ঢাকা      সোমবার ২২, অক্টোবর ২০১৮ - ৬, কার্তিক, ১৪২৫ - হিজরী



ডা. ফাহিম উদ্দিন

ইন্টার্ন চিকিৎসক

খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল।


কেস হিস্ট্রির মাধ্যমে রোগ নির্ণয়

একটা বাচ্চা জন্মের ছয় ঘন্টা পর একজন পেডিয়েট্রিশিয়ানকে আর্জেন্ট কল দেয়া হল। বাচ্চাটার সমস্যা ছিল Fever, Respiratory distress & High Blood Glucose level. ব্লাড গ্লুকোজ লেভেল কোনো ভাবেই কমছে না। RBS এসেছে 17mmol/L, 15 mmol/L এ রকম। 

পেডিয়েট্রিক কনসালট্যান্ট Dr. Morshad Alam (Morshad Alam Hero) স্যার বাচ্চাটাকে দেখলেন। সবকিছু দেখে-শুনে বাচ্চার মায়েরও হিস্ট্রি নিলেন। জানতে পারলেন প্রেগনেন্সিতে বাচ্চার মায়ের ডায়াবেটিস(GDM) ছিল এবং তিনি থ্যালাসেমিয়া ক্যারিয়ার। (আমরা জানি, প্রেগনেন্সিতে যেসব মায়ের ডায়াবেটিস থাকে (GDM) তাদের বাচ্চাদের জন্মের পর Hypoglycemia হওয়ার ঝুঁকি থাকে, কারণ মায়ের ইউটেরাসে থাকা কালিন High Blood Glucose এর সংস্পর্শে থাকায় তার রেসপন্স হিসেবে বাচ্চার প্যানক্রিয়াস বেশি বেশি ইনসুলিন রিলিজ করতে থাকে; যার জন্য জন্মের পর ঐসব বাচ্চার Hypoglycemia ডেভেলপ করার চান্স থাকে! অথচ এক্ষেত্রে উল্টোটা দেখা যাচ্ছে, অর্থাৎ Hyperglycemia!) 

তখন স্যার বাচ্চার মায়ের ডেলিভারি সম্পর্কিত আরো ডিটেইলস হিস্ট্রি নিয়ে জানতে পারলেন, বাচ্চার মায়ের PROM(Pre Mature Rupture of Membrane) এর হিস্ট্রি আছে। তখন স্যার চিন্তা করলেন, একদিকে ডায়াবেটিস মায়ের বেবি হওয়ায় বাচ্চার ইনফেকশনের একটা চান্স আছে আগে থেকেই, তার উপর যেহেতু মায়ের PROM এর হিস্ট্রি আছে, সুতরাং এখান থেকেও ইনফেকশনের চান্স আছে। তাছাড়া বাচ্চার জ্বর ও রেস্পিরেটিরী ডিসট্রেস আছে, রেস্পিরেটিরী রেট বেশি।

সুতরাং সব মিলিয়ে Septicemia ডেভেলপ করার একটা চান্স আছে। এবং Septicemia এর কারণেই Hyperglycemia ডেভেলপ করতে পারে। সুতরাং Septicemia এর ট্রিটমেন্ট করলেই Blood glucose level ও অটোমেটিক কারেকশন হয়ে আসবে! 

কেননা আমরা জানি, Septicemia এবং আরো কিছু severe acute illness এ Hepatic glucose production বেড়ে যায়। Severe illness এর রেসপন্স এ যে Cytokines, Glucagon & Cortisol রিলিজ হয় সেগুলোর প্রভাবেই এমনটা ঘটে! এছাড়া Advanced Shock এর পেশেন্টে organ damage & decreased end organ perfusion এর চান্স থাকে। সেক্ষেত্রে যদি Pancreas damaged হয় তবে Insulin release কমে গিয়ে Hyperglycemia ডেভেলপ করতে পারে। তাই স্যার CBC, CRP করতে দিলেন। 

Total count of wbc, Neutrophil count, CRP সবই বেশি আসল। স্যারের চিন্তার সাথে রিপোর্টের রেজাল্ট মিলে গেল। এরপর স্যার Septicemia এর ট্রিটমেন্ট শুরু করলেন এবং পরবর্তীতে দেখা গেলো আস্তে আস্তে বাচ্চার blood glucose level ও নরমালে চলে আসতে শুরু করল (RBS 8mmol/L, 7mmol/L, 6mmol/L)।

এখন আরেকটা কথা, CRP, Total count of wbc, Neutrophil কেনো বাড়লো? 

কারণ- আমাদের শরীরের ইমিউন সিস্টেম inflammatory response এ কিছু Cytokines রিলিজ করে যেমন এক্ষেত্রে। IL 1, IL 3, IL 6.. এরা bone marrow কে স্টিমুলেট করে এবং wbc production বাড়ায়, তখন অনেক immature wbc ও সারকুলেসনে চলে আসে।

আবার আমরা জানি, CRP (C-Reactive Protein) হল একটি Acute Phase Reactant, যা তৈরি হয় লিভারে এবং inflammatory response এ তৈরি হওয়া সাইটোকাইন যখন লিভারকে স্টিমুলেট করে তখন লিভার থেকে CRP production ও বেড়ে যায়, যার নরমাল লেভেল হল <10 mg/L. 

What are the difference among Bacteremia, Septicemia & Sepsis? 

We all know, but just a reminder. Bacteremia is the simple presence of bacteria in the blood while Septicemia is the presence and multiplication of bacteria in the blood(Septicemia is also known as blood poisoning).

Sepsis is body's inflammatory response to a severe infection (SIRS= Systemic Inflammatory Response syndrome). If the SIRS criteria are negative it is very unlikely the person has sepsis.

On the other hand, Septicemia, meanwhile, is the infection itself. The main difference between sepsis and septicemia is that septicemia is a potential cause of sepsis. Though sometimes sepsis & septicemia are seen to be used as synonyms. (knowledge increases by sharing. plz correct me if needed!)

Special thanks to sir for sharing the case. May Allah bless him.

সংবাদটি শেয়ার করুন:

 


পাঠক কর্নার বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

ঢাকা ইউনিভার্সিটিতে চান্স না পেলে এখন মেডিকেলে পড়ে!

ঢাকা ইউনিভার্সিটিতে চান্স না পেলে এখন মেডিকেলে পড়ে!

মেইড ইন চায়না এখন শুধু জিনিসপত্রেই সীমাবদ্ধ নেই। শুরু হয়েছে হিউম্যান রিসোর্স…

মুলারিয়ান এজেনেসিস: প্রকৃতির অবিবেচক খেয়াল ও প্রমিতির কান্না

মুলারিয়ান এজেনেসিস: প্রকৃতির অবিবেচক খেয়াল ও প্রমিতির কান্না

প্রমিতি, বয়স- ১৬। এইচএসসি ১ম বর্ষে পড়ে। প্রাণবন্ত, উচ্ছ্বল প্রজাপতির মতো। যখন কথা…

সব মৃত্যুই দুঃখের, সুখের কোন মৃত্যু নেই!

সব মৃত্যুই দুঃখের, সুখের কোন মৃত্যু নেই!

তখন আমি সিওমেক হাসপাতালের ইন্টার্ন। মেডিসিন ওয়ার্ডে রাউন্ড দিচ্ছেন প্রফেসর ইসমাইল পাটোয়ারি…

ইন্টার্ন ডাক্তারদের আবার কষ্ট আছে নাকি?

ইন্টার্ন ডাক্তারদের আবার কষ্ট আছে নাকি?

আপনার বেতন কত? ছোটবেলায় শুনেছিলাম এ প্রশ্ন করা নাকি বেয়াদবি! সেই ভয়ে…

‘কেটা ফের জানতোক যে, পিঁপিয়া খাল্যে ছ্যালা ধলো হয়?’

‘কেটা ফের জানতোক যে, পিঁপিয়া খাল্যে ছ্যালা ধলো হয়?’

এক সদ্য গর্ভবতী রোগীকে কাঁচা পেঁপে খেতে নিষেধ করলাম। - আনারস আর কাঁচা…

ইন্টার্ন চিকিৎসকদের উদ্দেশ্যে কিছু কথা

ইন্টার্ন চিকিৎসকদের উদ্দেশ্যে কিছু কথা

ফাঁকিবাজির মহান ব্রত নিয়ে ইন্টার্নি শুরু করেছিলাম। আমি জন্মগত ভাবেই ফাঁকিবাজ। সবাই…



জনপ্রিয় বিষয় সমূহ:

দুর্যোগ অধ্যাপক সায়েন্টিস্ট রিভিউ সাক্ষাৎকার মানসিক স্বাস্থ্য মেধাবী নিউরন বিএসএমএমইউ স্বাস্থ্যমন্ত্রী ঢামেক গবেষণা ফার্মাসিউটিক্যালস স্বাস্থ্য অধিদপ্তর