ঢাকা বুধবার, ১৬ অক্টোবর ২০১৯, ১ কার্তিক ১৪২৬,    আপডেট ৪ ঘন্টা আগে
আয়েশা আলম প্রান্তী

আয়েশা আলম প্রান্তী

শিক্ষার্থী, হলি ফ্যামিলি রেড ক্রিসেন্ট মেডিকেল কলেজ


৩০ এপ্রিল, ২০১৮ ১২:২০

বহুমুখী প্রতিভার অধিকারী ডা. সৌরভ  

বহুমুখী প্রতিভার অধিকারী ডা. সৌরভ  

সাধারণত চিকিৎসকরা পড়াশোনা ছাড়া আর কিছু করেন না, এই ধারণা যারা রাখেন তাদেরকে আজ পরিচয় করিয়ে দিবো এমন একজন চিকিৎসকের সাথে যিনি পড়াশোনার পাশাপাশি নানা দিকে নিজের প্রতিভা দেখিয়েছেন এবং পাশাপাশি চিকিৎসা বিদ্যাতেও নিজের দক্ষতা প্রমান করছেন। 

২০০৬ সালে চট্টগ্রাম কলেজিয়েট স্কুল থেকে এসএসসি ও ২০০৮ সালে হাজী মুহাম্মদ মহসীন কলেজ থেকে এইচ এস সি পাশ করে এই মেধাবী ২০০৯ সালে মেধার প্রতিযোগিতায় টিকে যান ঢাকা মেডিকেল কলেজে। তার বাবাও একজন চিকিৎসক যিনি কমিউনিটি মেডিসিন বিভাগের প্রফেসর। তার বাবা ও চিকিৎসক বোনকে দেখে সৌরভ চিকিৎসক হওয়ার অনুপ্রেরণা পেতেন।

মেডিকেলের নিয়ম মাফিক জীবন, পরীক্ষা, পড়াশোনার মাঝেও এই চিকিৎসক সংগীত ও শিল্প-সংস্কৃতির প্রতি তার ভালবাসা হারিয়ে যেতে দেননি। মেডিকেল ৩য় বর্ষে পড়ার সময় গীটারে হাতেখড়ি বিখ্যাত সংগীত শিল্পী সন্ধি ভাইয়ের থেকে। এরপর থেকে গীটার প্রতিভা প্রদর্শন কখনো ঢাকা মেডিকেলের প্রোগ্রামে, কখনো রেডিও শোতে, কখনো নানা অনুষ্ঠানে। ঢাকা মেডিকেলের কে-৬৬ ব্যাচের এই চিকিৎসক মেডিকেল পাশ করে ইন্টার্নি করেন ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে। তিনি ও তার ডিএমসির বন্ধুরা মিলে গড়ে তোলেন তাদের অর্কেস্ট্রা ব্যান্ড ‘ঐকতান’। ডা. সৌরভ ও তার ব্যান্ডের সদস্যরা ঢাকা মেডিকেল কলেজ, রেডিও প্রোগ্রামসহ নানা জায়গায় পারফর্ম করেন। অসাধারন রেসপন্স পায় পুরা দলটি। 

ইন্টার্নশিপের পর সিরাজুল ইসলাম মেডিকেল কলেজে লেকচারার হিসেবে যোগ দেন। ২০১৫ থেকে ২০১৮ পর্যন্ত শিক্ষকতার এ যাত্রা অব্যাহত থাকে। ‘প্রত্যেকটি ছেলে মেয়ে আমার ছোট ভাই বোনের মতো। আর ওদের ছেড়ে আসাটা আমার জন্য কষ্টকর ছিল’আবেগজনিত ভাষায় জানালেন এই চিকিৎসক।  

২০১৭ সালের নভেম্বর মাসে এই মেধাবী চিকিৎসক এমডি (রেসিডেন্সী) পরীক্ষা দেন ও চান্স পান। তিনি এখন বর্তমানে ঢাকা মেডিকেল কলেজের ক্রিটিকাল কেয়ার মেডিসিন ইউনিটে এমডি (রেসিডেন্ট) হিসেবে কর্তব্যরত আছেন। এর ফাঁকে রেডিও জকির কাজটাও করে নিয়েছেন। ২০১৬-২০১৭ কাজ করেছেন হ্যালো ঢাকা ডট.নেট নামে একটি অনলাইন রেডিওতে রেডিও জকি হিসেবে। অর্থাৎ শুধু চিকিৎসা বিদ্যা জানেন না তিনি, মানুষকে কথা দিয়ে মন ভালো করার বিদ্যাও জানেন এই ডাক্তার সৌরভ।

অবসর সময়ে ডা. সৌরভ জিম ও ফটোগ্রাফি করতে ভালবাসেন এবং সিনেমা দেখেন। বাবা ও মা সব সময় ডা. সৌরভের পাশে থাকেন ও অনুপ্রেরণা দেন। 

এই মেধাবী চিকিৎসক ভবিষ্যতে একজন এমআরসিপি বিশেষজ্ঞ হতে ইচ্ছা পোষন করেন। এগিয়ে যান ডা. সৌরভ। আজ তার জন্মদিন। এই জন্মদিনে তার জন্য অনেক শুভকামনা।

আরও পড়ুন-

►মেডিকেল শিক্ষার্থী থেকে রেডিও জকি 

►ক্যারিয়ার গড়ুন পাবলিক হেলথে

►মানবতার টানে ও মানুষের সেবায়

►মেডিকেল ছাত্র থেকে রকস্টার

►মনজুরের ব্লাডম্যান 

►শিক্ষার আলো ছড়ানো ডাক্তার নাজমুল

►এক স্বপ্নময়ীর গল্পকথা

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত