ওয়াহিদ হৃদয়

ওয়াহিদ হৃদয়

শিক্ষার্থী,
প্রেসিডেন্ট আবদুল হামিদ মেডিকেল কলেজ।


২৬ এপ্রিল, ২০২১ ০১:২৯ পিএম

একজন মানবিক চিকিৎসকের অন্তিম যাত্রা

একজন মানবিক চিকিৎসকের অন্তিম যাত্রা
অধ্যাপক ডা. হুমায়ুন কবীর মুকুল। ছবি: সংগৃহীত

আমার আম্মার কোমড়ের ব্যাথার করণে নিয়মিত রোগী ছিলেন অধ্যাপক ডা. হুমায়ুন কবীর মুকুল স্যারের। আমি যতবারই আম্মাকে নিয়ে গিয়েছি,পরিচয় না দিয়েও ভিজিট দেবার চেষ্টা করেছি কিন্তু ভুলেও একবারের জন্যেও দেওয়া যায়নি।

এম-১৪ ব্যাচের ছাত্র ছিলেন স্যার। তারপর ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজের অর্থোপেডিক্স বিভাগের বিভাগীয় দ্বায়িত্ব পালন শেষে অবসর নিয়ে যোগদান করেন আমাদের প্রেসিডেন্ট আবদুল হামিদ মেডিকেল কলেজে বিভাগীয় প্রধান হিসেবে।

রোগী ডিল করার সময় স্যারের যে বিষয়টা সবচেয়ে ভালো লাগার ছিল সেটা হলো স্যার পারতপক্ষে রোগীকে সার্জিকেল কিংবা থেরাপিক ট্রিটমেন্ট দিতে রাজি ছিলেন না, স্যার চেষ্টা করতেন ফিজিক্যাল এক্সারসাইজের মাধ্যমে যেন রোগী সুস্থ হয়ে যায়। আর পড়ানোর ব্যাপারে স্যারের পড়াশোনা ছিল শর্টকাটে জিস্ট বা সারসংক্ষেপ। গ্রন্থগত বিদ্যার চাইতে স্যার ক্লিনিক্যালি প্র‍্যাক্টিকেল অধিক পছন্দ করতেন।

সদালাপী, সুন্দর উপস্থাপনা, সদা প্রাণবন্ত, উচ্ছ্বল আমাদের স্যার অনেকদিন যাবত করোনায় আক্রান্ত হয়ে ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) ভর্তি ছিলেন। স্যার এ দুনিয়ার জীবন ছেড়ে গতকাল ভোর ৫টায় সিএমএইচ হাসপাতালে মহান রবের ডাকে পরপারে পাড়ি জমিয়েছেন, ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন।

এই ফ্রন্টলাইন ফাইটারকে আল্লাহ উনার সকল ভুলত্রুটি ক্ষমা করে জান্নাতুল ফিরদাউস দান করুন।

আমাদের যেসকল ফ্রন্টলাইন ফাইটার, আত্মীয়-স্বজন কোভিড -১৯ আক্রান্ত উনাদের সুস্থতা দানসহ পৃথিবীর সকল জায়গা থেকে আল্লাহ এ মহামারী উঠিয়ে নিন।

শেষবার আম্মাকে দেখানোর সময় স্যারকে কিছু বই দিয়ে এসেছিলাম। তারমধ্যে একটি বই ছিল ‘যে জীবন মরীচিকা ’। সে বই থেকে দুটো লাইন - দুনিয়া এক দুর্নিবার মোহের হাতছানি। এই মোহনিয়া হাতছানির ইশারায় প্রলুব্ধ হয়ে মানুষ একসময় ভুলে যায় জীবনের নির্মোহ ও চিরন্তন সত্য। সেই সত্য হলো- দুনিয়া তাঁর চিরস্থায়ী কোনো আবাস নয়, ক্ষণিকের পরবাসমাত্র। তাকে একদিন সবকিছু ছেড়ে পাড়ি জমাতে হবে তাঁর অলঙ্ঘনীয় অন্তিম পাথারে।

মানুষ জানে, একদিন জীবনের শৃঙ্খল ভেঙে যাবে, থেমে যাবে সব রঙিন স্বপ্ন; ফিকে হয়ে যাবে জীবনের সব মধুর সম্পর্ক। তবুও মানুষ ভালোবাসে মরীচিকাসম এ দুনিয়া। আর এই মরীচিকা ঘিরেই তৈরি হয়ে চলছে মানুষের অন্ধ-জীবনের ব্যস্ত-ধারাপাত।

পৃথিবী আমার আসল ঠিকানা নয়,
মরণ একদিন মুছে দিবে সকল রঙিন পরিচয়।

মেডিভয়েসের জনপ্রিয় ভিডিও কন্টেন্টগুলো দেখতে সাবস্ক্রাইব করুন MedivoiceBD ইউটিউব চ্যানেল। আপনার মতামত/লেখা পাঠান [email protected] এ।
  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত