আয়েশা আলম প্রান্তী

আয়েশা আলম প্রান্তী

শিক্ষার্থী, হলি ফ্যামিলি রেড ক্রিসেন্ট মেডিকেল কলেজ


২৮ এপ্রিল, ২০১৮ ০২:০৩ পিএম

ক্যারিয়ার গড়ুন পাবলিক হেলথে

ক্যারিয়ার গড়ুন পাবলিক হেলথে

পাবলিক হেলথ অথবা জনস্বাস্থ্য পেশাজীবীদের কাজ গুরুত্বপূর্ণ।  কারণ জনস্বাস্থ্য মানুষের দৈনন্দিন জীবনযাত্রার মাধ্যমে প্রত্যেকের জীবনে ব্যক্তি, পরিবার, সম্প্রদায়, জনগোষ্ঠী এবং সমাজের স্বাস্থ্য ও কল্যাণকে প্রভাবিত করে। জনস্বাস্থ্য পেশাজীবীরা সামাজিক, আচরণগত, আইনি, চিকিৎসা এবং অর্থনৈতিক বিষয়গুলির মধ্যে পারশপরিক জ্ঞান ব্যবহার করেন। তারা স্বাস্থ্যগত অবস্থা এবং স্বাস্থ্যের উন্নতি, স্থানীয়, জাতীয় ও বৈশ্বিক জনসংখ্যার জন্য স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করার জন্য অনেক প্রতিকূলতার মধ্যেও কাজ করেন।

বিশেষজ্ঞের কথা ও পরামর্শ: 

ডাক্তার আজিজ জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ এবং বিদেশী প্রশিক্ষিত মেডিকেল ডাক্তার। প্রায় এক দশক ধরে জনস্বাস্থ্য গবেষণা, কর্মসূচী এবং শিক্ষার ক্ষেত্রে কাজ করার অভিজ্ঞতা রয়েছে। তাঁর স্বাস্থ্যবিষয়ক  গবেষণা ও কাজ বিশেষত এপিডেমিওলজি। এই জনস্বাস্থ্য পেশাজীবী তাঁর গবেষণাপত্রের রেকর্ডে উল্লেখ করেছেন যে, সংক্রামক এবং অ-সংক্রামক রোগ প্রতিরোধে বিশেষ করে কার্ডিওভাসকুলার রোগ, তামাক, স্বাস্থ্যের প্রচার, স্বাস্থ্য ব্যবস্থার প্রতিরোধের জন্য আচরণগত ঝুঁকির কারণগুলো নিয়ে গভীরে কাজ করেন তিনি। উন্নয়নশীল দেশগুলোতে জনস্বাস্থ্য প্রোগ্রাম পরিচালনার অভিজ্ঞতা ডাক্তার অজিজকে কীভাবে জনস্বাস্থ্য ক্ষেত্রে কর্মজীবন গড়ে তুলতে হবে তার অভিজ্ঞতা দিয়ে যায় প্রতিনিয়ত।

এখন তিনি  জনস্বাস্থ্য ও মহামারী শিক্ষায় নিয়োজিত আছেন, স্নাতক এবং স্নাতকোত্তর পর্যায়ে উভয় ক্ষেত্রে অস্ট্রেলিয়া তার কর্মজীবনে আরেকটি মাত্রা যোগ করেছে। তিনি মেলবোর্নে অস্টিন ক্লিনিক্যাল স্কুল অব নার্সিং, লাট্রোব বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনিয়র লেকচারার হিসেবে কাজ করছেন। স্নাতকোত্তর ও স্নাতকোত্তর নার্সিং ছাত্রদের গবেষণা ও গবেষণা বিষয়ক নেতৃত্বের মূল ভূমিকা পালন করেন। তার গবেষণা যেভাবে উল্লেখযোগ্য ভাবে অবদান রাখছে, সেইভাবেই উচ্চতর গবেষণা ছাত্রদের পরামর্শ দিচ্ছে আর সাহস ও সহযোগিতা দিয়ে যাচ্ছেন। 

ডা. মোহাম্মদ আজিজুর রহমান, এমবিবিএস, এমপিএইচ, পিএইচডি
জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ সিনিয়র লেকচারার, অস্টিন ক্লিনিক্যাল স্কুল অফ নার্সিং, লাট্রোব বিশ্ববিদ্যালয়
একাডেমিক, ফার্মার হেল্থ ন্যাশনাল সেন্টার, মেডিসিনস্কুল, দেকিন বিশ্ববিদ্যালয়
অনারারি সিনিয়র ফেলো, আদিবাসী স্বাস্থ্য ইক্যুইটি ইউনিট, মেলবোর্ন বিশ্ববিদ্যালয়
ফেলো, ইনস্টিটিউট অফ ব্রেদিং অ্যান্ড স্লিপ (আইবিএএস), অস্ট্রেলিয়া
শিক্ষা ও প্রোগ্রাম পরিচালক, হারহার্ট
সদস্য, অস্ট্রেলিয়ার পাবলিক হেলথ এসোসিয়েশন এবং এক্সিকিউটিভ সদস্য, পিএইএএভিক শাখা কমিটি
সচিব, স্বাস্থ্য প্রচার SIG, অস্ট্রেলিয়ার পাবলিক হেলথ এসোসিয়েশন (PHAA)
রাষ্ট্রীয় প্রতিনিধি (ভিক্টোরিয়া), আন্তর্জাতিক স্বাস্থ্য এসআইজি, অস্ট্রেলিয়ার পাবলিক হেলথ অ্যাসোসিয়েশন (পিএইএএ)
যুগ্মসচিব, ভিক্টোরিয়ান বাংলাদেশী কমিউনিটি ফাউন্ডেশন (ভিবিএফএফ)
কো-কনফেক্টিভ, রেডিওবাংলা মেলবোর্ন, ৩zzz(৯২.৩এফএ)
এক্সিকিউটিভ সদস্য, বাংলাদেশ মেডিকেল সোসাইটি অফ ভিক্টোরিয়া (বিএমএসভি)

ডাক্তার আজিজ আমাদের জনস্বাস্থ্য কর্মকাণ্ডের জন্য কোন ব্যক্তির জন্য নির্দেশনপথ সম্পর্কে কিছু মূল্যবান তথ্য প্রদান করে। জনস্বাস্থ্যের জন্য আবেগ ও উদ্দীপনা থাকতে হবে, যদি সে জনস্বাস্থ্যের জন্য ভাল কর্মজীবন গড়ে তুলতে চায়; অন্যথায় তার পক্ষে এটি সত্যিই কঠিন হবে। এটি একেবারে সহজ নয়। এটা আমার বিশ্বাস। ডাক্তার আজিজ ব্যাখ্যা করেছেন এভাবে। 

অনেক ডাক্তার বাংলাদেশে এমপিএইচ ডিগ্রি সম্পন্ন করার জন্য বা বিদেশ থেকে এটিকে পূরণ করার বিষয়ে একটি বিভ্রান্তিকর অবস্থা রয়েছেন। এখানে তাদের জন্য একটি সহজ সমাধান রয়েছে। বিদেশে এমপিএইচ অথবা পিএইচডি করবার জন্য, অবশ্যই ভাল জ্ঞান অর্জন করতে হবে এই সকল বিষয়ে:
১. গবেষণা সম্পর্কে জ্ঞান রাখা দরকার।
২. সুপারিশ সহজলোভ্য করবার জন্য যা করনীয় 
৩. থিসিস 
৪. প্রাথমিক বায়োস্ট্যাটিক্স কোর্স 
৫. গবেষণা প্রস্তাব লেখার অভ্যাস 

দুর্ভাগ্যবশত, প্রায় ৮0% বাংলাদেশী মেডিক্যাল শিক্ষার্থীদের গবেষণা সম্পর্কে কিছু জ্ঞান আছে, এদের মধ্যে অনেকের শূন্য জ্ঞান রয়েছে। সুতরাং দেশ থেকে এমপিএইচ (পাবলিক হেলথ) সম্পূর্ণ করলে আপনার জন্যই সহজ হবে পরের পথ অনেকটা। এটা শেষ করে আপনি উচ্চ শিক্ষা বা কাজের জন্য দেশের বাইরে সহজেই যেতে পারবেন। 

এমপিএইচ বিস্তারিত:
পাবলিক হেলথ (এমপিএইচ) করতে ১ থেকে ২ বছর লাগে। বিশ্ববিদ্যালয়ের উপর নির্ভর করে এটি পরিবর্তিত হয়। স্বাস্থ্যবিজ্ঞান (এমবিবিএস, নার্সিং) এবং সামাজিক বিজ্ঞান একটি স্নাতক ডিগ্রী থাকা জরুরি এর জন্য।

শুধুমাত্র বিএমডিসি স্বীকৃত এমপিএইচ ডিগ্রি নিপসম ও বিএসএমএমইউ দ্বারা প্রদান করা হয়। অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয় এমপিএইচ (নর্থ সাউথ, ব্র্যাক) ভাল মানের এবং জনস্বাস্থ্য ক্ষেত্রে আরও বেশি সাহায্য করতে সহায়তা করবে। কিন্তু সভাবতই বিএমডিসি এর স্বীকৃতি মিলবে না। 

পাবলিক স্বাস্থ্য বিষয়ক চাকরির ক্ষেত্র: 
- সরকার বিভাগে- সরকারি প্রশাসন, পাবলিক হেলথ এবং কমিউনিটি মেডিসিন সেক্টর। 
- বেসরকারী বিভাগে- বেসরকারী এনজিও এর মত আইসিডিআরবি, ব্র্যাক, ইউএসএআইডি, ইউনিসেফ, জাতিসংঘ, সিলিগাও, ওজিএসবি, ড্যামিয়েন, সিআইপিআরবি, আরবিআইএস, পানি সরবরাহ ইত্যাদি।
- কমিউনিটি মেডিসিন শিক্ষক 
- গবেষণা সহকারী 
- হাসপাতালের প্রশাসক
- স্বাস্থ্য গবেষণা পরিকল্পনা
- Epidemologist

নিপসোমে এমপিএইচঃ
প্রার্থীদের যোগ্যতা যাচাইয়ের জন্য ভর্তি পরীক্ষা প্রদর্শিত হবে। সাধারণত প্রতি মার্চ মাসের শেষ শুক্রবারে ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয় এবং ফেব্রুয়ারিতে আবেদনপত্র আমন্ত্রিত হয়।

যোগ্যতার মানদণ্ড:

• এমবিবিএস ডিগ্রি সহ আবেদনকারী: বিএম এবং ডিসি দ্বারা স্বীকৃত এমবিবিএস ডিগ্রী + এক বছরের ইন্টার্নশীপ / আবাসিক / সমতুল্য প্রশিক্ষণ একটি স্বীকৃত হাসপাতালে + ১ বছর জনস্বাস্থ্য এলাকায় কর্মক্ষেত্রের অভিজ্ঞতা।
• বি.ডি.এস ডিগ্রি সহ আবেদনকারী: বি.এম. ও ডিসি +১ বছরের ইন্টার্নশীপের স্বীকৃতি স্বরূপ বি.এস.এস ডিগ্রি ১ বছর পাবলিক হেলথ এরিয়া অভিজ্ঞতা।
• নার্সিং ডিগ্রির সাথে আবেদনকারী: বাংলাদেশ নার্সিং কাউন্সিল দ্বারা স্বীকৃত নার্সিংয়ে বিএসসি + ২ বছর জনস্বাস্থ্য ক্ষেত্রে কাজ অভিজ্ঞতা।
• এমপিএইচ এবং এমপিএইচ (কমিউনিটি মেডিসিন), এমপিএইচ (প্রজনন ও শিশু স্বাস্থ্য), এমপিএইচ (অ সোনসিবল ডিজিজ)-এর ক্ষেত্রে: এমবিবিএস বা এম.এম.বি. এর সমতুল্য মেডিকেল স্নাতক এবং বিএম ও ডিসি দ্বারা স্বীকৃত সমমানের ডিগ্রী আবেদনপত্রের জন্য যোগ্য।

আবেদনকারীর বয়স: বিএসএমএমইউ নিয়ম প্রযোজ্য হবে। সরকারি প্রার্থীদের জন্য সরকারের নিয়ম প্রযোজ্য হবে।

ভর্তির পরীক্ষা: সকল আবেদনকারীকে ১০০ টি প্রশ্নের লিখিত MCQ টাইপ পরীক্ষা করতে হবে, যার মধ্যে ২০% ইংরেজি ভাষা পরীক্ষার জন্য বরাদ্দ করা হয়। ভর্তির জন্য বিবেচনা করা হলে একজন প্রার্থী অন্তত ৪০% নম্বর অর্জন করতে হবে।

 চেষ্টার বিষয়গুলো:
- কমিউনিটি মেডিসিন ৯০নম্বর
- ইংরেজি ১০ নম্বর

আসন: মোট আসন সীমিত।
সময়কালঃ এম ফিল ২ বছর, এম পি এইচ ১৮ মাস। ক্লাস সময়সূচি সপ্তাহে ৫ দিন, সম্পূর্ণ আবাসিক। এটি দেড় বছর লাগে।
ভর্তি ফি ১৩০০০ /- টাকা, সেমিস্টারে ফি প্রতি সেমিস্টারে ১৩০০০ / - টাকা এবং মোট খরচ: ৫২০০০ / - টাকা 

নিপসোমে অধ্যয়নের উপকারিতা:
নিপসামে এমপিএইচ প্রোগ্রাম সম্পন্ন করার ফলে কিছু ভাল সুযোগ পাওয়া যাবে:
- নিপসমে শিক্ষক। অসাধারণ ফলাফল এজন্য প্রয়োজনীয়।
- কমিউনিটি মেডিসিনে মেডিকেল কলেজে শিক্ষক। সহযোগী অধ্যাপক-এ এমফিল/ পিএইচডি হওয়ার জন্য প্রয়োজনীয়।
- আইপিএইচ, আইপিএএন, ডিজিএইচএস, আইইডিসিআর-এর বিভিন্ন পদ, জুনিয়র ক্লিনিকস, ডেপুটি ম্যানেজার, লাইন ম্যানেজার, লাইন ডিরেক্টর ইত্যাদি পোস্ট।
- UNFPO / সিভিলসার্জন / ডিডিইত্যাদি
- এনজিওতে সরকারী চাকুরীর বিভিন্ন প্রকল্প

ব্র্যাক ইউনিভার্সিটি এমপিএইচ প্রোগ্রাম:

- এমএমএইচএইচ ৫১ ক্রেডিট আবাসিক প্রোগ্রাম যা বছরের প্রথম দিকে শুরু হয় এবং ১২ ব্যাপী চলে থাকে। এই সময়ের মধ্যে ২ থেকে ৩ সপ্তাহের ছুটি দেওয়া হয়।
প্রোগ্রাম-এপিডাইমোলোজি, বায়োস্ট্যাটিক্স, মেডিকেল ওথ্রোপলজি, গুণগত ও পরিমাণগত মিশ্র গবেষণা পদ্ধতি, স্বাস্থ্য ব্যবস্থাপনার ব্যবস্থা, স্বাস্থ্য অর্থনীতি প্রভৃতি।
- প্রতিষন ফি: ৭৫০০০/- টাকা। ভর্তি পরীক্ষা ফলাফল অনুযায়ী ১০০% ছাড় এবং বৃত্তি পাওয়া যায়।
যোগ্যতা মাপকাঠি: স্বাস্থ্য বিজ্ঞান ও সামাজিক বিজ্ঞান (ঔষধ, নার্সিং ইত্যাদি) ব্যাচেলর বা মাস্টার্স ডিগ্রী।
- ভর্তি সময় জ্ঞান হল: জানুয়ারী, এপ্রিল, আগস্ট।

ব্র্যাক থেকে এমপিএইচ সম্পন্ন করার সুবিধা:
- ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয় এবং তাদের দক্ষ থিসিস প্রোগ্রামের বিশ্বব্যাপী স্বীকৃতি যা একটি ভাল চাকুরী জীবন পেতে আরও ভাল থিসিসের কাজ করতে স্নাতককে প্রস্তুত করবে।
- বিআরএপি এমপিএইচ প্রোগ্রাম প্রায় সব এমপিএইচ বিষয় অন্তর্ভুক্ত করে, যেগুলি জনসাধারণের জন্য জনস্বাস্থ্যের ভাল জ্ঞান প্রদান করবে।
ব্র্যাক ইউনিভার্সিটি, নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটি এমপিএইচ প্রোগ্রামগুলি সরবরাহ করে। তাদের বিস্তারিত তথ্যের জন্য তাদের ওয়েবসাইটের মাধ্যমে যেতে অনুরোধ করা হয়।

সান্ধ্যকালীন / পার্টটাইম এমপিএইচ:
 
যারা চাকরি ও পড়াশোনার পাশাপাশি, এমপিএইচ করতে চান তাদের জন্য রয়েছে নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটি ( NSU),IUB(Independent university Bangladesh), AIUB( আমেরিকান ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি), State university ও Bangladesh university of health Sciences. এডমিশন টেস্ট দিয়ে সেমিস্টার অনুযায়ী ভর্তি হওয়া লাগে। খরচ পড়বে দুই লাখ থেকে তিন লাখ। ইউনিভার্সিটির উপর তা নির্ভর করবে। ক্লাস করতে হয় শুক্রবার অথবা সপ্তাহে যে কোন ২-৩ দিন। যদি দেশের বাইরে যাওয়ার অথবা বেসরকারী এনজিওতে কাজ করার ইচ্ছা থাকে তাহলে এ ধরনের এমপিএইচ কার্যকরী। তবে বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয়ের এমপিএইচ বিএমডিসি স্বীকৃত নয় এটা মাথায় রেখে করতে হবে। 

এমপিএইচ করলেই কি চাকরি পাওয়া যাবে?
  
এটা সবার মনে একটা কমন প্রশ্ন। দুঃখজনক হলেও সত্যি, উত্তর হলো না। এমপিএইচ করলেই চাকরি পাওয়া যাবে এ ধরনের মামসিকতা থাকলে এমপিএইচ আপনার জন্য না। কারণ এমপিএইচ একটি মাস্টার্স ডিগ্রী, বাকি ১০টা সাধারণ মাস্টার্সের মত। তাই এটা আপনার চাকরির নিরাপত্তা দিবে না। চাকরি পাবেন কিনা তা নির্ভর করবে আপনার রিসার্চের অভিজ্ঞতা, কর্মদক্ষতা, যোগাযোগ ক্ষমতা ও উপস্থাপনা শৈলী, ইংরেজীতে দক্ষতা, ভাল রেজাল্ট, ফ্যাকাল্টিদের সাথে ভালো যোগাযোগ ও আপনার নেটওয়ার্কিং এর উপর। অনেকে পার্ট টাইম এমপিএইচ করেও খুব ভাল করছেন, আবার অনেকে অনেক ভাল জায়গা থেকে করেও হতাশায় ভুগছেন। প্রচন্ড প্রতিযোগিতামূলক এই লাইনে আপনাকে টিকে থাকতে হবে নিজ দক্ষতা দিয়ে। 

এমপিএইচ এর পরে পিএইচডি ডিগ্রি অর্জনের জন্য:
এমপিএইচ-এর পরে পিএইচডি অর্জন - এটি সর্বদা প্রয়োজনীয় নয়। একজন শিক্ষক বা এনজিও কর্মী হিসাবে কাজ করার জন্য পিএইচডি দরকার হয় না তবে কেউ যদি গবেষণা ক্ষেত্রে কর্মজীবন চালিয়ে যেতে আগ্রহী হয় তবে বিদেশে প্রয়োজনীয় পিএইচডি পেতে ডকুমেন্টগুলো প্রয়োজন:
- টেস্টস্কোর (GRE,TOEFL,আইইএলটিএস)
- প্রাতিষ্ঠানিক অসাধারণতা
- Recommendations
- গবেষণার অভিজ্ঞতা
- প্রকাশনা 

এমপিএইচ -এর পর পিএইচডি সুযোগ:
ভাল পিএইচডি সুযোগের জন্য যা প্রয়োজন।
প্রথমত: সিদ্ধান্ত কোথায় পিএইচডি করা হবে ,কোন দেশে।
এমপিএইচ প্রোগ্রামে পুরোপুরি অর্থায়ত্তবৃত্তি প্রাপ্তিতে সুইডেন ছাড়া প্রায় অসম্ভব।
কিন্তু পিএইচডি প্রার্থী হিসাবে, বৃত্তি প্রাপ্তির সুযোগ বেশি। দেশ বেছে নেওয়ার পর, একজনকে আইইএলটিএস, জিআরই বা অন্যান্য পরীক্ষায় উপস্থিত থাকতে হবে ও ভাল করতে হবে। 
যদি অস্ট্রেলিয়ান বা ইউরোপীয় বিশ্ববিদ্যালয় হয়, IELTS প্রয়োজন হয়।
দ্বিতীয়ত: বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েব সাইট অনুসন্ধান এবং ভর্তি অফিসে ইমেল পাঠানো। বৃত্তির জন্য নির্দিষ্ট সময়সীমা নির্ধারণ করা আবশ্যক।
তৃতীয়ত: বৃত্তি প্রদানের লক্ষ্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটটি পরীক্ষা করে ফ্যাকাল্টি নির্বাচন করে তাকে / তার সাথে যোগাযোগ করুন।

এটা সর্বদা মনে রাখা উচিত যে গবেষণা প্রবন্ধ বৃত্তি প্রাপ্তিতে সর্বদা বড় ভূমিকা পালন করে। কখনও কখনও রেসাল্ট এর মানদণ্ডে কম যোগ্যতা অর্জনকারী একটি ছাত্র/ছাত্রী বৃত্তি লাভ করে কারণ গবেষণা ও প্রকাশনায় তার উচ্চ দক্ষতা থাকে। তাই এটি প্রয়োজনীয়। মনে রাখবেন গবেষণার ব্যাপারে গভীর ধারণা আপনাকে অনেক ক্ষেত্রে উতরে দেবে। 
আশা করি এটি সকলের জন্য পাবলিক হেলথ ক্যারিয়ারের ধারণাটি পরিষ্কার করবে।
তত্ত্বাবধান ও সহযোগিতার জন্য ডাক্তার আজিজ স্যারকে বিশেষ ধন্যবাদ।


 

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত