১৬ এপ্রিল, ২০১৮ ১০:২১ এএম

রাজধানীতে ৪৩ হাজার শিশুর ওপর টাইফয়েড টিকার গবেষণা

রাজধানীতে ৪৩ হাজার শিশুর ওপর টাইফয়েড টিকার গবেষণা

রাজধানীর মিরপুরে ৪৩ হাজার ৩৫০ শিশুর ওপর টাইফয়েড কনজুগেট টিকাদান গবেষণা জরিপ রোববার শুরু হয়েছে।  আন্তর্জাতিক উদারাময় গবেষণা কেন্দ্র বাংলাদেশ (আইসিডিডিআরবি), ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি) ও সম্প্রসারিত টিকা দান কর্মসূচি বাংলাদেশ এর যৌথ উদ্যোগে ৯ থেকে ১৬ বছরের শিশুদের ওপর পরিচালিত হচ্ছে।

এটি (টাইফয়েড ভ্যাকসিন এক্সেলেরেশন কনসরটিয়াম) প্রকল্পের (টিওয়াইভিএসি) অংশ যেখানে গবেষকরা দেখেন টাইফয়েড টিকাদানের ফলে কত শিশুর টাইফয়েড প্রতিরোধ করা সম্ভব হয়। একই ধরনের গবেষণা চলছে মালাওই ও নেপালে। 

আইসিডিডিআরবির সংক্রামক ব্যাধি বিভাগের প্রধান গবেষক ড. ফেরদৌসি কাদরি বলেন, সম্প্রসারিত জাতীয় টিকাদান কর্মসূচিতে অন্তর্ভুক্ত করে দেশব্যাপী টিকাদান পরিচালনার আগে টাইফয়েড টিকাদানের ফলে কত শিশুর জীবন রক্ষা পায় তা গবেষণা করে দেখা দরকার।

টাইফয়েড একটি মারাত্মক পানিবাহিত রোগ। দুই ধরনের জীবাণুর সংক্রমণে এই রোগ হয়ে থাকে। 'সালমোনেলা টাইফি' এবং 'সালমোনেলা প্যারাটাইফি'।

সালমোনেলা টাইফির সংক্রমণে হয় টাইফয়েড জ্বর বা 'এন্টারিক ফিভার' আর সালমোনেলা প্যারাটাইফির সংক্রমণে হয় প্যারা টাইফয়েড জ্বর। সালমোনেলা টাইফি শরীরের বৃহদান্ত্রে আক্রমণ করে। দূষিত পানি ও খাবার গ্রহণের মাধ্যমে এই জীবাণু শরীরে প্রবেশ করে।

প্রসঙ্গত, বিশ্বে প্রতি বছর দেড় লাখ শিশু টাইফয়েড জ্বরে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করে। এছাড়া হাজার হাজার মানুষ এ রোগে আক্রান্ত হয়। 

এ সপ্তাহে ৪২তম বিশেষ বিসিএসের বিজ্ঞপ্তি 

আরও ২০০০ চিকিৎসক নিয়োগের প্রক্রিয়া চূড়ান্ত

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
নিবন্ধনহীন ওষুধ লিখলে চিকিৎসকের শাস্তি
জাতীয় ওষুধনীতি-২০১৬’ এর খসড়ার নীতিগত অনুমোদন

নিবন্ধনহীন ওষুধ লিখলে চিকিৎসকের শাস্তি