ডা. রুবাইয়াত সানজিদ হোসেন

ডা. রুবাইয়াত সানজিদ হোসেন

সহকারী পুলিশ সুপার (৩৮তম বিসিএস), ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ (২০০৮-০৯)


০৫ জানুয়ারী, ২০২২ ০১:১৬ পিএম

বিসিএস স্বাস্থ্য নবীন চিকিৎসকদের জন্য কতটুকু আস্থার?

বিসিএস স্বাস্থ্য নবীন চিকিৎসকদের জন্য কতটুকু আস্থার?
বর্তমানে সরকারি মেডিকেল কলেজ ৩৭টি, আর্মি নিয়ন্ত্রিত মেডিকেল কলেজ ছয়টি ও বেসরকারি মেডিকেল কলেজ ৭০টি সবমিলিয়ে মোট ১০৩টি মেডিকেল কলেজ।

বর্তমানে সরকারি মেডিকেল কলেজ ৩৭টি, আর্মি নিয়ন্ত্রিত মেডিকেল কলেজ ছয়টি ও বেসরকারি মেডিকেল কলেজ ৭০টি সবমিলিয়ে মোট ১০৩টি মেডিকেল কলেজ। আর সরকারি ডেন্টাল কলেজ ও ইউনিট আটটি। এছাড়া বেসরকারি ডেন্টাল কলেজ ও ইউনিট ২৬টি মোট ডেন্টালের সংখ্যা ৩৪ (তথ্যসূত্র : উইকিপিডিয়া)।

আগামী ৪৪ তম বিসিএস স্বাস্থ্য ক্যাডারে সহকারী সার্জন ১০০ জন ও সহকারী ডেন্টাল সার্জন ২৫ জন। সবমিলিয়ে মোট ১২৫ চিকিৎসক নিয়োগ হবে ৪৪তম বিসিএসে। গড়ে একটি মেডিকেল বা ডেন্টাল প্রতিষ্ঠানের একজন চিকিৎসক নিলেও তাও সবার ভাগে পড়ে না। চিত্রটি কল্পনা করুন।

যে দুর্দশা হয়েছিল ৩৩ বিসিএসের পর থেকে সেই চিত্রের পুনরাবৃত্তি হতে যাচ্ছে ৪২ বিসিএসে পর হতে যাচ্ছে। ৩৪-৩৫-৩৬-৩৭-৩৮ মিলে হয়ত ৮০০(+/-) চিকিৎসক নিয়োগ হয়েছে। এর জন্য জনপ্রশাসনের কোন দায়িত্ব নেই। ৩৯ এবং ৪২ বিসিএস এর সুফল অনেকেই পেয়েছেন। অবশ্যই তার রাষ্ট্র এবং সরকারের নিকট কৃতজ্ঞ। আমার চিন্তা এরপর কি হবে?

বাস্তব কথা, সরকার সকলের চাকরির চাহিদা পূরণ করতে পারবে না। বেসরকারি প্রতিষ্ঠান এক্ষেত্রে ভালো ভূমিকা পালন করছে যদিও তার মান প্রশ্নবিদ্ধ। অথচ প্রতিবছর ১০০০০+ ডাক্তার তৈরি হচ্ছে।

নতুন চিকিৎসকদের কাছে আমার বার্তা:

আপনারা বিসিএসের (স্বাস্থ্য) পাশাপাশি বিসিএস (জেনারেল) ক্যাডারের প্রতি আগ্রহী হবেন। আবার কবে স্পেশাল বিসিএস হয়, তা বলা মুশকিল। যদি দেশে থাকেন, তবে এই পথগুলোও আপনার জন্য খোলা আছে, তা আপনাদের জানাচ্ছি।

আমি স্বপ্ন দেখি, একদিন দেশের ৪৯৫টি উপজেলার ইউএনও, ৬৪ জেলার ডিসি ও এসপি ও ডিসিটি, ৮ টি বিভাগের ডিভিশনাল কমিশনার, ডিআইজি, ডিসিএ, সকল মন্ত্রণালয়ের সচিব, আইজিপি, বিপিএসসির চেয়ারম্যান, কেবিনেট সচিব, প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব সকলে চিকিৎসক ব্যাকগ্রাউন্ড থেকে আসবে। তাতে কি হবে? হয়ে যাক না। দেশ ও দেশবাসী হয়ত নতুন কিছু দেখবে।

কিছু যদি নাও হয়, বলতে তো পারব, আমার মেডিকেলের বড় ভাই, আজ মন্ত্রিপরিষদ সচিব। সেটাই বা কম কিসের! যেমনটা আমি বলি, লোটে শেরিং, ভুটানের প্রধানমন্ত্রী, ডা. হাবিব এ মিল্লাত, এমপি, আরও অনেকের কথা।

হেটার্সরা বলবেন যে, তাহলে চিকিৎসা করবে কারা?

এক হাজার চিকিৎসক যদি এসব পদে আসলে দেশের চিকিৎসা ব্যবস্থা ভেঙে পড়বে না। বরং বিপরীতটি হবে বলে আমার বিশ্বাস। বিপরীত বলতে আশাব্যাঞ্জক পরিবর্তন বুঝিয়েছি।

আর যারা আন্তর্জাতিক প্ল্যাটফর্মে পারফর্ম করতে চান অর্থাৎ বিদেশে যেতে চান, তাদের জন্য শুভকামনা। যারা মেডিকেল ক্যারিয়ার করতে চান, তাদের জন্যেও শুভকামনা। আমি কাউকে নিরুতসাহিত করছি না। যে যেভাবে ভালো থাকেন সেভাবে থাকবেন। কিন্তু ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে কাদের হাতে রেখে যাচ্ছেন, সেদিকটিও ভাববেন আশা করি।

ইঞ্জিনিয়াররা ইতোমধ্যেই এসব জেনারেল সেক্টরে আসা শুরু করে দিয়েছে, সে তুলনায় চিকিৎসক সংখ্যা নগন্য; ৩৮ তম বিসিএসে ১৮ জন মাত্র। জনগণ বলে, আমরা জনগণের টাকায় চিকিৎসক হয়েছি। আসুন এবার সেই জনগণের জনপ্রশাসনে জনস্বার্থে নতুন আঙ্গিকে নিজেকে নিযুক্ত করি।

মেডিভয়েসের জনপ্রিয় ভিডিও কন্টেন্টগুলো দেখতে সাবস্ক্রাইব করুন MedivoiceBD ইউটিউব চ্যানেল। আপনার মতামত/লেখা পাঠান [email protected] এ।
  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত