ডা. কায়সার আনাম

ডা. কায়সার আনাম

মেডিকেল অফিসার

ন্যাশনাল ইন্সটিটিউট অব ক্যান্সার রিসার্স অ্যান্ড হসপিটাল।


২৯ মে, ২০১৮ ০১:৪৪ পিএম

গনোরিয়ায় সংক্রমণ হলেই শেষ! 

গনোরিয়ায় সংক্রমণ হলেই শেষ! 

অনেক বছর আগের কথা। চর্ম-যৌন বিভাগে রোটেশান ছিল। সিনিয়র আলোচনা করছিলেন গনোরিয়া নিয়ে। ওনার কাছে ছেলেরা গনোরিয়া নিয়ে এলে উনি নাকি প্রথমে খুব ভয় দেখান। চিকিৎসা সহজে সম্ভব না বলে দেন। টেস্ট করতে দিয়ে অপেক্ষা করান। অনেক টেনশনের পরে চিকিৎসা দেন।

অথচ, গনোরিয়া দেখেই ডায়াগনোসিস করা যায়। সিম্পল ওষুধের মাধ্যমে সহজে চিকিৎসা দেয়া যায়। তারপরেও তিনি নাকি এমন করেন তাদেরকে ভয় দেখানোর জন্য। এই রোগটা সাধারণত গণিকালয় গেলে হয়। তারা যদি বোঝে যে রোগটা ভয়াবহ হলেও চিকিৎসা সিম্পল, তাহলে পাত্তা দিবে না। তাদের বার বার গমণ নিরুৎসাহিত করতেই এই ভণিতা।

শুনতে আমার অস্বস্তি লাগছিল। রোগীর ব্যক্তিগত সিদ্ধান্ত নিয়ে তাকে জাজ করা ডাক্তার হিসেবে আমার কাজ না। তাকে শাস্তি দেয়ার দায়িত্বও আমার না। ডাক্তারের ভূমিকার বাইরে যখন থাকব, তখন তাকে অনেক কিছুই বলতে পারি। কিন্তু যখন ডাক্তারের ভূমিকায় থাকব তখন শুধু মেডিক্যাল পয়েন্ট থেকেই ভাববো।

সেসব যাক। মূল কথায় আসি। সুপারবাগ ইনফেকশান নিয়ে আগে লিখেছিলাম। এমন সব ইনফেকশান যেখানে কোন অ্যান্টিবায়োটিক কাজ করে না। গনোরিয়াতেও সুপারবাগ এসে গেছে দেখা যাচ্ছে। বলা হচ্ছে সুপার গনোরিয়া। সত্যিই সত্যিই এখন ওষুধে কাজ করবে না। সংক্রমণ হলেই শেষ!

জ্বলে পুড়ে সব ছারখার, তবু মাথা নোয়াবার নয়!
বোনাস হিসেবে বাচ্চা হবে না!

ইনফেকশান ছড়িয়ে পঙ্গুত্ব এমনকি মৃত্যুও হতে পারে।

ভারতে যেহেতু পাওয়া যাচ্ছে, বাংলাদেশেও থাকার কথা। ইনফেকশান থেকে বাঁচার উপায় এখন একটাই- সংক্রমিত না হওয়া।

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত