২৪ মে, ২০২০ ১২:৫৮ এএম

করোনায় মৌলভীবাজারের সাবেক সিভিল সার্জনের মৃত্যু

করোনায় মৌলভীবাজারের সাবেক সিভিল সার্জনের মৃত্যু
ডা. এম এ মতিন। ফাইল ছবি

মেডিভয়েস রিপোর্ট: করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৌলভীবাজারের সাবেক সিভিল সার্জন ডা. আব্দুল মতিন মৃত্যুবরণ করেছেন। সিলেটের শামসুদ্দিন হাসপাতালে তিনি চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেন। ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তর সিলেটের সহকারী পরিচালক আনিসুর রহমানের বরাত দিয়ে শনিবার (২৩ মে) প্রথম আলো এ খবর প্রকাশ করেছে।  

খবরে বলা হয়, শুক্রবার ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পিসিআর ল্যাবে তার নমুনা পরীক্ষায় করোনা শনাক্ত হয়। শুক্রবার রাতে তিনি হাসপাতালে ভর্তি হলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

তাঁর মৃত্যুতে মেডিভয়েস পরিবার শোকাহত। আমরা তার বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করছি। 

এদিকে তার মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন বিএমএ’র কেন্দ্রীয় মহাসচিব ডা. ইহতেশামুল হক চৌধুরী (দুলাল), মৌলভীবাজার বিএমএ’র সভাপতি ডা. শাব্বির হোসেন খান, সাধারন সম্পাদক ডা. মোঃ শাহজাহান কবীর চৌধুরী, জেলা আওয়ামীলীগের সদস্য সাইফুর রহমান বাবুল।

মৌলভীবাজার বিএমএ’র সদস্য, ডা. এম এ মতিন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অবসরপ্রাপ্ত সহকারী পরিচালক (ঢাকা সিটি কর্পোরেশনের ম্যালেরিয়া কন্ট্রোল কর্মরত ছিলেন (ডেপুটেশনে)।

শুক্রবার (২২ মে) দিবাগত রাতে তিনি করোনা উপসর্গ নিয়ে সিলেটের ড. শহীদ শামসুদ্দিন আহমদ হাসপাতালে ভর্তি হন। এরপর রাতেই তাঁর মৃত্যু হয়। মৃত্যুকালে তিনি ২ ছেলে ও এক মেয়েসহ অসংখ্যক গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। ডা. এম এ মতিনের বড় ছেলে শরীফ আহমদ রাজধানীতে ব্যবসা করেন। ছোট ছেলে সাইফ আহমদ সিলেট শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক। আর মেয়ে ডা. রাবেয়া বেগম মুন্নি, সিলেট নর্থইস্ট মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে গাইনি বিভাগের কনসালটেন্ট হিসাবে কর্মরত।

ডা. এম এ মতিন দীর্ঘ চাকরি জীবনে তিনি মৌলভীবাজার সদর উপজেলাসহ জেলার বিভিন্ন উপজেলায় উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। অবসরপ্রাপ্তকালে তিনি সূর্যের হাসি ক্লিনিক-মৌলভীবাজারের মেডিকেল ইনচার্জ হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।

ডা. এম এ মতিন মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার পতনঊষার ইউনিয়নের রামেশ্বরপুর ১৯৪০ সালের মার্চ মাসে জন্ম গ্রহণ করেন।

ডা. এম এ মতিন ছিলেন, ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সাবেক উপ-পরিচালক, সুনামগঞ্জ, হবিগঞ্জ ও মৌলভীবাজারের সাবেক সিভিল সার্জন ডা. শফিক আহমদের ছোট মামা।

এ নিয়ে কোভিড-১৯ আক্রান্ত হয়ে সিলেট বিভাগে মোট ১২ জনের মৃত্যু হয়েছে। এরমধ্যে সিলেটে নয়জন, হবিগঞ্জে একজন ও সুনামগঞ্জে দু’জনের মৃত্যু হয়। গত ৫ এপ্রিল চিকিৎসকদের মধ্যে প্রথম করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা যান সিলেটের জনপ্রিয় চিকিৎসক প্রখ্যাত মেডিসিন বিশেষজ্ঞ ডা. মঈন উদ্দিন।

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
নিবন্ধনহীন ওষুধ লিখলে চিকিৎসকের শাস্তি
জাতীয় ওষুধনীতি-২০১৬’ এর খসড়ার নীতিগত অনুমোদন

নিবন্ধনহীন ওষুধ লিখলে চিকিৎসকের শাস্তি