১০ মার্চ, ২০২১ ০৯:০৫ পিএম

আট মাস ভাতা পাচ্ছেন না এফসিপিএস ট্রেইনিরা

আট মাস ভাতা পাচ্ছেন না এফসিপিএস ট্রেইনিরা
ছবি: মেডিভয়েস।

মো. মনির উদ্দিনগত আট মাস ধরে ভাতা পাচ্ছেন না বাংলাদেশ কলেজ অব ফিজিশিয়ানস্ এন্ড সার্জন্সের (বিসিপিএস) এফসিপিএস প্রশিক্ষণরত চিকিৎসকরা। নিয়ম অনুযায়ী অনারারী এ চিকিৎসকদের অন্য কোথাও চাকরি করার বিধান না থাকায় সীমাহীন কষ্টে জীবনযাপন করছেন তারা।

এফসিপিএস ট্রেইনিদের অভিযোগ, কোর্সের অংশ না হওয়া সত্ত্বেও জীবনের ঝুঁকি নিয়ে তাদের অনেকেই করোনা ইউনিটে বাধ্যতামূলক দায়িত্ব পালন করেছেন। এতে একাধিকবার করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন কেউ কেউ। কখনো হাসপাতালেও ভর্তি হয়েছেন। এ জন্য তাদেরকে কোনো প্রণোদনা দেওয়া হয়নি।

নাম প্রকাশের অনিচ্ছুক একজন ট্রেইনি মেডিভয়েসকে বলেন, ‘জুলাই থেকে ডিসেম্বর পর্যন্ত যে ভাতা দেওয়ার কথা ছিল, এখন মার্চ মাস চলছে। অথচ আজও তা পাইনি। ট্রেইনিরা গেছেন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে সরাসরি কথা বলতে। কেউ এ ব্যাপারে মুখ খুলতে চাচ্ছেন না। একজন আরেকজনকে দেখিয়ে দিচ্ছেন।’

করোনার সময় জীবনের ঝুঁকি নিয়ে চিকিৎসা দিয়েছেন জানিয়ে তারা বলেন, ‘ঢাকা মেডিকেল কলেজসহ বিভিন্ন মেডিকেলে করোনা ইউনিটে বাধ্যতামূলকভাবে ডিউটি করানো হয়েছে। অথচ আমাদের সিলেবাসে করোনার কোনো বিষয়ই নেই। টেইনিরা কষ্ট ট্রেইনিং করেছে। প্রণোদনার কোনো প্রত্যাশাই মধ্যে নেই। দীর্ঘ দিন ধরে কষ্ট করে ঘাম ঝরানো টাকাটাও পাচ্ছি না আমরা।’

ভাতা না পাওয়ায় স্ত্রী-সন্তান নিয়ে কষ্টে জীবনযাপন করছেন জানিয়ে তারা বলেন, ‘এই আট মাস তারা কিভাবে চলছে? তারা কি করছে? একজন মানুষের যদি ৮/৯ মাস বেতন না পান, তাহলে তারা কিভাবে চলবেন? আমাদের অনেকের পরিবার আছে, বাচ্চা আছে। এই কোর্স যারা করছেন, তাদের কেউ অবিবাহিত নেই, ৮০ ভাগেরই পরিবার আছে।’

ডিউটি করতে গিয়ে দুইবার করোনায় আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন জানিয়ে একজন ট্রেইনি বলেন, ‘এজন্য কোনো প্রণোদনা দাবি করিনি। আমাদের ন্যায্য টাকাই দেওয়া হোক।’

জানতে চাইলে বাংলাদেশ কলেজ অব ফিজিশিয়ানস অ্যান্ড সার্জনসের (বিসিপিএস) পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক অধ্যাপক ডা. মুজিবুর রহমান বলেন, ‘ছয় মাস পর পর দেওয়া হবে। নিয়মটি এমনই। জানুয়ারি মাসে আমাদের পরীক্ষা গেছে। এখন হয় তো এটা নিয়ে কাজ হবে।’ 

ট্রেইনিরা কবে নাগাদ ভাতা পেতে পারেন জানতে চাইলে সুনির্দিষ্ট কোনো সময় জানাতে অপারগতা প্রকাশ করেন তিনি।

ভাতার বিষয়ে জানতে বিসিপিএস’র সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ডা. আবুল বাশার মোহাম্মদ খুরশিদ আলমকে একাধিকবার চেষ্টা করেও ফোনে পাওয়া যায়নি।

এছাড়াও বিসিপিএসের একাধিক কাউন্সিলরের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলেও এ ব্যাপারে মুখ খুলতে রাজি হননি তারা।

