ঢাকা রবিবার, ২০ অক্টোবর ২০১৯, ৫ কার্তিক ১৪২৬,    আপডেট ৪ ঘন্টা আগে
আয়েশা আলম প্রান্তী

আয়েশা আলম প্রান্তী

শিক্ষার্থী, হলি ফ্যামিলি রেড ক্রিসেন্ট মেডিকেল কলেজ


৩০ এপ্রিল, ২০১৮ ১০:২৫

মেডিকেল শিক্ষার্থী থেকে রেডিও জকি 

মেডিকেল শিক্ষার্থী থেকে রেডিও জকি 

৩য় পেশাগত এমবিবিএস পরীক্ষায়, মাইক্রোবায়োলজি পরীক্ষার তিনদিন আগে ছেলেটি ঢাকা ছেড়ে সুনামগঞ্জের হাওরে। না ঘুরতে যায়নি সে। গত বছরের সেই ভয়াবহ বন্যা কবলিত হাওরাঞ্চলে দূর্গত মানুষের পাশে দাঁড়াতে ত্রাণ নিয়ে তার ছুটে যাওয়া মেডিকেল শিক্ষার্থীদের সংগঠন ‘কিউরিস’ এর পক্ষ থেকে। পরে কিন্তু মাইক্রোবায়োলজি পরীক্ষায় পাশও করে গিয়েছিল শান্ত স্বভাবের এই ছেলেটি।

তার নাম রিফাত বিন রহমান নাঈম। ২০১০ সালে বি এ এফ শাহীন স্কুল থেকে এস এস সি এবং ২০১২ সালে নটরডেম কলেজ থেকে এইচ এস সি পাশ করেন তিনি। মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষায় শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজে ডেন্টাল ইউনিটে চান্স পেয়েও পরবর্তীতে ফুল স্কলারশিপে এমবিবিএস কোর্সে ভর্তি হন ডেল্টা মেডিকেল কলেজে। বর্তমানে ডেল্টা মেডিকেল কলেজে পঞ্চম বর্ষের শিক্ষার্থী তিনি।

স্কুল জীবন থেকে পড়াশোনার পাশাপাশি সহশিক্ষা কার্যক্রমে তার সাফল্য ছিল উল্লেখযোগ্য। শাহীন স্কুলের ফার্স্ট বয় রিফাতের ক্লাস এইটে ট্যালেন্টপুলে চতুর্থ স্থান, ‘এসো বাংলাদেশ গড়ি’ রোড শো এর কৃতি শিক্ষার্থী নির্বাচিত হওয়া ইত্যাদি যেমন একাডেমিক ক্যারিয়ারের সফলতা, তেমনি বাংলাদেশ শিশু একাডেমী কর্তৃক আয়োজিত জাতীয় শিশু কিশোর প্রতিযোগিতা, ভাষা প্রতিযোগে সাধারণ জ্ঞান, উপস্থিত বিতর্ক, রচনা লিখনে রয়েছে তার একাধিক পুরস্কার। ২০০৯ সালে ম্যাথ অলিম্পিয়াডে বিভাগীয় প্রথম রানার্স আপ হওয়া ছাড়াও ছিলেন আন্তঃশাহীন কুইজ প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন টিমের সদস্য। নিজের মেডিকেলেও সাংস্কৃতিক আয়োজনেও রয়েছে বিতর্ক এবং কুইজে চ্যাম্পিয়ন হবার অভিজ্ঞতা।

‘সোশ্যাল এক্টিভিস্ট’ রিফাত ‘কিউরিস ফাউন্ডেশন’ এর ফাউন্ডিং এক্সিকিউটিভ মেম্বার হিসেবে কাজ করছেন পথশিশুদের স্বাস্থ্য নিয়ে। পাশাপাশি যুক্ত রয়েছেন খ্যাতনামা ‘স্পার্ক এক্সসেলেরেটর এওয়ার্ড’ উইনিং প্রজেক্ট ‘ডাক্তার বাড়ি হেলথ কেয়ার’ এর শেয়ার হোল্ডার হিসেবে, যেখানে রয়েছে দেশে সর্বনিম্ন মূল্যে দুঃস্থদের জন্য বিভিন্ন প্যাথলজিকাল টেস্টের ব্যবস্থা। ভলেন্টিয়ার শিক্ষক হিসেবে বিভিন্ন বস্তিতে বাচ্চাদের ক্লাস নিয়ে থাকেন তিনি। এছাড়াও ‘আমাদের আনন্দ আশ্রম’ সংগঠনের মেডিকেল উইংয়ের হেড রিফাত।

লেখালেখির যাত্রায় বর্তমানে ফিচার রাইটার হিসেবে চিকিৎসক সমাজের খবর লিখছেন দেশের শীর্ষস্থানীয় জাতীয় দৈনিক পত্রিকা গুলোতে। পাশাপাশি রেডিও জকি হিসেবে রয়েছেন কালারস এফএম ১০১.৬ এ। সেখানেও মেডিকেল লাইফ নিয়েই একটি প্রোগ্রাম ‘হোয়াটস আপ ডক’ উপস্থাপনা করছেন, যেটি ইতোমধ্যেই জনপ্রিয়তা পেয়েছে। যুক্ত আছেন নিউরন পাবলিকেশন -এ মেডিকেল সহায়ক বইয়ের কো-এডিটর হিসেবে। কাজের স্বীকৃতি স্বরূপ গত বছরের বই মেলায় প্রকাশিত ‘তরুণ তারকাদের গল্প’ বইয়ে সারা দেশ থেকে নির্বাচিত শীর্ষস্থানীয় অভিনেতা, লেখক, ক্রিকেটারদের জীবনীর সাথে বিভিন্ন বিভাগে কাজ করে চলা মেডিকেল শিক্ষার্থী হিসেবে জায়গা করে নিয়েছিলেন তিনি।

ভবিষ্যতে চিকিৎসা পেশার পাশাপাশি নিজের ভাল লাগার কাজগুলো করে যাবার ব্যাপারে প্রত্যয় ব্যক্ত করলেন রিফাত। তার পথচলায় অনুপ্রেরণা হিসেবে বাবা, মা, শিক্ষক ডা. তানভীর ইসলামের নাম বিশেষভাবে উল্লেখ করেন তিনি।

আরও পড়ুন-

►বহুমুখী প্রতিভার অধিকারী ডা. সৌরভ

►ক্যারিয়ার গড়ুন পাবলিক হেলথে

►মানবতার টানে ও মানুষের সেবায়

►মেডিকেল ছাত্র থেকে রকস্টার

►মনজুরের ব্লাডম্যান 

►শিক্ষার আলো ছড়ানো ডাক্তার নাজমুল

►এক স্বপ্নময়ীর গল্পকথা

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত