০১ জুলাই, ২০২০ ০৩:৫৯ পিএম

ট্রান্সকম গ্রপের চেয়ারম্যান লতিফুর রহমান আর নেই

ট্রান্সকম গ্রপের চেয়ারম্যান লতিফুর রহমান আর নেই

মেডিভয়েস রিপোর্ট: বাংলাদেশের অন্যতম বড় ব্যবসায়ী গোষ্ঠী ট্রান্সকম গ্রুপের চেয়ারম্যান লতিফুর রহমান মারা গেছেন। ইন্নালিল্লাহি ওয়াইন্না ইলাইহি রাজিউন। তিনি প্রায় দুই বছর অসুস্থ অবস্থার নিজ গ্রামের বাড়ি কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে অবস্থান করছিলেন।

আজ বুধবার (১ জুলাই) বেলা সাড়ে ১১টায় কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে বার্ধক্যজনিত কারণে মারা যান। মৃত্যু কালে তার বয়স হয়েছিল ৭৫ বছর।

ট্রান্সকম গ্রুপের পরিচালক মো. ফখরুজ্জামান গণমাধ্যমকে বলেন, করোনাভাইরাস মহামারী শুরুর পর থেকেই গ্রামের বাড়িতে ছিলেন তিনি। তবে তিনি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ছিলেন না। বার্ধক্যজনিত কারণে তার মৃত্যু হয়েছে। এশার নামাজের পর গুলশানের আজাদ মসজিদে জানাজার নামাজের পর লতিফুর রহমানকে বনানী কবরস্থানে দাফন করা হবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

তিনি এমন এক দিনে মারা গেলেন, যেদিন তার নাতি ফারাজ আইয়াজ হোসেনের মৃত্যুবার্ষিকী। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের এক বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ফারাজ হোসেন ২০১৬ সালের পহেলা জুলাই তারিখে ঢাকার হোলি আর্টিজান রেস্তোরায় জঙ্গি হামলার ঘটনায় নিহত হন।

লতিফুর রহমানে জন্ম ১৯৪৫ সালের ২৮ আগস্ট ভারতের জলপাইগুড়িতে। তিনি শিক্ষা জীবন শুরু করেন ঢাকার সেন্ট ফ্রান্সিস স্কুলে। এরপর ঢাকার হলিক্রস স্কুল এবং পরবর্তীতে ১৯৫৬ যান শিলংয়ে সেন্ট এডমন্ডস স্কুল। এরপর কলকাতার সেন্ট জেভিয়ার্স কলেজে পড়াশুনা করেন।

১৯৬৫ সালের ভারত-পাকিস্তান যুদ্ধ, হিন্দু-মুসলমান দাঙ্গার কারণে ঢাকায় ফিরে আসেন লতিফুর রহমান। এসে পাটের ব্যবসা শুরু করেন। তার বাবা তখন চাঁদপুরে গড়ে তুলেছেন ডব্লিউ রহমান জুট মিল। ১৯৬৩ সালে কাজ শুরু হলেও উৎপাদন শুরু হলো ১৯৬৬ সালে। সেখানে ১৯৬৬ সালে ট্রেইনি হিসেবে কাজ শুরু করেন তিনি। দেড় বছর কাজ শেখার পর একজন নির্বাহী হিসেবে যোগ দেন। একই পদে কাজ ১৯৭১ সাল পর্যন্ত। 

যুদ্ধ পরবর্তী সময়ে লতিফুর রহমান সবকিছু নতুন করে শুরু করেছিলেন, তখন তার সঙ্গে কাজ করতেন মাত্র পাঁচজন। শুরুতে ৫০ লাখ টাকা ব্যাংকঋণ নিয়ে নতুন করে ব্যবসায় শুরু করেছিলেন তিনি। তার প্রতিষ্ঠিত ট্রান্সকম গ্রুপের শুরু হয়েছিল চা চাষের মাধ্যমে, যা এখন বাংলাদেশের অন্যতম বড় করপোরেট প্রতিষ্ঠান, যার রয়েছে ১৬টি কোম্পানি। ১০ হাজার মানুষের কর্মসংস্থান করেছে এ গ্রুপ। এখন এই গ্রুপের বার্ষিক লেনদেনের পরিমাণ সাড়ে তিন হাজার কোটি টাকার বেশি। 

লতিফুর রহমান দেশের অন্যতম শীর্ষ সংবাদ মাধ্যম প্রথম আলো ও ডেইলি স্টার পত্রিকার অন্যতম মালিক। তিনি আন্তর্জাতিক ফুড চেইন পিৎজা হাট ও কেএফসি, পেপসি এবং ফিলিপসের বাংলাদেশে ফ্রাঞ্চাইজির মালিক ছিলেন তিনি। এছাড়াও তিনি নেস্লে বাংলাদেশ, হোলসিম বাংলাদেশ এবং ন্যাশনাল হাউজিং ফাইন্যান্স ও ইনভেস্টমেন্টের চেয়ারম্যান। তিনি লিন্ডে বাংলাদেশ এবং ব্র্যাকের গভর্নিং বোর্ডের পরিচালক এবং আইসিসি বাংলাদেশের সহ-সভাপতি ছিলেন।

২০১২ সালে মর্যদাপূর্ণ বিজনেস ফর পিস অ্যাওয়ার্ড পেয়েছিলেন এই সফল ব্যবসায়ী। মৃত্যুর সময়ে তিনি স্ত্রী, এক ছেলে ও দুই মেয়ে, আত্বীয়-স্বজনসহ অসংখ্য শুভাকাঙ্ক্ষী রেখে গেছেন। 

তার মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ, সাবেক বাণিজ্যমন্ত্রী ও বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী। লতিফুর রহমানের মৃত্যুতে মেডিভয়েস পরিবার শোকাহত।

মেডিভয়েস এর জনপ্রিয় ভিডিও কন্টেন্ট গুলো দেখতে সাবস্ক্রাইব করুন MedivoiceBD ইউটিউব চ্যানেল। আপনার মতামত/লেখা পাঠান [email protected] এ।
সিন্ডিকেট মিটিংয়ে প্রস্তাব গৃহীত

ভাতা পাবেন ডিপ্লোমা-এমফিল কোর্সের চিকিৎসকরা

প্রস্তুতির নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

অক্টোবর-নভেম্বরে ২য় ধাপে করোনা সংক্রমণের শঙ্কা

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
নিবন্ধনহীন ওষুধ লিখলে চিকিৎসকের শাস্তি
জাতীয় ওষুধনীতি-২০১৬’ এর খসড়ার নীতিগত অনুমোদন

নিবন্ধনহীন ওষুধ লিখলে চিকিৎসকের শাস্তি