প্রসঙ্গত, ২০১৯ সালের ১২ অক্টোবর এফসিপিএস ট্রেইনিদের ভাতা প্রদানের ঘোষণা দেয় বাংলাদেশ কলেজ অব ফিজিশিয়ানস্ এন্ড সার্জন্স (বিসিপিএস)।

বিসিপিএসের তৎকালীন অনারারী সচিব অধ্যাপক আবুল বাসার মোহাম্মদ খুরশীদ আলম স্বাক্ষরিত এ সংক্রান্ত এক বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, এফসিপিএস ১ম পর্ব পাস করা অবৈতনিক প্রশিক্ষণার্থীদের মধ্যে যারা বিসিপিএস কর্তৃক স্বীকৃত সরকারি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে প্রশিক্ষণরত, তাদেরকে শর্ত সাপেক্ষে প্রতিমাসে ২০ হাজার টাকা করে প্রশিক্ষণ ভাতা প্রদান করা হবে।

এর পর থেকে প্রতি ছয় মাস অন্তর দুই দফা ভাতা পান ট্রেইনিরা। তবে তৃতীয় দফায় এসে তা নয় মাসে গড়ালো।

নীতিমালায় যা আছে

১. এফসিপিএস ১ম পর্ব পাস করা বিসিপিএস কর্তৃক স্বীকৃত বিভিন্ন মেডিকেল প্রতিষ্ঠানে প্রশিক্ষণরত অবৈতনিক প্রশিক্ষণার্থীদেরকে এ ভাতা প্রদান করা হবে।

২. প্রতি মাসে প্রশিক্ষণার্থীকে ২০ হাজার টাকা করে প্রশিক্ষণ ভাতা প্রদান করা হবে।

৩. প্রশিক্ষণার্থীদেরকে ফেলোশিপ প্রোগ্রামের ৫ বছর/পুরো প্রশিক্ষণকাল এ ভাতা প্রদান করা হবে। প্রশিক্ষণের কোন স্লট ছয় মাসের কম হবে না।

৪. জুলাই ২০১৯ সেশনে এফসিপিএস ১ম পর্ব পাস করা প্রশিক্ষণার্থীদের থেকে এ ভাতা প্রদান শুরু করা হবে। তবে সরকার থেকে প্রয়োজনীয় অর্থ বরাদ্দ পাওয়া গেলে অতীতে এফসিপিএস ১ম পর্ব পাস করা প্রশিক্ষণার্থীদের ক্ষেত্রেও এ ভাতা প্রদানের বিষয়টি বিবেচনা করা হবে।

৫. বিসিপিএস কর্তৃক স্বীকৃত কোন প্রতিষ্ঠানে রোড ম্যাপ অনুযায়ী অবৈতনিক প্রশিক্ষণার্থীদেরকে পদায়ন করা হবে। তবে সে ক্ষেত্রে প্রশিক্ষণার্থীকে প্রতিষ্ঠান নির্বাচন করার সুযোগ দেওয়া হবে।

৬. এ ভাতা গ্রহণকারীগণ অন্য কোথাও কোন প্রকার চাকরি/ডিউটি/প্র্যাকটিস করতে পারবে না। যদি কখনও তা প্রমাণ হয়, তাহলে সমুদয় টাকা ফেরৎসহ লব্ধ প্রশিক্ষণ বাতিল করা হবে।

৭. প্রতি স্লট যথাযথ প্রশিক্ষণ গ্রহণ করার নিশ্চয়তা প্রমাণপত্র ITMC/প্রশিক্ষক/হাসপাতাল পরিচালক/সুপার/সিভিল সার্জনের কাছ থেকে আনতে হবে। সন্তোষজনকভাবে প্রশিক্ষণ সমাপ্ত সাপেক্ষে প্রশিক্ষণ ভাতা প্রদান করা হবে।

৮. প্রতি মাসে বিসিপিএসের কোষাধ্যক্ষ ও অনারারী সচিবের স্বাক্ষরে চেক/প্রশিক্ষণার্থীর ব্যক্তিগত অনলাইন ব্যাংক হিসাবের মাধ্যমে প্রশিক্ষণ ভাতা প্রদান করা হবে।

মেডিভয়েসের জনপ্রিয় ভিডিও কন্টেন্টগুলো দেখতে সাবস্ক্রাইব করুন MedivoiceBD ইউটিউব চ্যানেল। আপনার মতামত/লেখা পাঠান [email protected] এ।
  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
নিবন্ধনহীন ওষুধ লিখলে চিকিৎসকের শাস্তি
জাতীয় ওষুধনীতি-২০১৬’ এর খসড়ার নীতিগত অনুমোদন

নিবন্ধনহীন ওষুধ লিখলে চিকিৎসকের শাস্তি