ডা. কায়সার আনাম

ডা. কায়সার আনাম

মেডিকেল অফিসার

ন্যাশনাল ইন্সটিটিউট অব ক্যান্সার রিসার্স অ্যান্ড হসপিটাল।


২৩ জুন, ২০১৮ ১০:০৪ এএম

ওষুধের নাম জানলেই ডাক্তার?

ওষুধের নাম জানলেই ডাক্তার?

এক ওষুধের দোকানি যে কিনা ডাক্তার হিসেবে এলাকাতে পরিচিত।  আমাকে একবার বলেছিল - ডাক্তারি পড়া তো অনেক কঠিন! কত ওষুধের নাম মুখস্থ করতে হয়!
তার কথাটার উদ্দেশ্য ছিল এটা বোঝানো যে ডাক্তারি পড়া মানে ওষুধের নাম মুখস্থ করা। 

সে প্রচলিত সব ওষুধের নাম জানে।  কাজেই সে ডাক্তারের চেয়ে কম না।  তাই নামের আগে ডাক্তার লাগিয়ে ভিজিটিং কার্ড ছাপানোয় কোন সমস্যা নাই।

ওষুধের নাম পড়াটা আসলে মেডিকেল সাইন্সের তুলনামূলক ইন্টারেস্টিং এবং সহজ অংশ।  মেডিকেলে এগারোটি বিষয় কমপক্ষে ষাট নম্বর করে পেয়ে পাশ করতে হয়।  তার মধ্যে একটি হল ফার্মাকোলজি, যেখানে ওষুধ বিষয়ে পড়ানো হয়। 

তাহলে হিসাবে এগারো ভাগের একভাগ বলা যেত।  কিন্তু মেডিকেল স্টুডেন্ট মাত্রেই জানে অ্যানাটমি, প্যাথোলজি বিষয়গুলোর ভলিউম ফার্মাকোলজির থেকে বেশি।  আবার ফার্মাকোলজির মধ্যেও শুধু ওষুধের নাম মুখস্থ করাটা মূল বিষয় না।

ফার্মাকোলজি অনেক ইন্টারেস্টিং একটা বিষয়। এর মাঝে অনেক কিছু আছে।  তার হয়তো পাঁচ ভাগের একভাগ হবে ওষুধের নাম মুখস্থ করায়।

আমি যেই উদাহরণ দিলাম সে অনু্যায়ী মেডিকেল সাইন্সে আমরা যে পড়ালেখা করি তার হয়তো পঞ্চাশ ভাগের মাত্র একভাগ সময় দেই ওষুধের নাম নিয়ে।  সংখ্যাটা এরকম হবে কিনা নিশ্চিত জানিনা।
 

তবে এই উদাহরণ থেকে এটা বলা যায়, যে দোকানি ওষুধের নাম মুখস্থ করে ডাক্তার সেজেছে, সে মেডিকেল জ্ঞানসমুদ্রের তীরে নুড়ি কুড়ানো দুরের কথা, সমুদ্রতীরেই পৌঁছতে পারেনি।

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
তুমি সবার প্রফেসর আবদুল্লাহ স্যার, আমার চির লোভহীন, চির সাধারণ বাবা
পিতাকে নিয়ে ছেলে সাদি আব্দুল্লাহ’র আবেগঘন লেখা

তুমি সবার প্রফেসর আবদুল্লাহ স্যার, আমার চির লোভহীন, চির সাধারণ বাবা

বেশিদিন ওমিপ্রাজল খেলে হাড় ক্ষয়ের ঝুঁকি বাড়ে 
কিডনি পাথরের ঝুঁকি বাড়ায় নিয়মিত অ্যান্টাসিড সেবন 

বেশিদিন ওমিপ্রাজল খেলে হাড় ক্ষয়ের ঝুঁকি বাড়ে 

ডাক্তার-নার্সদের অক্লান্ত পরিশ্রমের কথা মিডিয়ায় আসে না
জাতীয় হৃদরোগ ইন্সটিটিউটের সিসিউতে ভয়ানক কয়েক ঘন্টা

ডাক্তার-নার্সদের অক্লান্ত পরিশ্রমের কথা মিডিয়ায় আসে না