৩০ অক্টোবর, ২০২০ ০৩:৫৮ পিএম

বরিশাল মেডিকেলের ইন্টার্নদের কর্মবিরতি স্থগিত

বরিশাল মেডিকেলের ইন্টার্নদের কর্মবিরতি স্থগিত

মেডিভয়েস রিপোর্ট: বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ (শেবাচিম) হাসপাতালের ইন্টার্ন চিকিৎসকের বিরুদ্ধে রেজিস্ট্রারের মামলা ও হয়রানির অভিযোগে ইন্টার্নদের অনির্দিষ্টকালের কর্মবিরতি স্থগিত। কর্তৃপক্ষের আশ্বাসের পরিপ্রেক্ষিতে তাঁরা কর্মস্থলে যোগদান করেছেন।

আজ শুক্রবার (৩০ অক্টোবর) তাঁরা তাঁদের কর্মবিরতি স্থগিত করে। তবে দাবি মানা না হলে আরও কঠোর কর্মসূচিতে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছে ইন্টার্ন চিকিৎসকরা।

সূত্রে জানা যায়, শেবাচিম হাসপাতালের মেডিসিন বিভাগের সহকারী রেজিস্ট্রার মাসুদ খানকে মারধরের করার অভিযোগ ওঠে ইন্টার্ন চিকিৎসক সজল পান্ডে ও তরিকুল ইসলামসহ কয়েকজনের বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় রেজিস্ট্রার বাদি হয়ে তাদের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দায়ের করে। এ ঘটনায় ইন্টার্ন চিকিৎসকদের নামে হামলা-মামলা আর নানাভাবে হয়রানি ও ভয়-ভীতি দেখানোর অভিযোগ তুলে গভীর রাত থেকে কর্মবিরতি পালন করেছে ইন্টার্ন চিকিৎসকরা। এ সময় হাসপাতালের জরুরি বিভাগে তালা ঝুলিয়ে দেয় ইন্টার্ন চিকিৎসকরা। পরে কতৃপক্ষের আশ্বাসে তাঁরা তাদের কর্মসূচি স্থগিত করেছে।

জানতে চাইলে শেবাচিমের অধ্যক্ষ ডা. এস এম সারোয়ার মেডিভয়েসকে বলেন, ‘হাসপাতালের রেজিস্ট্রারের সাথে তাঁদের কিছু ঝামেলা হয়েছে। রেজিস্ট্রারের দাবি ইন্টার্ন চিকিৎসকরা তাঁকে মারধর করেছে। যদিও ইন্টার্নরা সে অভিযোগ অস্বীকার করেছে। এ ঘটনায় রেজিস্ট্রার থানায় মামলা করায় ইন্টার্নরা প্রতিবাদে হাসপাতালের জরুরি বিভাগ তালা দেয় এবং কর্মবিরতিতে যায়। তবে আমাদের সাথে আলোচনার পর তারা তাঁদের কর্মসূচি স্থগিত করেছে।’

হাসপাতালের জরুরি বিভাগের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘জরুরি বিভাগ রাতেই খুলে দেওয়া হয়েছে। আমি এবং হাসপাতাল পরিচালক রাতেই তাদের সঙ্গে কথা বলেছি। এরপর থেকে জরুরি বিভাগ চালু রয়েছে।’ আগামীকাল বিবেদমান দুই পক্ষের সাথেই তাঁরা পুনরায় আলোচনায় বসবেন বলে জানিয়েছেন অধ্যক্ষ ডা. এস এম সারোয়ার।

এর আগে ডাগায়নস্টিক সেন্টারের কমিশন  নিয়ে গত ২০ অক্টোবর হাসপাতালের মেডিসিন বিভাগের ইউনিট-৩-এর সহকারী রেজিস্ট্রার ডা. মাসুদ খানকে লাঞ্ছিত করার অভিযোগ ওঠে ইন্টার্ন চিকিৎসকদের বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় ২১ অক্টোবর কয়েকজন ইন্টার্ন চিকিৎসকের নাম উল্লেখ করে হাসপাতালের পরিচালকের কাছে লিখিত অভিযোগ করেন ডা. মাসুদ। পাশাপাশি তিনি কোতোয়ালি মডেল থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। ২২ অক্টোবর ইন্টার্ন চিকিৎসকরা ডা. মাসুদের বিরুদ্ধে ডায়াগনস্টিকের কমিশন আদায়, নারী সহকর্মীদের সঙ্গে অশালীন আচরণ, সিনিয়দের সঙ্গে ঔদ্ধত্যপূর্ণ আচরণ এবং ইন্টার্নদের ভাতা আটকে রাখার অভিযোগ জানিয়ে পরিচালকের কাছে স্মারকলিপি দেন।

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
নিবন্ধনহীন ওষুধ লিখলে চিকিৎসকের শাস্তি
জাতীয় ওষুধনীতি-২০১৬’ এর খসড়ার নীতিগত অনুমোদন

নিবন্ধনহীন ওষুধ লিখলে চিকিৎসকের শাস্তি