২৮ জুলাই, ২০২০ ১০:০১ এএম

স্যানিটাইজারের আগুনে দগ্ধ ডা. রাজীব ভট্টাচার্য আর নেই

স্যানিটাইজারের আগুনে দগ্ধ ডা. রাজীব ভট্টাচার্য আর নেই

মেডিভযেস রিপোর্ট: রাজধানীর হাতিরপুলে নিজ বাসায় স্যানিটাইজারের আগুনে দগ্ধ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) নিউরোসার্জারি বিভাগের চিকিৎসক রাজীব ভট্টাচার্য মারা গেছেন।

মঙ্গলবার (২৮ জুলাই) সকাল সাড়ে ৮টায় রাজধানীর শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটের আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়েছে।

ইনস্টিটিউটের প্রধান সমন্বয়ক ডা. সামন্ত লাল সেন এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, রাজিবের শ্বাসনালীসহ শরীরের ৮৭ শতাংশ দগ্ধ ছিল। তাকে আইসিইউতে লাইফ সার্পোর্টে রাখা হয়েছিল। সেখানে আজ সকাল সাড়ে ৮টায় তার মৃত্যু হয়। তার স্ত্রী ২০ শতাংশ দগ্ধ নিয়ে এখনও বার্নে ভর্তি রয়েছে। বাসার ভেতর হ্যান্ড স্যানিটাইজার আগুনের সংস্পর্শে এই অগ্নিদগ্ধের ঘটনা ঘটেছে বলে আমরা জানতে পেরেছি।

এর আগে গত বুধবার (২২ জুন) রাজধানীর হাতিরপুলে নিজ বাসায় অগ্নিকাণ্ডে দগ্ধ হন রাজীব ভট্টাচার্য (৩৭) ও অনুসূয়া ভট্টাচার্য (৩২) নামে এক তরুণ চিকিৎসক দম্পতি। এ ঘটনায় তখনই চিকিৎসক রাজীবের অবস্থা সংকটাপন্ন বলে জানিয়েছিলেন চিকিৎসকেরা।

স্বজনরা জানান, রাজিবের বাড়ি কুমিল্লা দেবীদ্বার উপজেলার ইস্টগ্রামে। একমাত্র মেয়ে রাজশ্রী ভট্টাচার্যকে (৫) নিয়ে হাতিরপুল ইস্টার্ন প্লাজার পেছনের একটি বাড়ির ৩য় তলায় ভাড়া থাকেন। তার বাবার নাম লক্ষ্মণ ভট্টাচার্য। এক ভাই ও দুই বোনের মধ্যে রাজিব সবার ছোট। আর অনূসূয়ার বাড়ি সিলেট।

প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, স্যানিটাইজারের থেকেই আগুনের সূত্রপাত।  রাজীব এক বোতল থেকে আরেক বোতলে স্যানিটাইজার ঢালতে গেলে তা খানিকটা নিচে পড়ে যায়। এতে সিগারেট বা মশার কয়েলের আগুন থেকে তাঁর শরীরে আগুন ধরে যায়। ডা. অনুসূয়া তাঁকে বাঁচাতে গেলে তিনিও দগ্ধ হন। তাঁদের সাত বছরের এক মেয়ে আছে। তবে সে এ ঘটনার সময় বাড়িতে না থাকয় এ ঘটনার থেকে রক্ষা পেয়েছে। 

উল্লেখ্য, ডা. রাজীব ভট্টাচার্য বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল কলেজ বিশ্ববিদ্যালয়ে নিউরো সার্জারি বিভাগের চিকিৎসক এবং ডা. অনুসূয়া ভট্টাচার্য রাজধানীর একটি বেসরকারি মেডিকেলের চিকিৎসক হিসেবে কর্মরত আছেন।

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
নিবন্ধনহীন ওষুধ লিখলে চিকিৎসকের শাস্তি
জাতীয় ওষুধনীতি-২০১৬’ এর খসড়ার নীতিগত অনুমোদন

নিবন্ধনহীন ওষুধ লিখলে চিকিৎসকের শাস্তি