০৭ মে, ২০২০ ০৫:২৩ এএম
মেডিভয়েসকে বিশেষ সাক্ষাৎকার

চিকিৎসকরা অসুস্থ হয়ে গেলে ভয়াবহ পরিস্থিতি হবে: কাজী সালাউদ্দিন

চিকিৎসকরা অসুস্থ হয়ে গেলে ভয়াবহ পরিস্থিতি হবে: কাজী সালাউদ্দিন
বাফুফে সভাপতি কাজী সালাউদ্দিন। ফাইল ছবি

মহামারী করোনাভাইরাসে স্থবির পুরো বিশ্ব। থমকে গেছে মানুষের স্বাভাবিক জীবন যাত্রা। করোনার প্রভাব ক্রীড়াঙ্গনেও পড়েছে। ঘরোয়া ও আন্তর্জাতিক সব খেলাই বন্ধ।এমন কঠিন পরিস্থিতিতে করোনায় খেলাধুলাসহ বিভিন্ন বিষয় নিয়ে মেডিভয়েসের সঙ্গে খোলামেলা কথা বলেছেন স্বাধীন বাংলা ফুটবল দলের অন্যতম সদস্য, দেশের ফুটবলের জীবন্ত কিংবদন্তি ও বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন (বাফুফে)-এর সভাপতি কাজী সালাউদ্দিন। সাক্ষাৎকার নিয়েছেন আব্দুল্লাহ আল-মামুন

মেডিভয়েস: করোনার সংক্রমণ এড়াতে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ঘরে থাকার পাশাপাশি সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার পরামর্শ দিচ্ছে। একজন সাবেক তারকা ফুটবলার হিসেবে এ ব্যাপারে কিছু বলুন।

কাজী সালাউদ্দিন: ঠিক একই জিনিস বলছি। বারবার হাত পরিষ্কার করুন,পরিচ্ছন্ন থাকার চেষ্টা করুন। মুখ, নাক ও চোখে হাত দেয়া থেকে যথাসম্ভব বিরত থাকুন। সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখুন, নিজেকে সেভ রাখুন। এটা ছাড়া আর কিছু বলার নেই। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা যেসব পরামর্শগুলো দিচ্ছে আমি মনে করি সেগুলো ফলো করা আমাদের উচিত।

মেডিভয়েস: করোনায় আক্রান্তদের সেবায় চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীরা দিনরাত অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন। তাদের মধ্যে কয়েকজন মৃত্যুবরণ করেছেন। অনেকে আক্রান্ত হচ্ছেন। জীবনের ঝুঁকি নিয়ে যারা আক্রান্ত রোগীদের সেবা দিচ্ছেন তাদের নিয়ে কিছু বলুন।

কাজী সালাউদ্দিন: ডাক্তার ও নার্সদের এই সাহসিক কাজ নিশ্চয়ই প্রশংসনীয়, এছাড়া কিছু বলার নেই। তারা সবার প্রশংসার যোগ্য, প্রশংসনীয় কাজ করছেন। তাদের জন্য আমাদের দোয়া ও ভালোবাসা থাকবে। আল্লাহ যেন তাদের সুস্থ রাখেন। আল্লাহ না করুক তারাই যদি অসুস্থ হয়ে পড়েন তাহলে দেশে আরও ভয়াবহ পরিস্থিতি তৈরি হবে। তাই তাদের সুস্থতা কামনা করছি।

মেডিভয়েস: করোনার এই কঠিন পরিস্থিতিতে সব ধরনের খেলাধুলা বন্ধ থাকায় সবচেয়ে কষ্টে রয়েছেন খেলোয়াড়রা। এ ব্যাপারে কিছু বলবেন?

কাজী সালাউদ্দিন: আমরা সবাই আসলে পরিস্থিতির স্বীকার। করোনাভাইরাসের কারণে শুধু ফুটবল আর ক্রিকেট না। বিশ্বের শক্তিশালী বিভিন্ন দেশ থমকে গেছে। আমার মনে হয় এই পরিস্থিতি কাটিয়ে উঠতে অনেক সময় লাগবে। কার কতো সময় লাগবে এটা বলা যায় না। তবে করোনার কারণে পুরো ‍পৃথিবী বিপদের মধ্যে আছে।

আমি আপনি বা আমাদের দেশ না, পুরো বিশ্বই একটা ডিফিকাল্ট সময় পার করছে। আমার মনে হয় গত একশ বছরের মধ্যে পৃথিবীও এমন কঠিন পরিস্থিতিতে কখনও পড়েনি। তো এটার আউটকাম কী হবে, কোথায় গিয়ে শেষ হবে তা বলা মুশকিল। আশা করি দ্রুতই সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে।

মেডিভয়েস: এমন পরিস্থিতিতে খেলোয়াড়দের ফিটনেস ধরে রাখা কতটা চ্যালেঞ্জিং বলে মনে করেন?

কাজী সালাউদ্দিন: অবশ্যই অনেক বড় চ্যালেঞ্জ। যারা পেশাদার খেলোয়াড় তারা হয়ত ঘরে বা বাড়ির আঙিনায় প্রতিদিন প্র্যাকটিস করে নিজেদের ফিটনেস ধরে রাখার চেষ্টা করবেন। এটা তার নিজের জন্যই করা প্রয়োজন। যখন এই সমস্যা কেটে যাবে তখন তো তাদের আবার খেলার মাঠে ফিরতে হবে। কাজেই এখন তাদের অবশ্যই নিজেকে ফিট রাখার চেষ্টা করতে হবে। এর মধ্যে তারা যদি আনফিট হয়ে যায় তাহলে তাদের নিজের জন্যই খারাপ হবে। পরবর্তীতে খেলায় ফেরা কষ্ট কর হবে। বর্তমান পরিস্থিতির সম্পর্কেও আমাদের ভালো ধারণা আছে। সেভাবেই আমাদের থাকা উচিত।

মেডিভয়েস: করোনায় বেশি আক্রান্ত হচ্ছেন বয়স্করা। আপনি একজন ফুটবল কিংবদন্তি এবং প্রবীণ মানুষ। এই পরিস্থিতিতে করোনার সংক্রমণ এড়াতে কী করছেন?

কাজী সালাউদ্দিন: আমি বাসাই আছি, কোথায়ও যাচ্ছি না। সাবান এবং হ্যান্ডওয়াশ দিয়ে বারবার হাত ধুচ্ছি। আমার বাসায় এখন কোনো মেহমান আসছে না। আমিও বাইরে যাচ্ছি না। কারণ বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে আমরা সবাই জানি। কাজেই এখন আপনি আমি সবাইকে করোনায় করণীয় বিষয়গুলো মেনে চলা উচিত। যথাসম্ভব ঘরে থাকা, প্রয়োজন ছাড়া বের না হওয়া।

মেডিভয়েস: আপনার যারা ভক্ত-সমর্থক রয়েছেন, করোনার সংক্রমণ থেকে বাঁচতে তাদের কী পরামর্শ দেবেন?

কাজী সালাউদ্দিন: আমাদের সবাইকে করোনাভাইরাসের লকডাউন মেনে চলা উচিত। আপনাদের জন্য আমার দোয়া রইল। সব সময় পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন থাকুন। নিজেকে সেভ রাখুন। আপনি সেভ থাকলে আপনার পরিবার এবং প্রতিবেশী সেভ থাকবে।

মেডিভয়েস: সময় দেয়ার জন্য ধন্যবাদ, ভালো থাকবেন।

কাজী সালাউদ্দিন: জ্বী, আপনিও ভালো থাকবেন।   

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
আন্তর্জাতিক এওয়ার্ড পেলেন রাজশাহী মেডিকেলের নার্স
জীবাণু সংক্রমণ প্রতিরোধে অসামান্য অর্জন

আন্তর্জাতিক এওয়ার্ড পেলেন রাজশাহী মেডিকেলের নার্স