১১ জুন, ২০২৪ ০৪:০৭ পিএম

ট্রান্স ফ্যাটে বাড়ছে মৃত্যুঝুঁকি, নিরাপদ খাদ্য নিশ্চিতের দাবি বিশেষজ্ঞদের

ট্রান্স ফ্যাটে বাড়ছে মৃত্যুঝুঁকি, নিরাপদ খাদ্য নিশ্চিতের দাবি বিশেষজ্ঞদের
মঙ্গলবার বিশ্ব নিরাপদ খাদ্য দিবস উপলক্ষে এই ওয়েবিনার আয়োজিত হয়। ছবি: সংগৃহীত

মেডিভয়েস রিপোর্ট: খাদ্যদ্রব্যে মাত্রাতিরিক্ত ট্রান্স ফ্যাটের উপস্থিতি হৃদরোগসহ নানা অসংক্রামক রোগ বাড়িয়ে তুলছে, যার কারণে বৃদ্ধি পাচ্ছে মৃত্যুঝুঁকিও। জনস্বাস্থ্য সুরক্ষায় তাই ট্রান্স ফ্যাটের মাত্রা নিয়ন্ত্রণের মাধ্যমে নিরাপদ খাদ্য নিশ্চিত করতে হবে।

বিশ্ব নিরাপদ খাদ্য দিবস উপলক্ষে আজ মঙ্গলবার (১১ জুন) আয়োজিত ‘ট্রান্স ফ্যাটি এসিড নিয়ন্ত্রণ প্রবিধানমালা বাস্তবায়নের অগ্রগতি ও করণীয়’ শীর্ষক ওয়েবিনারে বিশেষজ্ঞরা এমন বক্তব্য তুলে ধরেন। গ্লোবাল হেলথ অ্যাডভোকেসি ইনকিউবেটরের (জিএইচএআই) সহায়তায় গবেষণা ও অ্যাডভোকেসি প্রতিষ্ঠান প্রজ্ঞা (প্রগতির জন্য জ্ঞান) এই ওয়েবিনারের আয়োজন করে।

এ সময় বক্তারা ট্রান্স ফ্যাট-ঘটিত হৃদরোগের ঝুঁকি কমাতে ‘খাদ্যদ্রব্যে ট্রান্স ফ্যাটি এসিড নিয়ন্ত্রণ প্রবিধানমালা, ২০২১’ এর পূর্ণাঙ্গ বাস্তবায়নের ওপর গুরুত্ব আরোপ করেন।

ওয়েবিনারে বাংলাদেশ নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের সদস্য (জনস্বাস্থ্য ও পুষ্টি) ড. মোহাম্মদ মোস্তফা জানান, ‘ট্রান্স ফ্যাট প্রবিধানমালা বাস্তবায়নের বিভিন্ন ধাপ রয়েছে। আমরা ধাপে ধাপে এগোচ্ছি। আশা করি, দ্রুতই প্রবিধানমালার পূর্ণাঙ্গ বাস্তবায়ন শুরু করতে পারবো।’

বাংলাদেশ স্ট্যান্ডার্ডস অ্যান্ড টেস্টিং ইনস্টিটিউশনের (বিএসটিআই) উপ-পরিচালক (কৃষি ও খাদ্য-মান উইং) এনামুল হক বলেন, ‘ট্রান্স ফ্যাট নিয়ন্ত্রণ প্রবিধানমালা বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে আমাদের প্রযুক্তিগত কিছু ঘাটতি রয়েছে। আমরা এগুলো কাটিয়ে ওঠার চেষ্টা করছি।’

উল্লেখ্য, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার গ্লোবাল ট্রান্স ফ্যাট এলিমিনেশন প্রতিবেদন-২০২২ অনুযায়ী, পার্শ্ববর্তী দেশ ভারতসহ বিশ্বের ৪৩টি দেশ এরই মধ্যে খাদ্যে ট্রান্স ফ্যাটের মাত্রা নিয়ন্ত্রণে সর্বোত্তম নীতি বাস্তবায়ন করলেও বাংলাদেশ এখনো পিছিয়ে রয়েছে।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে আরও উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের প্রতিষ্ঠাকালীন চেয়ারম্যান ও বাংলাদেশ ফুড সেফটি ফাউন্ডেশনের সেক্রেটারি জেনারেল অ্যান্ড সিইও মুশতাক হাসান মুহ. ইফতিখার, গ্লোবাল হেলথ অ্যাডভোকেসি ইনকিউবেটরের বাংলাদেশ কান্ট্রি লিড মুহাম্মাদ রূহুল কুদ্দুস, ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশন হসপিটাল অ্যান্ড রিসার্চ ইনস্টিটিউটের ইপিডেমিওলজি অ্যান্ড রিসার্চ বিভাগের বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক ডা. সোহেল রেজা চৌধুরী, বারডেম জেনারেল হাসপাতালের খাদ্য ও পুষ্টি বিভাগের বিভাগীয় প্রধান শামসুন্নাহার নাহিদ, কনজুমারস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (ক্যাব) ভাইস প্রেসিডেন্ট এস এম নাজের হোসাইন এবং প্রজ্ঞার নির্বাহী পরিচালক জনাব এবিএম জুবায়ের প্রমুখ।

প্রজ্ঞার কো-অর্ডিনেটর সাদিয়া গালিবা প্রভার সঞ্চালনায় ওয়েবিনারে অংশ নেন দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে নানা শ্রেণি-পেশার মানুষ।

এনএআর/এএনএম

মেডিভয়েসের জনপ্রিয় ভিডিও কন্টেন্টগুলো দেখতে সাবস্ক্রাইব করুন MedivoiceBD ইউটিউব চ্যানেল। আপনার মতামত/লেখা পাঠান [email protected] এ।
  ঘটনা প্রবাহ : অ্যাডভোকেসি ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান প্রজ্ঞা
  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
এক দিনে চিরবিদায় পাঁচ বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক
করোনা ও বার্ধক্যজনিত অসুস্থতা

এক দিনে চিরবিদায় পাঁচ বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক