ঢাকা শুক্রবার, ১৮ অক্টোবর ২০১৯, ২ কার্তিক ১৪২৬,    আপডেট ১ ঘন্টা আগে
৩১ মে, ২০১৮ ১৫:৫৯

আজ বিশ্ব তামাকমুক্ত দিবস

আজ বিশ্ব তামাকমুক্ত দিবস

মেডিভয়েস ডেস্ক:  আজ বিশ্ব তামাকমুক্ত দিবস। প্রতি বছর বিশ্বজুড়ে পালন করা হয় দিবসটি। এ বছর দিবসটির প্রতিপাদ্য হচ্ছে, ‘তামাক করে হৃৎপিণ্ডের ক্ষয়: স্বাস্থ্যকে ভালোবাসি, তামাককে নয়।’ অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশেও দিবসটি পালিত হচ্ছে।

১৯৮৭ সাল থেকে প্রতিবছর ৩১ মে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ও এর সহযোগী সংস্থার উদ্যোগে তামাকের স্বাস্থ্য ঝুঁকিসমূহ তুলে ধরে তামাক ব্যবহার প্রতিরোধে কার্যকর নীতিমালা প্রণয়নের লক্ষ্যে ‘বিশ্ব তামাকমুক্ত দিবস’ পালিত হয়ে আসছে।

প্রতি বছর তামাকের কারণে বিশ্বব্যাপী প্রায় ৬০ লাখ মানুষের মৃত্যু হয়। এর মধ্যে ধূমপানের পরোক্ষ ধোঁয়ার প্রভাবে প্রায় ছয় লাখ অধূমপায়ী ক্ষতিগ্রস্ত হয়। বিশ্বের স্বাস্থ্য খাতের মোট ব্যয়ের ছয় শতাংশ অর্থ ব্যয় হয় তামাকজনিত রোগের কারণে। তামাক ব্যবহারকারীদের ৮০ শতাংশের বাস নিম্ন ও মধ্যম আয়ের দেশে। 

তামাক মূলত হৃৎপিণ্ড, লিভার ও ফুসফুসকে আক্রান্ত করে। ধূমপানের ফলে হার্ট অ্যাটাক, স্ট্রোক, ক্রনিক অবস্ট্রাকটিভ পালমোনারি ডিজিজ, এমফাইসিমা ও ক্রনিক ব্রংকাইটিস, ফুসফুসের ক্যানসার, প্যানক্রিয়াসের ক্যান্সার, মানসিক চাপ ও মুখগহ্বরের ক্যানসারের ঝুঁকি বাড়ায়। 

গর্ভবতী নারীদের ওপর তামাকের ক্ষতিকর প্রভাব রয়েছে। ধূমপায়ী নারীদের ক্ষেত্রে গর্ভপাত ঘটার হার বেশি। এছাড়া ধূমপান গর্ভস্থ ভ্রূণেরও অনেক ক্ষতি করে, যেমন অকালে শিশুর জন্ম হওয়া, জন্মের সময় নবজাতকের ওজন আদর্শ ওজনের তুলনায় কম হওয়া। 

তামাকের কারণে বিশ্বে প্রতি ছয় সেকেন্ডে গড়ে একজন লোক মারা যায়।

গবেষণার তথ্যমতে, বাংলাদেশে ১৩ থেকে ১৫ বছর বয়সী তরুণ-তরুণীদের মধ্যে সাত শতাংশ তামাক সেবন করে থাকে। প্রতি বছর এ হার ১০ থেকে ১২ শতাংশ বেড়ে চলছে। বর্তমানে ৪৩ শতাংশ প্রাপ্তবয়স্ক নারী-পুরুষ প্রতক্ষ্যভাবে তামাক ব্যবহার করছে। এছাড়া ৫৮ শতাংশ পুরুষ ও ২৯ শতাংশ নারী বিড়ি-সিগারেট ও তামাক সেবন করে থাকে। আর ২৮ শতাংশ নারী ও ২৬ শতাংশ পুরুষ প্রতিদিন পান, জর্দা ও গুলের মাধ্যমে ধোঁয়াহীন তামাক সেবন করে। 

তামাকের ব্যবহার কমাতে পারলে জনস্বাস্থ্য ও জাতীয় অর্থনীতির উন্নয়ন বৃদ্ধি পাবে। জনগণকে তামাকের ক্ষতিকর দিক সম্পর্কে সচেতন করে তুলতে পারলে এর ব্যবহার দ্রুত কমে আসবে। উন্নত ও সমৃদ্ধ দেশ গড়ে তুলতে আমাদের দরকার একটি সুস্থ-সবল জনগোষ্ঠী। এ লক্ষ্যে তামাকের বিরুদ্ধে সচেতনতা সৃষ্টি করতে হবে।

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত