২৬ মার্চ, ২০১৮ ১১:৪৩ এএম

রোগীর জীবন রক্ষার পুরস্কার মামলা, অপপ্রচার!

রোগীর জীবন রক্ষার পুরস্কার মামলা, অপপ্রচার!

ডিক্যাপিটেশন (মৃত বাচ্চার মাথা কেটে, বাচ্চার দেহ থেকে আলাদা করা) চিকিৎসারই একটি অংশ। রোগীর জীবন যখন সংকটাপন্ন থাকে এবং মৃত বাচ্চা যখন অস্বাভাবিক পজিশনে থাকে তখন ডিক্যাপিটেশন করে বাচ্চা বের করতে হয়। মৃত বাচ্চার জন্য বাচ্চার মায়ের জীবনই সংকটাপন্ন হয়ে উঠে তাই বাচ্চার মাকে বাঁচানোর জন্য ডিক্যাপিটেশন করা হয়। মৃত বাচ্চার জন্য অতিরিক্ত রক্তক্ষরণ হতে পারে, অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে মা মারা যেতে পারে। এইক্ষেত্রে মায়ের জীবন বাঁচানোর জন্য অনেক সময় জরায়ু কেটে ফেলে দিতে হয়।

এখন চিকিৎসকরা একজন রোগীর জীবন বাঁচানোর জন্য যা যা করা দরকার যা তাদের সাধ্যের মধ্যে ছিল তা সবই করেছেন। রোগীর জীবন বাঁচানোর পরও যদি নেগেটিভ নিউজ করা হয় আর তার জন্য হাইকোর্ট তলব করে তাহলে ভবিষ্যতে কোন চিকিৎসক মরণাপন্ন রোগীর চিকিৎসা দিতে রাজী হবেন না। ঝুঁকি নিয়ে কোন সংকটাপন্ন রোগীকে বাঁচিয়ে তোলার চেষ্টা করবেন না, এতে করে ক্ষতিগ্রস্ত হবে রোগী এবং তাদের নিকটাত্মীয়রাই।

সাংবাদিকদের উচিৎ চিকিৎসা বিষয়ে যেকোন সংবাদ পরিবেশনের সময় তা ভাল করে জেনেশুনে, যাচাই বাছাই করে, সঠিক তথ্য-উপাত্ত নিয়ে সংবাদ পরিবেশন করা। চিকিৎসকদের সাথে রোগীদের দূরত্ব তৈরি হবে এমন হেডলাইন দিয়ে নিউজ না করাই উচিৎ। আমাদের দেশের চিকিৎসকদের প্রতি রোগীদের আস্থা যেন বাড়ে সেই ধরণের নিউজ করা উচিৎ। সাংবাদিক ভাইদের কাছে অনুরোধ আপনারা চিকিৎসকদের সাথে রোগীদের দূরত্ব তৈরি করবেন না, রোগীদের চিকিৎসকদের প্রতিপক্ষ বানাবেন না। রোগীদের মনে চিকিৎসকদের প্রতি আস্থা জাগে, চিকিৎসকদের প্রতি সম্মান জাগে, আমাদের দেশের চিকিৎসা ব্যবস্থার প্রতি মানুষের মনে ভরসা জাগে তেমন নিউজ করেন, পজিটিভ নিউজ করেন।

আসুন না আমরা সবাই মিলে আজকের এই স্বাধীনতা দিবসে শপথ নেই আমাদের দেশের চিকিৎসা এবং চিকিৎসকদের নিয়ে গঠনমূলক সমালোচনা করবো কিন্তু কোন ধরণের নেগেটিভ কথা বলবোনা। আমরা সবাই মিলে আমাদের দেশকে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা হিসেবে গড়ে তুলতে চাই যেখানে কেউ বিনা চিকিৎসায় মারা যাবে না।

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত