ঢাকা      বুধবার ২২, অগাস্ট ২০১৮ - ৬, ভাদ্র, ১৪২৫ - হিজরী



আয়েশা আলম প্রান্তী

শিক্ষার্থী, হলি ফ্যামিলি রেড ক্রিসেন্ট মেডিকেল কলেজ


এক স্বপ্নময়ীর গল্পকথা 

প্রায় ৩৫০০ মেম্বার নিয়ে বাংলাদেশের সর্ববৃহৎ মেডিকেল শিক্ষার্থীদের সংঘঠনটির নাম আইএফএমএসএ বাংলাদেশ (ইন্টারন্যাশমাল ফেডারেশন অব মেডিকেল স্টুডেন্টস এ্যসোসিয়েশন)। আর এই সংগঠনের প্রধান হিসেবে, প্রেসিডেন্ট পদে নিযুক্ত রয়েছেন সৈয়দা ফাতেমা আলম, শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজের ৫ম বর্ষের ছাত্রী। সৃজনশীল মানুষ হিসেবে মেডিকেলে আসার পর থেকেই শিক্ষা ব্যবস্থার কিছু অসংগতি তাকে ভাবিয়ে তোলেন।

এরই মধ্যে ২০১৫ সালে ডাক আসে বাংলাদেশের প্রথম মেডিকেল স্টুডেন্টস কংগ্রেস BIMSSCON আয়োজনের, আর সম্প্রিক্ততা শুরু হয় ফাতেমারও এম্বাসেডর হিসাবে। সেখানেই জন্ম IFMSA Bangladesh এর। ২০১৫ থেকে আইএফএমএসএ বাংলাদেশের যাত্রা শুরু এবং একই সাথে সৈয়দা ফাতেমার যাত্রার শুরু এই সংগঠনের সাথে। এরপর অত্যন্ত সুনিপুনতার সাথে ফাতেমা Training Support Division এর দায়িত্ব পালন করেছেন। মেডিকেল শিক্ষার্থীদের বিবিধ বিষয়ে প্রশিক্ষনের ব্যবস্থা করেছেন। দেশের ভবিষ্যৎ চিকিৎসকদের মধ্যে গবেষণার প্রয়োজনীয়তা উপলব্ধি করে SCO Research শীর্ষক ছয় মাসব্যাপী গবেষণা প্রশিক্ষনের আয়োজন করা হয়। IMFSA BD এর পক্ষ থেকে যার অন্যতম আয়োজক ছিলেন ফাতেমা। 

ভবিষ্যত চিকিৎসকদের সার্জারি ভীতি কাটানো এবং সুদক্ষ করে গড়ে তোলার লক্ষ্যে আয়োজন করা হয় কয়েকটি কর্মশালার। তামাকের ক্ষতিকর প্রভাব সম্পর্কে  জনসচেতনতা সৃষ্টির মাধ্যমে তামাক বিরোধী প্রজন্ম গড়ে তোলার লক্ষ্যে এবং মেডিকেল শিক্ষার্থীরা কিভাবে অন্যদের এবিষয়ে পরামর্শ প্রদানে অবদান রাখতে পারে, সে উদ্দেশ্যে আয়োজন করা হয় ‘Beat Tobacco, No Tobacco’ নামক দীর্ঘস্থায়ী প্রজেক্টের।

আমাদের দেশে সুচিকিৎসা এখনো যখন একটি সুবিধা হিসেবে গণ্য হয়, আন্তর্জাতিকভাবে ‘সুস্বাস্থ্য নিশ্চয়তা’ মানবাধিকার গুলোর মধ্যে অন্যতম। এই বিষয়কে মেডিকাল স্টুডেন্ট ও চিকিৎসকদের মধ্যে পরিচিত করতে আয়োজন করা হয় ‘Health As Human Right’ প্রশিক্ষণের। জরুরি মুহুর্তে দিশেহারা না হয়ে রোগীর বা দূর্ঘটনা গ্রস্থর জীবন বাঁচাতে পারে "সিপিআর: কার্ডিও পালমোনারি রেসাসিটেশন" এই লক্ষ্যকে সামনে রেখে মেডিকেল শিক্ষার্থীদের জন্য সারা দেশে কয়েক জায়গায় সিপিআর প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়। ফাতেমা নিজেও CPR এর সার্টিফাইড ট্রেইনার। এই সব হুলোয় সাড়া জাগানো অন্যতম প্রধান আয়োজক  ও উদ্যোক্তা ছিলেন সৈয়দা ফাতেমা আলম।

IFMSA এর প্রজেক্ট "গ্লোবাল ক্লাইমেট চেঞ্জ এ্যওয়ারনেস" কাজ করে পরিবেশ দূষণ রোধে এবং জলবায়ুর পরিবর্তন রোধে সচেতনতা সৃষ্টিতে। এই প্রজেক্টে বাংলাদেশের প্রধান হিসেবে দায়িত্ব্ররত আছেন ফাতেমা আলম এবং পরিবেশ দূষণ রোধে সচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে তিনি IFMSA BD এর টিম নিয়ে অনেক ইভেন্টস করেন যা ভবিষ্যত চিকিৎসকদের পরিবেশ বাঁচাতে ভাবুক করে তোলে।

২০১৬ সালে অনুষ্ঠিত ২য় BIMSSCON ছিল IFMSA BD'র সর্ববৃহৎ অনুষ্ঠান। প্রায় ৮০০ প্রতিযোগী এবং দেশের গণ্যমাণ্য এতে উপস্থিত ছিলেন। আন্তর্জাতিক এই কনফারেন্সের পাবলিক রিলেশনের দায়িত্বে ছিলেন ফাতেমা আলম। তার উদ্যোগে BIMSSCON ২০১৬ এর ছিল ১৭টি আন্তর্জাতিক পার্টনার কংগ্রেস এবং যোগাযোগ স্থাপিত হয় বাংলাদেশের সাথে অন্যান্য দেশের মেডিকাল স্টুডেন্টদের।

এতে বিশ্ব দরবারে নিজেদের যাচায়ের সুযোগ পান মেডিকেল স্টুডেন্টরা। এর পাশাপাশি IFMSA BD এর সদস্যগণ মানবতার টানে কখনো যান উত্তরবঙ্গে বন্যার্তদের সাহায্য তো কখনো যান উখিয়ায়, কখনোবা রাজবাড়ি।

এই একনিষ্ঠ ভাবে ফাতেমার পারদর্শিতা, নেতৃত্বের গুনাবলী, সংগঠন ও নিজ দেশের মেডিকেল শিক্ষার্থীদের মানোন্নয়ন এর জন্য তার নিস্বার্থ আত্মত্যাগের  জন্য আজ বাংলাদেশের সর্ববৃহৎ মেডিকেল স্টুডেন্ট সংগঠনের প্রেসিডেন্ট মনোনিত হয়েছেন। তার দৃঢ়বিশ্বাস, মেডিকেল শিক্ষার্থী ও চিকিৎসকদের মানোন্নয়ন এবং উহার যথাযথ প্রয়োগ ছাড়া দেশে চিকিৎসা ব্যবস্থার মানোন্নয়ন সম্ভব নয়। এবংদারিদ্রতার সাথে লড়তে টেকসই চিকিৎসা নীতির কোন বিকল্প নেই। সততা এবং পরিশ্রমের অভ্যাস থাকলে জীবনে কোন কিছুই অসম্ভব নয় বলে বিশ্বাস করেন তিনি।

বাংলাদেশের মেডিকেল সেক্টরে ইতিবাচক এবং স্থায়ী পরিবর্তন আনতে তিনি তার পরিবারের প্রতি সর্বদা কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেন। ফাতেমা আলমের এমন নি:স্বার্থ নেতৃত্বকে আমরা সাধুবাদ জানাই।

সংবাদটি শেয়ার করুন:

 


ফিচার বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

সিপিঅার একটি জীবন রক্ষাকারী চিকিৎসা উদ্যোগ

সিপিঅার একটি জীবন রক্ষাকারী চিকিৎসা উদ্যোগ

সিপিআর কি? কার্ডিও-পালমোনারি রিসাসিটেশন (সিপিআর) হল একটি জীবন রক্ষাকারী চিকিৎসা কৌশল। সাময়িকভাবে…



জনপ্রিয় বিষয় সমূহ:

দুর্যোগ অধ্যাপক সায়েন্টিস্ট রিভিউ সাক্ষাৎকার মানসিক স্বাস্থ্য মেধাবী নিউরন বিএসএমএমইউ স্বাস্থ্যমন্ত্রী ঢামেক গবেষণা ফার্মাসিউটিক্যালস স্বাস্থ্য অধিদপ্তর