ঢাকা      সোমবার ২২, অক্টোবর ২০১৮ - ৬, কার্তিক, ১৪২৫ - হিজরী



অধ্যাপক ডা. সালমা আফরোজ

সাবেক বিভাগীয় প্রধান, হেমাটোলজি, ঢাকা মেডিকেল কলেজ। 


‘বিয়ের আগে ওদের রক্ত পরীক্ষা করলে কোনো দুশ্চিন্তায়ই হতো না’

আজ আমার মনটা খুব ভাল। অফিসে পরিচিত মহিলা উনার বউমা ও নাতিকে নিয়ে দেখা করতে এসেছেন। নাতি ৩ বছরের ভীষণ প্রাণবন্ত। প্রায় ১৩/১৪ বছর আগে উনি ছেলের ইলেকট্রোফোরেসিস রিপোর্ট নিয়ে পাগলের মত আমার কাছে ছুটে এসেছিলেন। ছেলেই বাহক ছিল।

আমি বুঝিয়ে বলেছিলাম এতে ছেলের কোন অসুবিধা হবে না। কিন্তু ওটা যেন লেমিনেশন করে রেখে দেন। ছেলের বিয়ে দিবার সময় হবু বউয়ের রক্ত পরীক্ষা করে দেখে নেনও যেন বাহক না হয়।

উনি তখন ওই ছোট ছেলের বিয়ের কথা শুনে খুব হেসেছিলেন। কিন্তু উপদেশটা মনে রেখেছেন। ছেলে ডাক্তার হয়েছে।

বিয়ের আগে মেয়ে পক্ষের সাথে কথা বলে রক্ত পরীক্ষা করে নিশ্চত হয়ে বিয়ে দিয়েছেন। সেই ঘরের নাতি। ঢাকার বাইরে থাকেন তাই আগে আর দেখা করা হয়ে ওঠেনি। নাতির রক্ত পরীক্ষা করিয়েছেন কিনা জানতে চাইলে বললেন করেননি। কারণ বেশী হলেই বাহক হবে। ওরা বিদেশ যা যাচ্ছে দরকার হলে ওখানেই করবে।

ওই পরিবারের আনন্দের ভাগীদার হতে পেরে খুবই ভাল লাগলো। আমার উপদেশ মেনে চলার জন্য ধন্যবাদ দিলাম।

একটা ঘটনার সাথে কত অসংখ্য ঘটনা মনে পড়ে যায়। শ্যামলী আর অপু একে অপরকে পছন্দ করে। দুজনই ডাক্তারি পড়ত। পরিবারের লোকজন সম্পর্কটা জেনে গিয়েছিল। পাস করলে পারিবরিকভাবে বিয়ে হবে।

শ্যামলী জানে ওই এর বাহক। কিন্তু অপুর ব্যাপারে কোন চিন্তাই মাথায় আসেনি। অপুর জ্বর হলে রক্ত পরীক্ষা করলে ইলেকট্রোফোরেসিস করতে বলা হল।  কেবলই ফোরথ ইয়ারে পড়ে তাই কী হতে পারে খুব বেশী জানত না। শ্যামলী এটুকু জানতো কোন বাহককে বিয়ে করা ঠিক হবে না।

দুজনেই একসঙ্গে আমার কাছে আসলো। শ্যামলী কাঁদছে আর অপু গম্ভীর। কী বলবো মনটা আমারও খারাপ হলো, ওরাতো আমার সন্তানের মত।  ইলেকট্রোফোরেসিস রিপোর্টের জন্য অপেক্ষা করতে বললাম। বুঝালাম যদি ই বাহক হয় তবে কোনও চিন্তাই নাই। পরদিন আবার আসলো রিপোর্ট বিকালে দিবে। এক মুহূর্ত তখন ওদের এক যুগের মত মনে হচ্ছিল।

সন্ধ্যায় বিয়ে বাড়িতে ওরা ফোন করল উচ্ছ্বাস আর আনন্দে কলকল করে শ্যামলী বললো- ম্যাডাম ও ই বাহক। স্টেজে বর কনে দেখে আনন্দের ছবি ভাসলো।  ওরা এই দুদিন কষ্টটা পরিবারের লোকজনের কাছে শেয়ার না করে আমি ডাক্তার হওয়ায় আমার সাথে করেছিল যে কারণে প্রথমে কষ্ট ও পরে আনন্দে ভাগীদার হলাম। যদি রিপোর্ট অন্যরকম হতো তা হলে কী উপদেশ দিতাম!

কবির ও সুমনা গার্মেন্টে চাকরি করে। সুখেই ছিল ওরা। সুমনা গর্ভবতী হলো। ফলোআপে গিয়ে সুমনা বিটা বাহক পাওয়া গেল।

ডাক্তার কবিরেরও একই রিপোর্ট পেয়ে আমার কাছে পাঠালেন। ওদেরকে বাচ্চাটার বিভিন্ন সম্ভাবনার কথাই বুঝাই। বাচ্চার অসুবিধা বুঝে ব্যবস্থা নিবার জন্য গর্ভকালীন পরীক্ষা করতে বলি। তখন খরচ ছিল প্রায় চল্লিশ হাজার টাকা। ওরা পারবে না বলে জানায়। কারণ ওদের দুজনের বেতন মোট ছিল ১২ হাজার। আল্লাহর ওপর ভরসা করে ওরা চলে গিয়েছিল। জানি না কেমন আছে সুমনা ও কবিরের সংসার। অসুস্থ বাচ্চা নিয়ে প্রতিদিন যুদ্ধ করছে নাকি বাহক বা স্বাভাবিক বাচ্চা নিয়ে আনন্দে দিন কাটাচ্ছে? জানতে খুব ইচ্ছে হলো।

বিয়ের আগে যদি রক্ত পরীক্ষা করা যেত তবে কোন দুশ্চিন্তায়ই পড়তে হতো না। কারণ এই বিয়েই বারণ করা যেত।

আজ ৮ মে বিশ্ব থ্যালাসেমিয়া দিবস। শুধু এই দিনই না বছরের ৩৬৫ দিনই যেন এর বিরুদ্ধে আমরা লড়তে পারি এই প্রত্যাশা রইল।

আরও পড়ুন

►  থ্যালাসেমিয়ার বাহক হতে পারে যে কেউ!

►থ্যালাসেমিয়া রোগ প্রতিরোধের উপায়

► ‘বিয়ের আগে ওদের রক্ত পরীক্ষা করলে কোনো দুশ্চিন্তায়ই হতো না’

► অস্বাভাবিক গর্ভধারণ কেন হয়?

► বিয়ের আগে যে পরীক্ষাটি জরুরী

► রক্তশূন্যতা কি, কেন হয়, লক্ষণ ও করণীয়

►থ্যালাসেমিয়া প্রতিরোধে সচেতনতা সৃষ্টিকারী যোদ্ধারা

সংবাদটি শেয়ার করুন:

 


জাতীয় বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

স্বাস্থ্য অধিদপ্তর ভেঙে যাচ্ছে!

স্বাস্থ্য অধিদপ্তর ভেঙে যাচ্ছে!

মেডিভয়েস রিপোর্ট : শীগ্রই স্বাস্থ্য অধিদপ্তর ভেঙে পুনর্গঠিত হচ্ছে। বিভক্ত হয়ে স্বাস্থ্য শিক্ষা…

‘বাচ্চাকে দুধ দিতে হবে না, সকালে দেখবা আমি কী করি’

‘বাচ্চাকে দুধ দিতে হবে না, সকালে দেখবা আমি কী করি’

মেডিভয়েস রিপোর্ট : সারারাত বাচ্চাটি দুধের জন্য কান্নাকাটি করছিল। ওই মেয়ে ফোনে…

সিসিডি কোর্সে ভর্তির ফল প্রকাশ

সিসিডি কোর্সে ভর্তির ফল প্রকাশ

সার্টিফিকেট কোর্স অন ডায়াবেটোলজি –সিসিডির ২৯ তম (জানুয়ারি–জুন সেশনে) ব্যাচে ভর্তির জন্য নির্বাচিত…

তৃতীয় প্রফের পর একবছর পূর্ণ না হলেও দিতে পারবে ফাইনাল প্রফ

তৃতীয় প্রফের পর একবছর পূর্ণ না হলেও দিতে পারবে ফাইনাল প্রফ

মেডিভয়েস ডেস্ক:  মেডিকেলের তৃতীয় প্রফেশনাল পরীক্ষায় পাস করার পর একবছর পূর্ণ হওয়ার…

হাসপাতালে এসেই ‘মৃত’ সাপ জীবিত!

হাসপাতালে এসেই ‘মৃত’ সাপ জীবিত!

মেডিভয়েস রিপোর্ট : সাপের কামড় খেয়ে রোগী এসে ভর্তি হলো হাসপাতালে। সেই রোগীর…

ন্যাশনাল ডিবেট ক্যাম্পেইন-১৮ চ্যাম্পিয়ান পার্কভিউ মেডিকেল কলেজ

ন্যাশনাল ডিবেট ক্যাম্পেইন-১৮ চ্যাম্পিয়ান পার্কভিউ মেডিকেল কলেজ

মেডিভয়েস ডেস্ক: ন্যাশনাল ডিবেট ক্যাম্পেইন-১৮ এর সংসদীয় বিতর্কে পার্কভিউ মেডিকেল কলেজ সিলেট…

আরো সংবাদ














জনপ্রিয় বিষয় সমূহ:

দুর্যোগ অধ্যাপক সায়েন্টিস্ট রিভিউ সাক্ষাৎকার মানসিক স্বাস্থ্য মেধাবী নিউরন বিএসএমএমইউ স্বাস্থ্যমন্ত্রী ঢামেক গবেষণা ফার্মাসিউটিক্যালস স্বাস্থ্য অধিদপ্তর