ঢাকা শুক্রবার, ১৮ অক্টোবর ২০১৯, ২ কার্তিক ১৪২৬,    আপডেট ৩৭ মিনিট আগে
ডা. ফাহিম উদ্দিন

ডা. ফাহিম উদ্দিন

ইন্টার্ন চিকিৎসক

খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল।


১৭ এপ্রিল, ২০১৮ ১৩:১৮

আশ্চর্যজনক কেস ইতিহাস এবং রোগ নির্ণয়

আশ্চর্যজনক কেস ইতিহাস এবং রোগ নির্ণয়

Amazing Case History & Diagnosis-

চৌদ্দ বছরের একটা বাচ্চার কিছুদিন যাবত মাথা ব্যাথা। মাথার সামনের দিকের অংশে Throbbing type headache. একজন পেডিয়েট্রিশিয়ান দেখানো হল, পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে জানালেন সাইনুসাইটিসের জন্য হচ্ছে। প্রয়োজনীয় ঔষধ ও এন্টিবায়োটিক দেয়া হল কিন্তু মাথা ব্যাথা কমছে না। পরবর্তীতে তিনি একজন নাক-কান-গলা বিশেষজ্ঞের কাছে রেফার করেন এবং এবারও পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে জানানো হল "সাইনুসাইটিসের জন্যই মাথা ব্যাথাটা হচ্ছে"! এভাবে কয়েক ডোজ এন্টিবায়োটিক খেয়েও কোনো ইমপ্রুভমেন্ট হচ্ছিল না।

ইতিমধ্যে বাচ্চাটার মাথা ব্যাথার পাশাপাশি শ্বাসকষ্ট শুরু হয়। এবার পেডিয়েট্রিশিয়ানকে দেখানো হলে প্রথমে নিউমোনিয়া সাসপেক্ট করে এন্টিবায়োটিক দেন। কিন্তু শ্বাসকষ্ট কমছিল না। দিন দিন বাচ্চা আরো দূর্বল হতে থাকে। তখন পেডিয়েট্রিশিয়ানের পরামর্শে বাচ্চাটাকে হসপিটালে ভর্তি করানো হয়। 

ইতেমধ্যে বাড়তি সমস্যা হিসেবে বাচ্চটার জয়েন্ট পেইন শুরু হয়, কান ব্যাথা শুরু হয় এবং দুই কনুইতে red, bumpy & non itchy Rash দেখা দেয়। সেই পেডিয়েট্রিসিয়ান প্রথমে Lyme disease সাসপেক্ট করেন, কিন্তু প্রয়োজনীয় ইনভেস্টিগেশন করে সেরকম কিছু পাননি।

জয়েন্ট পেইন শুরু হওয়ায় অন-কল এ পাশের হসপিটাল থেকে একজন ‘পেডিয়েট্রিক রিউম্যাটোলজিস্ট’ বাচ্চাটিকে দেখতে আসেন। তিনি যখন হিস্ট্রি শুনে জানতে পারলেন যে ‘সাইনুসাইটিসের হেডেক কোনো ভাবেই এন্টিবায়োটিকে কমছে না’ তখন তিনি জিজ্ঞেস করেছিলেন, বাচ্চাটির কনুইতে কোনো rash আছে কিনা?

বাচ্চাটির বাবা-মা খুব অবাক হলেন যে, ডাক্তার কীভাবে বুঝলেন! তখন তিনি জানালেন, তার জানা মতে এরকম একটি কেইস আছে যেখানে এরকম সাইন-সিম্পটম দেখা দেয়। তখন তিনি বাচ্চার কনুই ভালো মত দেখে জানলেন, সমস্যাগুলো কোনো ইনফেকশনের কারণে হচ্ছে না। বরং কনুইয়ের rash থেকে টিস্যু বায়োপসি করলেই কারণ জানা যাবে। 

ইতোমধ্যে হঠাৎ করে বাচ্চাটির কাশির সাথে রক্ত আসতে শুরু করে। তখন আরেকজন ডাক্তার ব্রংকোস্কোপি করান এবং দেখতে পান যে আসলেই তার লাংসে কোনো ইনফেকশনের লক্ষণ নেই। বরং লাংসে প্রচুর blood & clot দেখা যাচ্ছে। পরবর্তীতে ‘blood stained lung fluid & rash থেকে নেয়া tissue’ ল্যাবেরটরীতে পাঠানো হয়।  এবং ডায়াগনোসিস হয়। Granulomatosis with Polyangitis,or GPA. যা একটি অটোইমিউন ডিজিজ। পরবর্তীতে ট্রিটমেন্ট হিসেবে স্টেরয়েড শুরু করা হয়।

এক্ষেত্রে বাচ্চাটির Sinus এর টিস্যুগুলোকে এটাক করার কারণে তার Headache হচ্ছিল। পরবর্তীতে Airway & লাংসের ব্লাড ভেসেল/টিস্যুকে এটাক করার কারণে তার Breathlessness & Haemoptysis দেখা দেয়। এছাড়া বাচ্চাটির কনুইতে যে Rash দেখা দেয় তাও এই একই কারণেই।
 
Untreated GPA এর মর্টালিটি রেট প্রথম বছরেই ৮০% এবং সাধারনত ষাটোর্ধ্ব পেশেন্টদের ক্ষেত্রে দেখা যায় কিন্তু এক্ষেত্রে অনেক কম বয়সী পেশেন্ট ছিল। 

(N.B: this case was published in New York Times Magazine by Dr. Lisa Sanders, MD ; author of the book “Every Patient Tells a Story: Medical Mysteries and the Art of Diagnosis.”)

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত