ডা. মুশফিক নেওয়াজ আহমেদ

ডা. মুশফিক নেওয়াজ আহমেদ

এমডি, রেসিডেন্ট, পালমোনোলজি
জাতীয় বক্ষব্যাধি ইন্সটিটিউট ও হাসপাতাল, মহাখালী, ঢাকা


১৬ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ০৪:০৭ পিএম

চলচ্চিত্র ও চিকিৎসা বিজ্ঞান

চলচ্চিত্র ও চিকিৎসা বিজ্ঞান
ছবি: সংগৃহীত

কোভিড-১৯ এ সংক্রমণ ঝুঁকি কমানোর মাধ্যম হিসেবে প্রথমে ৩ ফুট দূরত্ব রক্ষার কথা বলা হলেও পরবর্তীতে ৬ ফুট দূরত্ব রক্ষায় জোর দেওয়া হয়। এই ৬ ফুট দূরত্ব রক্ষার কথা কিন্তু শ্বাসতন্ত্রের আরেকটি রোগের ক্ষেত্রেও বলা হয় আর তা হলো ‘সিস্টিক ফাইব্রোসিস’।

পার্থক্য এতটুকু যে এই ৬ ফুট দূরত্ব বজায় রাখতে হবে দুজন সিস্টিক ফাইব্রোসিসে আক্রান্ত ব্যক্তির মধ্যে অথবা একজন সিস্টিক ফাইব্রোসিস এ আক্রান্ত এবং একজন যেকোনো অসুস্থতায় আক্রান্ত ব্যক্তির মধ্যে। সুস্থ মানুষ এবং সিস্টিক ফাইব্রোসিস এ রোগাক্রান্ত ব্যক্তির মধ্যে নয়।

প্রশ্ন আসতে পারে কেনো এই দূরত্ব? সিস্টিক ফাইব্রোসিস এ আক্রান্ত ব্যক্তির শ্বাসতন্ত্রের যেকোনো অংশে বেশ মারাত্মক ধরনের ব্যাকটেরিয়ার প্রায় নিয়মিত আনাগোনা থাকে। ‘ক্রস ইনফেকশন’ যেনো না হয় সেজন্যে দুজন সিস্টিক ফাইব্রোসিস এ আক্রান্ত ব্যক্তি শুধু ব্যবধানই বজায় রাখবেন না, তাদের আরও কয়েকটি নির্দেশনা ও মেনে চলতে হবে।

১. করমর্দন এবং আলিংগন করতে পারবেন না।
২. ব্যক্তিগত দৈনন্দিন ব্যবহার্য কোনো জিনিস শেয়ার করতে পারবেন না।
৩. বদ্ধ বা কম ভেন্টিলেশনপূর্ণ জায়গায় মাস্ক ছাড়া সহাবস্থান করতে পারবেন না।

কোনো সিস্টিক ফাইব্রোসিসে আক্রান্ত ব্যক্তির যদি ফুসফুস প্রতিস্থাপন করা হয় সেক্ষেত্রেও তাকে উপরোক্ত নির্দেশনা মেনে চলতে উৎসাহিত করা হয়। দুঃখবিলাস এবং সামান্য এই জ্ঞানার্জন হয়ে যাবে ‘Five Feet Apart’ মুভিটি দেখলে।

(২)

বোন ম্যারো ট্রান্সপ্ল্যান্ট এর নাম সবারই শোনা। ব্লাড ক্যান্সার ছাড়াও কিছু অসুস্থতার স্থায়ী সমাধানে বোন ম্যারো ট্রান্সপ্ল্যান্ট করা হয়। অনেকগুলো সতর্কতামূলক ধাপ অতিক্রম ও শর্তপূরণ করে রোগীকে প্রস্তুত করা হয়। ট্রান্সপ্ল্যান্টেড বোন ম্যারো যাতে রোগীর শরীর রিজেক্ট না করে সে জন্য রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা হ্রাসকারী ঔষধ ব্যবহার করা হয়। বুসুলফান (Busulfan) এমনই এক ওষুধ।

বোন ম্যারো ট্রান্সপ্ল্যান্টেশন সফল হলো। রোগী সেরে উঠলেন ক্যান্সার থেকে, বিপত্তি ঘটলো কয়েক বছর পর। অনবরত শুকনো কাশি, অল্পতেই হাঁপিয়ে ওঠা, কখনো বা শ্বাসকষ্ট। বিভিন্ন সিম্পটম বেইসড চিকিৎসায় সাময়িক উন্নতি কিন্তু প্রতিবার লক্ষণগুলোর বিপুল বেগে ফিরে আসে। অক্সিজেন ছাড়া যখন রোগীর চলছেই না, সেই সময় বাধ্য হয়ে বক্ষব্যাধি বিশেষজ্ঞের শরণাপন্ন হওয়া হলো। বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক সন্দেহের বশবর্তী হয়ে শারীরিক পরীক্ষার পাশাপাশি সিটি স্ক্যান করে পৌছে গেলেন দুর্ভাবনার মূলে। রোগী Busulfan Lung -এ আক্রান্ত। যাতে ফুসফুসের উল্লেখযোগ্য অংশ নমনীয়তা পরিহার করে হয়ে উঠেছে ফ্রাইবোসড, অক্সিজেনের আদান প্রদান ব্যহত হওয়ায় রক্তে ক্রমশ অক্সিজেনের ঘাটতি নিয়ত অনুষঙ্গ।

Busulfan Lung এ যার ফ্রিকোয়েন্সী শতকরা ৮ ভাগেরও কম তা আগে থেকে ভবিষ্যদ্বাণী করার কিছু উপায় আছে। প্রাথমিক পর্যায়ে এর চিকিৎসা শুরু করা গেলে এই ক্রমবর্ধমান অসুস্থতাকে সমূলে উৎপাটন করা না গেলেও টার্মিনাল লাং ডিজিজ এ যাওয়া আটকানো সম্ভব। যেখানে ফুসফুস প্রতিস্থাপন ছাড়া আর কোনো বিকল্প থাকে না।

‘The Sky is Pink’ মুভিটা দেখলে এ সংক্রান্ত অনেক কিছুই জানা হয়ে যাবে।

মেডিভয়েসের জনপ্রিয় ভিডিও কন্টেন্টগুলো দেখতে সাবস্ক্রাইব করুন MedivoiceBD ইউটিউব চ্যানেল। আপনার মতামত/লেখা পাঠান [email protected] এ।
স্বাস্থ্য খাতের সংস্কার প্রতিবেদনে সুপারিশ

রোগী থেকে সরাসরি টাকা গ্রহণ নয়, চিকিৎসক হবেন বেতনভুক্ত কর্মচারী

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত