২৪ মার্চ, ২০১৮ ০১:২৭ এএম
ভিসির পদ থেকে বিদায়

সশ্রদ্ধ সালাম, অধ্যাপক ডা. কামরুল হাসান খান

সশ্রদ্ধ সালাম, অধ্যাপক ডা. কামরুল হাসান খান

এই একটি ছবিই অনেক কিছু বলে দেয়। এ প্রস্থান এক সফল মানুষের প্রস্থান। একজন যোগ্য মানুষের আন্তরিক দায়িত্বপালন শেষে অর্থবহ বিদায়ের ক্ষণ। 

অধ্যাপক ডা. কামরুল হাসান গত তিনটি বছর বিএসএমএমইউর অভিভাবক হিসেবে ছিলেন। অধ্যাপক ডা. প্রাণ গোপাল দত্ত যখন চলে যাচ্ছিলেন চারদিকে প্রবল গুজব উঠলো বিএসএমএমইউ তার অভিভাবক হারিয়ে ফেলছে; এমডি/এমএস রেসিডেন্সি কোর্সের ওপর খড়গ উঠে এলো বলে!

কিন্তু না। তিনি আসলেন। অভিভাবক সুলভ আচরণে সবার মন জয় করলেন। দীর্ঘ তিনটি বছর বিএসএমএমইউকে যোগ্যভাবে নেতৃত্ব দিয়ে এগিয়ে নিলেন। সমালোচকদের ধারণাকে ভুল প্রমাণিত করে দিলেন। এটাই প্রত্যাশিত ছিলো তাঁর কাছে।
তিনি করে দেখিয়েছেন।

অনেকগুলো যুগান্তকারী পদক্ষেপ নিয়ে প্রতিষ্ঠানটির চিকিৎসার মান যেমন বাড়িয়েছেন। তেমনি রেসিডেন্ট চিকিৎসকদের ভাতা বৃদ্ধি করে, যাতায়াতের জন্য বাহনের ব্যবস্থা করে, চিকিৎসকদের সন্তানদের জন্য ডে কেয়ার সেন্টার খুলে এবং আরও কিছু অসাধারণ পদক্ষেপ নিয়ে চিকিৎসকদের উচ্চশিক্ষার পথকে অনেকটাই সহজ করতে সক্রিয় ভুমিকা রেখে গেছেন। তাঁর এই অসাধারণ অবদানের জবাবে তাঁর জন্য সশ্রদ্ধ সালাম বরাদ্দ রাখা যেতেই পারে।

আপনার জন্য সশ্রদ্ধ অভিবাদন রইলো অধ্যাপক ডা. কামরুল হাসান স্যার। মেডিভয়েস এর পক্ষ থেকে আপনার জন্য রইলো আন্তরিক শুভকামনা। ভবিষ্যতের সময়টুকুও আপনি বিনিয়োগ করবেন চিকিৎসকদের সার্বিক কল্যাণে এটাই প্রত্যাশা। ভালো থাকবেন।

ছবি কৃতজ্ঞতা: সংগৃহীত

মেডিভয়েসকে বিশেষ সাক্ষাৎকারে পরিচালক

ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে শতাধিক করোনা বেড ফাঁকা

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত