ঢাকা শুক্রবার, ১৮ অক্টোবর ২০১৯, ৩ কার্তিক ১৪২৬,    আপডেট ৬ ঘন্টা আগে
হাফিজ উদ্দিন নাঈম

হাফিজ উদ্দিন নাঈম

শিক্ষার্থী, শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ, ঢাকা। 


১৮ এপ্রিল, ২০১৮ ১২:২৭

আজও আমি লাস্ট বেঞ্চার!

আজও আমি লাস্ট বেঞ্চার!

সেই একটা সময়ের কথা। ক্লাসের শেষ বেঞ্চে আমাকে দেখা যেত। খুব বেশি ভাল ছাত্র ছিলাম না আবার একেবারে গর্দভও ছিলাম না। মোটামুটি পাশ করে যেতাম। তারও হয়তো অনেক ব্যাপার আছে। হোস্টেলে থাকতাম, সেভেন এইটে কোন প্রাইভেট পড়তাম না যেখানে একই ক্লাসের মোটামুটি ৯০ ভাগ স্টুডেন্টের প্রাইভেট টিচার ছিল। হয়তো অনেকে বলবেন পড়ালেখা নিজের কাছে, হ্যাঁ ঠিক আছে সব তারপরও বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে প্রাইভেটের গুরুত্ব অনেক।

এইটে এক ফ্রেন্ডকে বলেছিলাম সাইন্সে পড়বো। সে আমার কথা শুনে মোটামুটি মুচকি হাসি দিল কিছুটা ইনসাল্ট করে! ক্লাসের প্রথম সারির স্টুডেন্টরা ছিল আমাদের জন্য এলিয়েন। দেখতাম শুধু তেমন একটা কথা বলার সুযোগ কিংবা সাহস পেতাম না। ক্লাসের স্যারদের আচরণ আরো বাজে ছিল। খারাপ ছাত্ররা পড়া সঠিকভাবে দিলেও হয় না। 

ছাত্র সংসদের ভাইরাও মূল্য দিত না। হয়ত খারাপ ছাত্র ছিলাম তাই। আমার থেকে অনেক নতুনকে অনেক বেশি কদর করত। শুধু তাকিয়ে থাকতাম আর একটা দিনের কথা মনের মধ্যে বেঁধে রাখতাম এই ভেবে হয়তো একদিন সময় সবকিছুকে অন্যরকম করে দিবে।

প্রায় পাঁচ কি ছয় বছর পর সেদিন কলেজে যাওয়ার সময় এক ফ্রেন্ডের সাথে দেখা, সে এখন বিখ্যাত কোন এক সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ে। সালাম দিয়ে পরিচয় দিলাম। কিছু কথাবার্তার পর ও আমার ফোন নাম্বারটা চাইল।
 
কেন যেন সেদিনের কথা মনে পড়ে গেল। এক সময়ই এরাই আমাদের মত লাস্ট বেঞ্চারদের ছাত্রই মনে করত না। আজ সে আমার ফোন নাম্বার চাইছে! সেদিনের স্যারদেরকে আজ পরিচয় দিলে ফোন নাম্বার চায়। ছাত্র সংসদের ভিপির কাছে এখন আমার সেই কদর।

অথচ আমি এভাবে শুধু মানুষের অবস্থান দিয়ে মানুষকে মূল্যায়ন চাইনি। কাউকে অবহেলা করতে নেই। দেখেছেন কি? রোম সম্রাটের মুকুট এখনও আছে তার সিংহাসনও আছে শুধু সেদিনের কায়সার নেই।

আজও মেডিকেল জীবনে আমার একই অবস্থা। আমি লাস্ট বেঞ্চার। কিংবা অসংখ্য প্রতিভাবান তরুণের ভীড়ে এখানেও অনেকের কাছে আমার মূল্য নেই বললেই চলে। মনে পড়ে সেদিনের কথা যখন ফার্স্ট ইয়ারে ভর্তি হয়েছিলাম নিজেকে কিং মনে হয়েছিল। যাদের কাছে কিং ছিলাম হয়তো তাদের কাছে আগের সেই আমি নেই। বলা চলে আমার প্রয়োজন ফুরিয়ে গেছে।

আজও সেদিনের কথাগুলো মনে পড়ে যাচ্ছে, যখন আমি ক্লাস এইটে ছিলাম। আজকেও আরেকটা সময়ের অপেক্ষায় আছি। কী হতে পারবো আমি জানিনা। আল্লাহ ভাল জানেন। তারপরও অতৃপ্ত আত্মার আকাঙ্খা তাই। আগামীর সেই সময় আজকের এই সময়কে কালের কাঠগড়ায় দাঁড় করাবে ইনশাল্লাহ। 

সেদিন কে হারবে, ইতিহাস না সময় সেটা সময়ই বলে দিবে। সময় বড় ভয়ংকর। সময়ের প্রতিশোধ কিংবা দায়বদ্ধতা আরও বেশি পরিহাসের। সময় তার মত করেই আসে আবার তার মত করে চলে যায়। শুধু সেদিনের খেলোয়াড় আজ দর্শক আর সেদিনের দর্শক আজ খেলোয়াড়।
 

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত