ঢাকা      রবিবার ২১, অক্টোবর ২০১৮ - ৬, কার্তিক, ১৪২৫ - হিজরী



ডা. শরীফ উদ্দিন

রেসিডেন্ট, বিএসএমএমইউ

 

 


কোটাবিরোধী আন্দোলনের থিংক ট্যাংক যিনি

প্রত্যেকটা আন্দোলনের একজন থিংক ট্যাংকার থাকেন। তিনি হয়তো আন্দোলনের কথা বলেন না। আন্দোলনের মাঠেও থাকেন না। কিন্তু আন্দোলনের মূল জ্বালানিটুকু দেন তিনি। চলমান কোটাবিরোধী আন্দোলনের সেই থিংক ট্যাংকার হলেন ড. আকবর আলী খান। এই প্রাজ্ঞ, সাহসী এবং চির তরুণ মানুষটির জন্য ভালোবাসা। তিনি এই সময়ের সবচেয়ে প্রাসঙ্গিক, সবচেয়ে কার্যকর বুদ্ধিজীবী।

কোটাব্যবস্থা বিশেষ করে, মুক্তিযোদ্ধা কোটা নিয়ে সামান্য শব্দটুকু উচ্চারণ করতে যখন সবচেয়ে প্রতিবাদী বুদ্ধিজীবীরা ভয় পেতো, তখন এই মুক্তিযোদ্ধা মানুষটি এক বাক্যে কোটাকে নাকচ করে দেন এবং স্পষ্টভাবে বলেন, চলমান কোটাসিস্টেম মূলত পাকিস্তানি আমলের বৈষম্যের প্রতিনিধি। 

ড. সাদত হোসেন যখন পিএসসির চেয়ারম্যান ছিলেন, তখনকার পর্যালোচনা কমিটির চেয়ারম্যান হিসেবে ভুমিকা থেকে এই বছরের তার বক্তব্যই মূলত কোটাবিরোধী আন্দোলনকে একটা নৈতিক ভিত্তি দিয়েছে। 
শ্রদ্ধা ও ভালোবাসা ড. আকবর আলী খান।
                       
কোটা বাতিল হওয়ার একটা ঘোষণাতো মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছ থেকে এলো। পরে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সচিবের কথায়তো আরো কিছু কনফিউশন দূর হলো। 

এখন একটা বৃত্তের বাইরের কথা বলি। আমরা জানি, এই কোটাবিরোধী আন্দোলন পুরোপুরি সফল হলেও এই আন্দোলনে অংশগ্রহণকারী সিংহভাগ তরুণ কোনোদিন সরকারী চাকরি পাবে না। লালমনিরহাট সরকারি কলেজে পড়ুয়া ডিগ্রি পরীক্ষার্থী থেকে শুরু করে বয়স চলে যাওয়া বেকার যুবক, সবাই এই আন্দোলনের সাথে ছিলো। 

অনেকেই মাঠে নেমেছেন, অনেকেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে রাত জেগে আন্দোলনের খবর পৌঁছিয়েছেন। অনেকেই ট্যাংকের সামনে দাঁড়িয়েছেন, সেই ছবি দেখে অনেকেই চোখ ভিজিয়েছেন অদ্ভুত আনন্দে। অথচ আমরা জানি, খুব সৌভাগ্যবান, ব্রিলিয়ান্ট কিছু তরুণই কেবল সরকারি চাকরি পাবে। আপনি, আমি, তুমি- যারা এই চাকরি পাবেন, তারা সবার কথা মনে রাখবেনতো? তারা কি আগামীর কোনো এক সময়ে বৈষম্যের পক্ষে দাঁড়িয়ে যাবেন? তারা কি একদিন পুলিশকে তরুণদের বিরুদ্ধে টিয়ার গ্যাস কিংবা রাবার বুলেট ছুড়তে বলবেন? তারা কি ঘুষ দুর্নীতিতে জড়িয়ে এই সুন্দর সময়গুলোর কথা ভুলে যাবেন? 

ফ্রাঞ্জ কাফকা বলেছিলেন, Every revolution evaporates and leaves behind only the slime of a new bureaucracy.

প্রত্যেকটি বিপ্লব একদিন হাওয়ায় মিলিয়ে যায়, পিছনে রেখে যায় একটুকরো আমলাতান্ত্রিক হাসি।
এই কোটাবিরোধী আন্দোলন থেকে আপনি যদি সামান্যটুকু উপকার পান, তাহলে ওয়াদা করুন এই হাসিটুকু আপনি হাসবেন না।

প্রিয় বন্ধুরা, মানুষের ভালোবাসা আর দ্রোহের শক্তিতো এই আন্দোলন থেকে আপনাদের অনুভব করার কথা। আপনার সাফল্য মণ্ডিত আগামীর দিনগুলোতে চুপটি করে আজকের দিনগুলোর কথা একটু ভাববেন। মনে রাখেন, আপনি সচিবালয়ের সবচেয়ে উঁচু চেয়ারটিতে বসার যে আয়োজন, তাতে জীবনে কিছুই না পাওয়া মানুষটিরও কিছু অবদান ছিলো।

আপনাদের সবার জন্য ভালোবাসা। আমাদের দেশটি সুন্দর। তার চেয়েও বেশি চমৎকার এ দেশের মানুষরা, এই ভাবনাটি স্থায়ী করার জন্য আমরা সবাই যেনো অবদান রাখতে পারি।

আরও পড়ুন-

আপনারা যারা কোটাবিরোধী আন্দোলনের সুবিধা পাবেন

কোটা পদ্ধতি বাতিল- প্রধানমন্ত্রী

কোটা সংস্কার আন্দোলনে জেগে ওঠেছে মেডিকেল কলেজগুলো 

কোটা সংস্কার আন্দোলনে যোগ দিলো ঢাকা মেডিকেল কলেজ

কোটা সংস্কার আন্দোলনে যুক্ত হলেন মেডিকেল শিক্ষার্থীরা

রাজপথে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজের শিক্ষার্থীরা

টিএসসি মোড়ে অবস্থান নিয়েছে মেডিকেল ও ডেন্টাল কলেজের শিক্ষার্থীরা

কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীদের চার ইস্যুতে নতুন কর্মসূচি

টিএসসিতে সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ 

মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মান রাখতেই কোটা সংস্কার প্রয়োজন: জাফর ইকবাল

৫ দফা দাবিতে সচিবালয়ে আন্দোলনকারীরা

আটককৃত শিক্ষার্থীদের ছেড়ে দিতে আল্টিমেটাম

ধর্ষণ ও কোটা সংস্কার নিয়ে কিছু কথা

কোটা সংস্কার নিয়ে আন্দোলনকারীদের সঙ্গে সরকারের বৈঠক

সংবাদটি শেয়ার করুন:

 


সম্পাদকীয় বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিদেশে ডাক্তারি পড়তে গেলে যেসব সমস্যার সম্মুখীন হবেন

বিদেশে ডাক্তারি পড়তে গেলে যেসব সমস্যার সম্মুখীন হবেন

প্রিয় বন্ধুগণ বাংলাদেশের মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষা শেষ। অনেকেই সরকারি মেডিকেল কলেজে চান্স পেয়েছেন আর…

গুগলে সার্চ দিয়ে রোগের লক্ষণ জানার আগে যা জানা উচিত

গুগলে সার্চ দিয়ে রোগের লক্ষণ জানার আগে যা জানা উচিত

প্রায় সবার হাতের নাগালে ইন্টারনেটের সুবিধা চলে আসায় আমরা অনেকেই অসুস্থ হলে…

‘অধিকার অর্জন করতে হলে আন্দোলনের পথে হাঁটো’

‘অধিকার অর্জন করতে হলে আন্দোলনের পথে হাঁটো’

৭ অক্টোবর চিকিৎসক সম্মিলনীতে সরকার প্রধান বুঝিয়ে দিলেন– ‘অধিকার অর্জন করতে হলে…

শব্দযুদ্ধ?

শব্দযুদ্ধ?

ভদ্র মোরা, শান্ত বড়ো, পোষ-মানা এ প্রাণ বোতাম-আঁটা জামার নীচে শান্তিতে শয়ান।" …

আরো সংবাদ














জনপ্রিয় বিষয় সমূহ:

দুর্যোগ অধ্যাপক সায়েন্টিস্ট রিভিউ সাক্ষাৎকার মানসিক স্বাস্থ্য মেধাবী নিউরন বিএসএমএমইউ স্বাস্থ্যমন্ত্রী ঢামেক গবেষণা ফার্মাসিউটিক্যালস স্বাস্থ্য অধিদপ্তর