমনকি করোনা প্রতিরোধে কিছু প্রদেশের স্থানীয় প্রশাসন যে ভাবে লকডাউনের কথা বলছে, তাতে অর্থনীতি ধসে পড়বে ও মানুষ আরও বেশি বিপদে পরবে বলে মন্তব্য করেন তিনি। গোড়া থেকেই করোনাভাইরাসকে সাধারণ ফ্লুয়ের সঙ্গে তুলনা করেছেন তিনি। এমনকি তিনি খেলোয়াড় তাই তার করোনা হবেনা বলেও মন্তব্য করেন বলসোনারো।

সম্প্রতি নিজে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন জানিয়ে প্রেস ব্রিফিংয়ে তিনি বলেন, ‘আমি সম্পূর্ণ সুস্থ। ইচ্ছে করছে সামনে গিয়ে একটু হাঁটতে। কিন্তু চিকিৎসকরা নিষেধ করেছেন, তাই হাঁটতে পারছি না।’ এমনকি ম্যালেরিয়ার চিকিৎসায় ব্যবহৃত ওষুধ হাইড্রক্সিক্লোরোকুইন খেতে শুরু করে দিয়েছেন বলেও জানান তিনি। 

যদিও করোনার চিকিৎসায় আদৌ হাইড্রক্সিক্লোরোকুইন কাজ করে কি না, তা নিয়ে চিকিৎসকদের মধ্যে তীব্র মতভেদ আছে। বিতর্ক আছে তাঁর দেশের স্বাস্থ্য মহলেও। অনেক দেশে ওষুধটি বাতিল করা হয়েছে। বলা হচ্ছে, এই ওষুধের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া ভয়াবহ।

এদিকে করোনা ধরা পড়ার কয়েক দিন আগে পর্যন্তও সমর্থকদের সঙ্গে দেখা করেছেন প্রেসিডেন্ট। তাঁদের সঙ্গে হাত মিলিয়েছেন। মাস্ক ছাড়া ঘুরে বেড়িয়েছেন বিভিন্ন অনুষ্ঠানে। এমনকি তাঁর বাসস্থানের বাইরে প্রতিবাদীদের মঞ্চেও গিয়েছেন তিনি। সামাজিক দূরত্ব না মেনে কথা বলেছেন তাঁদের সঙ্গে ।

দেশটির বিশেষজ্ঞদের আশঙ্কা, প্রেসিডেন্টের মাধ্যমে তাঁর সহকর্মী এবং সমর্থকদের মধ্যেও ছড়িয়ে পড়তে পারে করোনা। সমস্যা হলো, করোনা ধরা পড়ার পরেও আইসোলেশনের ন্যূনতম নিয়ম মানছেন না বলসোনারো। যদিও প্রেসিডেন্টের ঘনিষ্ঠ ব্যক্তিরা দাবি করছেন, সোমবার রাত থেকেই জ্বরে ভুগছেন বলসোনারো। এরপর থেকে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে সকলের সঙ্গে কথা বলছেন তিনি। কাউকে কাছে আসতে দিচ্ছেন না।

প্রসঙ্গত, গত বছরের শেষে চীনের উহান থেকে ছড়িয়ে পরা করোনাভাইরাস প্রাণঘাতী মহামারী হিসেবে সারাবিশ্বে ছড়িয়ে পরেছে। এর ব্যাতিক্রম নয় লাতিন আমেরিকার দেশ ব্রাজিল। দেশটিতে এখন পর্যন্ত মোট করোনায় আক্রান্ত ১৬ লাখ ৬৮ হাজার ৪৮৯ জন। এর মধ্যে মৃত্যুবরণ করেছেন ৬৬ হাজার ৭৪১ জন। তবে ১১ লাখ ৭ হাজার ১২ জন সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে গেছেন।  

করোনা ভাইরাস থেকে সুরক্ষিত থাকতে গুরুত্বপূর্ণ নিয়ম গুলো মেনে চলুন। সর্দি কাশি জ্বর হলে হাসপাতালে না গিয়ে স্বাস্থ্য সেবা দানকারী হটলাইন গুলোতে ফোন করুন। আইইডিসিআর হটলাইন- 10655, email: [email protected]
  ঘটনা প্রবাহ : করোনাভাইরাস
  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
করোনা ছড়ায় উপসর্গহীন ব্যক্তিও
একদিনেই অবস্থান বদল বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার

করোনা ছড়ায় উপসর্গহীন ব্যক্তিও