ঢাকা      মঙ্গলবার ২২, মে ২০১৮ - ৮, জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৫ - হিজরী



ডা. মো. তরিকুল হাসান

চিকিৎসক, রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল।


সাপের কামড় দিলে যা করণীয়

আমাদের সমাজে সাপে কাঁটা রোগীর সংখ্যা নেহায়েত কম নয়। প্রতি বছর বাংলাদেশে সাপে কেঁটে বহু রোগী মারা যায়। আমাদের দেশে সাপে কাঁমড় দেয়ার সঙ্গে সঙ্গে মানুষজন ওঝার সন্ধানে দৌড়ঝাঁপ শুরু করেন। বিভিন্ন প্রথাগত অবৈজ্ঞানিক পন্থা ও কুসংস্কারে রোগীর লাভের চেয়ে ক্ষতিই বেশি হয়। এজন্য মূলত আমাদের অসচেতনতাই দায়ী।

সাপের কামড়ে আক্রান্ত হলে সাধারনত নিচের কাজ গুলো করা হয়। যার কোন বৈজ্ঞানিক ভিত্তি নেই।

যা করবেন না-

১। যেখানে সাপ কামড় দিয়েছে তার উপরে তিনটি বাঁধন দেয়ার সময় এত শক্ত করে বাধন দেয়া হয়। ফলে শক্ত বাঁধনে আক্রান্ত অঙ্গে রক্ত সরবরাহ বন্ধ হয়ে হয়ে যায়।

প্রকৃতপক্ষে, আমাদের দেহের বিভিন্ন অংশ থেকে রক্ত হৃদপিন্ডে যায় শিরার মাধ্যমে আর এ শিরা গুলো দেহের চামড়ার সামান্য নিচেই থাকে তাই অত জোরে বাধন দেয়ার কোন প্রয়োজন নেই। বরঞ্চ জোরে বাধন দিলে চামড়ার অনেক গভীরে থাকা ধমনির মাধ্যমে প্রবাহিত হওয়া হৃদপিন্ড থেকে দেহের বিভিন্ন অংশের প্রতি রক্ত সরবরাহ ব্যহত হতে পারে। ফলে অনেক সময় আক্রান্ত অঙ্গ কেটে ফেলতে হতে পারে!

২। কামড়ের স্থানে ব্লেড বা ধারালো কিছু দিয়ে কেঁটে দিয়ে প্রচুর রক্ত বের করে দেয়া।

এক্ষেত্রে প্রচুর রক্ত শরীর থেকে বের হয়ে যাওয়ায় রোগী শকে চলে যেতে পারে। তাছাড়া, ব্যবহৃত ব্লেড বা ছুরি থেকে ইনফেকশন হয়ে যেতে পারে।

৩। কামড়ের স্থানে মুখ লাগিয়ে রক্ত চুষে বের করা। এটিও কোন সঠিক কাজ নয়।

৪। আক্রান্ত স্থান কার্বলিক এসিড বা অন্য কোন এসিড দিয়ে পুড়িয়ে ফেলা। এতে রাসায়নিক পোঁড়ায় মারাত্বক ক্ষতের সৃষ্টি হতে পারে।

৫। আক্রান্ত স্থানে বিভিন্ন হারবাল পেস্ট, গোবর বা কাঁদা ব্যবহার করা। এতে বিভিন্ন ক্ষতি হতে পারে। আক্রান্ত স্থানে মারাত্বক ইনফেকশন হতে পারে।

রোগীর মৃত্যু ঘটে কেন?

প্রশ্ন উঠতে পারে তাহলে সে ক্ষেত্রে রোগীর মৃত্যু ঘটে কেন? অনেক রোগীই প্রচণ্ড মৃত্যু ভীতিতে ভ্যেসোভ্যাগাল শকে মারা যেতে পারে। আমরা একটা কথা প্রায়ই বলি 'বনের বাঘে খায়না মনের বাঘে খায়'। তাই আমাদের প্রধান কাজ হলো রোগীকে আশ্বস্ত করা। আমাদের অনেকেরই ধারণা, যেকোন সাপের কামড়েই আমাদের মৃত্যু হতে পারে। আশ্চর্যের ব্যাপার হলো যে সাপগুলো আমাদের কামড় দেয় তার অধিকাংশই নির্বিষ।

যা করণীয়

১। রোগীকে আশ্বস্ত করবেন।

২। আক্রান্ত অঙ্গকে নড়াচড়া করবেন না। যদি পায়ে কাঁমড় দেয় তবে হাটবেন না। হাতে কাঁমড় দিলে হাত নড়াবেন না।

৩। আক্রান্ত অঙ্গকে সম্পুর্ণ ইম-মবিলাইজ করার জন্য লম্বা হাড় ভাঙার সময় যেরুপ স্লিং লাগানো হয় সেরুপ করা যায়।

৪। বিষাক্ত কোব্রা (Cobra) এবং ক্রেইট (Krait) সাপের জন্য প্রেসার ইম-মবিলাইজেশনের জন্য গামছা বা ক্রেপ ব্যান্ডেজ দিয়ে হালকা চাপ দিয়ে বাঁধবেন। খেয়াল করতে হবে এই বাঁধনে যেন আক্রান্ত অঙ্গের ধমনীর পালস বন্ধ না হয়।

মোট তিনটি বাঁধন দিতে হবে। ১ ঘন্টা পর ১৫ মিনিট পরপর ৩০ সেকেন্ড এর জন্য একটি করে বাঁধন ক্রমান্বয়ে খুলে রাখতে হবে।

তবে, ভাইপার (Viper) সাপ (সবুজ সাপসহ) এর ক্ষেত্রে বাঁধন দেয়া যাবে না।

৫। রোগী ঢোক গিলতে সমস্যা অনুভব করলে বা বমি করলে বা নাঁকি সুরে কথা বললে রোগীকে মুখে কিছু খাওয়াবেন না।

৬। অপ্রয়োজনীয় ক্ষতিকর কোন চিকিৎসায় বা ওঝার সন্ধানে অযথা সময় ব্যয় করবেন না কারণ এক্ষেত্রে প্রতিটি মুহুর্ত মুল্যবান। অযাচিত সময় ব্যয় মৃত্যুর কারণ হতে পারে।

৭। অতি দ্রুত নিকটস্থ স্বাস্থ্যকেন্দ্রে রোগীকে নিয়ে যেতে হবে। নিচের স্বাস্থ্য কেন্দ্রগুলোতে নিয়ে যেতে হবে-

*কমিউনিটি ক্লিনিক
*থানা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স
*জেলা হাসপাতাল
*মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ইত্যাদি।

আজ এ পর্যন্তই। ভাল থাকবেন, সুস্থ্য থাকবেন। এই কামনাই করছি।

-------------------------------
(তথ্যসূত্রঃ National Guideline for management of snake bite)

সংবাদটি শেয়ার করুন:

 


স্বাস্থ্য বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

যে ব্যবস্থাপত্রে রোজা নষ্ট হয় না

যে ব্যবস্থাপত্রে রোজা নষ্ট হয় না

চিকিৎসকগণ আলেমদের সাথে আলাচনা করে এ সিদ্ধান্তে উপনীত হয়েছেন যে, রোজা থাকা…

রোগের ও গরিবের অপর বন্ধু এসপিরিন

রোগের ও গরিবের অপর বন্ধু এসপিরিন

রোগের ও গরিবের অপর বন্ধু এসপিরিন (Aspirin). হ্যাঁ বন্ধুরা, বাস্তবেই এসপিরিন গরিবের…

টেরাটোমায় আক্রান্ত মর্জিনার গল্প

টেরাটোমায় আক্রান্ত মর্জিনার গল্প

মর্জিনার বয়স আর কত হবে। এই ধরেন তের কি চৌদ্দ বছর। প্রথম…

বয়ঃসন্ধির অমোঘ ঢেউ

বয়ঃসন্ধির অমোঘ ঢেউ

তখন ফোর কি ফাইভে পড়ি। সবকিছুতেই অপার কৌতুহল। চোখ গোল গোল করে…

প্রেগনেন্সিতে হাইপোথাইরয়ডিজমের চিকিৎসা

প্রেগনেন্সিতে হাইপোথাইরয়ডিজমের চিকিৎসা

একজন গর্ভবতী মহিলার যদি হাইপোথাইরয়ডিজম ধরা পড়ে তাহলে কিভাবে তার চিকিৎসা করবেন?…

উচ্চ রক্তচাপ একটি নীরব ঘাতক

উচ্চ রক্তচাপ একটি নীরব ঘাতক

অসংক্রামক রোগের মধ্যে উচ্চ রক্তচাপ অন্যতম। উচ্চ রক্তচাপ প্রায়ই একটি স্থায়ী রোগ…



জনপ্রিয় বিষয় সমূহ:

দুর্যোগ অধ্যাপক সায়েন্টিস্ট রিভিউ সাক্ষাৎকার মানসিক স্বাস্থ্য মেধাবী নিউরন বিএসএমএমইউ স্বাস্থ্যমন্ত্রী ঢামেক গবেষণা ফার্মাসিউটিক্যালস স্বাস্থ্য অধিদপ্তর