ঢাকা      মঙ্গলবার ২৪, এপ্রিল ২০১৮ - ১১, বৈশাখ, ১৪২৫ - হিজরী




অধিক ওজন থেকে বৃদ্ধি পাচ্ছে স্বাস্থ্য ঝুঁকি

শরীর যাদের মোটা, ওজন যাঁদের বেশি, তাঁদের ক্ষেত্রে ডায়াবেটিস, উচ্চ রক্তচাপ, স্ট্রোক, হার্ট অ্যাটাক বা হৃদরোগ, স্তন ক্যান্সার, মলাশয়ের ক্যান্সার, আর্থ্রাইটিস বা বাতের সমস্যা, পিত্তপাথর, ইত্যাদি অসুখ হবার সম্ভাবনা বেশি। নিচের কয়েকটি বিষয় পরিমাপ করে শরীর কেমন মোটা তা জানার পাশাপাশি অসুখ হবার ঝুঁকি সম্পর্কেও ধারণা করা যাবে।

‘বিএমআই’ পরিমাপ করা:

শরীর কেমন মোটা, তা দেখার ভাল উপায় ‘বিএমআই’ মেপে দেখা। শরীরের ওজন আর উচ্চতার অনুপাতকে বলে ‘বিএমআই’। শরীরের ওজন যত কেজি সেই সংখ্যাকে, উচ্চতা যত মিটার, তার বর্গ দিয়ে ভাগ করতে হয়। সেই ভাগফলকে বলে ‘বিএমআই’। ধরা যাক, কোন ব্যক্তির ওজন ৬২ কেজি এবং উচ্চতা ১৬৪ সেন্টিমিটার (অর্থাৎ ১.৬৪ মিটার)। তাহলে তার ‘বিএমআই’ হবে, ৬২ কেজি ভাগ (১.৬৪ গুণ ১.৬৪) মিটার= ২৩.০৫ কেজি/মিটার। সংক্ষেপে, ২৩.০৫। ‘বিএমআই’ ১৮.৫ এর নিচে হলে শরীরটা শুকনা পাতলা। ১৮.৫ থেকে ২৪.৯ এর মধ্যে হলে ভাল; শরীরটা মোটা নয়, স্বাভাবিক। ‘বিএমআই’ ২৫ এর উপরে হলে বুঝতে হবে শরীরটা মোটা। আর ৩০ এর উপরে হলে, অতিশয় মোটা। এ দু’ক্ষেত্রেই অসুখ হবার ঝুঁকি বেশি।

কোমরের বেড় পরিমাপ করা:

‘বিএমআই’ মেপে অনেক সময় শরীরের চর্বির সঠিক পরিমাপ হয় না। সমান উচ্চতার একজন ক্রীড়াবিদ এবং শারীরিক পরিশ্রম না করে দিন কাটানো একজন মানুষের ‘বিএমআই’ সমান হলেও দু’জনের শরীরের চর্বির পরিমাণ সমান নয়। শারীরিক পরিশ্রম না করে দিন কাটানো মানুষের শরীরে চর্বির পরিমাণ বেশি। এবং সেটাই উদ্বেগের কারণ। এক্ষেত্রে কোমরের বেড় মেপে শরীরের চর্বির পরিমাণ সম্পর্কে আন্দাজ করা যায়। কোমরের মাপ নিতে হবে মোটামুটি নাভি বরাবর। কোমরের কাপড় সরিয়ে মাপের ফিতাটাকে ত্বকের সঙ্গে হালকা করে লাগিয়ে মেপে নিতে হবে কোমরের বেড়। পুরুষের ক্ষেত্রে কোমরের মাপ ৯০ সেন্টিমিটারের কম এবং মহিলার ক্ষেত্রে ৮০ সেন্টিমিটার এর কম হলেই ভাল। বেশি হলে অসুখ হবার ঝুঁকি বেশি।

কোমর/ নিতম্ব অনুপাত পরিমাপ করা:

পেটে বা কোমরে যদি বেশি চর্বি জমে, তবে পেটটা হয়ে যায় আপেলের আকৃতির। এটা ভাল নয়। চর্বি যদি জমে নিতম্বে, তবে পেট-নিতম্ব হয় পেয়ারার আকৃতির। এটা অপেক্ষাকৃত ভাল। তবে কোমর আর নিতম্বের মাপের অনুপাত যত বেশি, অসুখ হবার ঝুঁকি তত বেশি। কোমরের মাপ মোটামুটি নাভি বরাবর। নিতম্বের মাপ নিতে হবে আরো নিচে, নিতম্বের পেছনের উঁচু অংশ বরাবর। তারপর কোমরের মাপকে নিতম্বের মাপ দিয়ে ভাগ করলেই পাওয়া যাবে কোমর/ নিতম্ব অনুপাত। আপেলাকৃতি কোমরের ক্ষেত্রে কোমর/ নিতম্ব অনুপাত বেশি হয়। পুরুষের ক্ষেত্রে কোমর/ নিতম্ব অনুপাত ০.৯ আর মহিলার ক্ষেত্রে ০.৮ এর বেশি হলে অসুখ হবার ঝুঁকি বেশি।

বেশি বিএমআই বা বেশি কোমরের বেড় বা বেশি কোমর/নিতম্ব অনুপাত- সকল ক্ষেত্রেই অসুখের ঝুঁকি বেশি। সকল ক্ষেত্রেই কম ক্যালরির খাবার গ্রহণ করা আর নিয়মিত ব্যায়াম বা শারীরিক পরিশ্রম করা খুবই জরুরি। তাতে শরীরের চর্বি কমবে, ওজন কমবে। বিএমআই, কোমরের বেড় বা কোমর/ নিতম্ব অনুপাত- সবই থাকবে সঠিক। কমবে ডায়াবেটিস, উচ্চ রক্তচাপ, স্ট্রোক, হৃদরোগ, স্তন ক্যান্সার, মলাশয়ের ক্যান্সার, আর্থ্রাইটিস, পিত্তপাথর, ইত্যাদি রোগের ঝুঁকি।

ইত্তেফাক

সংবাদটি শেয়ার করুন:

 


স্বাস্থ্য বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

দয়া করে আপনার সন্তানের জীবন বাঁচান

দয়া করে আপনার সন্তানের জীবন বাঁচান

আজকের কথা। ১৬ বছর বয়সের এক কিশোর। ঠোঁটের উপর গোঁফ উঁকি দিচ্ছে…

কিডনি প্রতিস্থাপনের পর রোগীর করণীয়

কিডনি প্রতিস্থাপনের পর রোগীর করণীয়

কিডনি প্রতিস্থাপন একটি জটিল বিষয়। এর পর রোগী ও দাতার কিছু বিষয়…



জনপ্রিয় বিষয় সমূহ:

দুর্যোগ অধ্যাপক সায়েন্টিস্ট রিভিউ সাক্ষাৎকার মানসিক স্বাস্থ্য মেধাবী নিউরন বিএসএমএমইউ স্বাস্থ্যমন্ত্রী ঢামেক গবেষণা ফার্মাসিউটিক্যালস স্বাস্থ্য অধিদপ্তর