ঢাকা      শুক্রবার ১৪, ডিসেম্বর ২০১৮ - ৩০, অগ্রাহায়ণ, ১৪২৫ - হিজরী



ডা. মো: আবু শিহাব

বিসিএস (স্বাস্থ্য)

এফসিপিএস (শেষ পর্ব), মেডিসিন

এমডি (ফেইজ বি), এন্ডোক্রাইনোলজি

বিএসএমএমইউ।

 

 


আপনিও হতে পারেন একজন গর্বিত এমআরসিপি ডিগ্রীধারী

দেশে বসেই আন্তর্জাতিক ডিগ্রি

দেশে বসে যদি অর্জন করা সম্ভব হয় আন্তর্জাতিক ভাবে স্বীকৃত কোন ডিগ্রী তবে কেন দেরি?

◇ হা আজ কথা বলবো MRCP নিয়ে।

■ এম বি বি এস শেষ করে যখন বড় ভাইয়া বা আপুর কাছে যাবেন কেরিয়ার বিষয়ে পরামর্শের জন্য তখন দেখবেন তাদের মধ্যে মেডিকেল লাইফের মত কেয়ারিং ভাবটা আর নেই।সবাই তারা মহা ব্যাস্ত নিজেদের ক্যারিয়ার গোছাতে।

তাই ক্যারিয়ার বিষয়ক প্রয়োজনীয় তথ্য গুলি আপনাদের হাতের কাছে পৌছে দিতেই আমার এই প্রচেষ্টা।

□ কাজেই জেনে রাখুন MRCP ডিগ্রী বিষয়ে প্রয়োজনীয় তথ্য সমূহ।

♦MRCP এর পূর্ণ রুপ হচ্ছে Membership of the Royal College of Physicians

♦MRCP বিষয়ে সাধারণ তথ্য সমূহ:

** MRCP হচ্ছে আন্তর্জাতিক ভাবে স্বীকৃত একটি পোষ্টগ্রাডুয়েশন মেডিকেল ডিপ্লোমা।

** ৩ টা Royal Colleges of Physicians ( UK, Glasgow, Edinburg) এই ডিগ্রীটি প্রদান করে থাকে।

♦MRCP ধারীদের জন্য সুযোগ সুবিধা:

** MRCP কমপ্লিট করা থাকলে অস্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ড, মধ্যপ্রাচ্য, সিঙ্গাপুর, মালয়েশিয়া সহ অনেক দেশেই খুব সহজেই ভাল ভাল জবের অফার পাওয়া যায়।

** আমাদের দেশে বর্তমানে BMDC এটিকে পোষ্টগ্রাজুয়েট ডিগ্রী হিসাবে স্বীকৃতি না দিলেও MRCP ডিগ্রী ধারী দের বড় বড় কর্পোরেট হাস্পাতাল যেমন এপোলো, স্কয়ার, ইউনাইটেড বা ল্যাব এইড এর মত জায়গায় চেম্বার প্রাক্টিসের জন্য অগ্রাধিকার দেওয়া হয়ে থাকে।

** MRCP ডিগ্রী ধারি দের ইংল্যান্ড, মালদ্বীপ, সৌদি আরব বা মধ্যপ্রাচ্যের দেশ গুলোতে জবের জন্য আলাদা করে আর লাইসেন্সিং এক্সাম দিতে হয় না।

** MRCP ডিগ্রী টার সবচেয়ে বড় সুবিধা হল অন্যান্ন ডিগ্রী/ কোর্সের পাশা পাশি এটি করা যায়। এর জন্য আলাদা ডেপুটেশন বা ট্রেনিং পোস্টের প্রয়োজন হয় না।

♦MRCP এর ধাপ সমূহ:
▪Part 1
▪Part 2
▪PACES

♦MRCP Part 1:

♣ ২ টা পেপার থাকে
* পেপার ১ এ ১০০ টি সিঙ্গেল এন্সার কোশ্চেন থাকে- সময় ৩ ঘন্টা
* পেপার ২ তেও ১০০ টি সিঙ্গেল এন্সার কোশ্চেন থাকে- সময় ৩ ঘন্টা

■ কোন টপিক থেকে কতটি প্রশ্ন থাকবে?

▪কার্ডিওলজি-১৫
▪হেমাটোলজি এবং অনকোলজি -১৫
▪ফার্মাকোলজি ও টক্সিকোলজি-১৬
▪ক্লিনিকেল সাইন্স: ২৫
  • সেলুলার বায়োলজি-২
  • ক্লিনিকেল এনাটমি-৩
  • ক্লিনিকেল বায়োকেমিস্ট্রি -৪
  • ক্লিনিকেল ফিসিওলজি-৪
  • ক্লিনিকেল জেনেটিক্স-৩
  • ইমুনোলজি-৪
  • এপিডেমিওলজি এবং বায়োস্টাট-৫
▪ডার্মাটোলজি-৮
▪এন্ডোক্রাইনোলজি-১৫
▪জেরিয়েট্রিক মেডিসিন-৪
▪গ্যাস্ট্রোএন্ট্রারোলজি-১৫
▪ইনফেক্সাস ডিজিস-১৫
▪নিউরোলজি-১৫
▪নেফ্রোলজি-১৫
▪অফথেলমোলজি-৪
▪সাইকেট্রি-৮
▪রেস্পিরেটরি মেডিসিন-১৫
▪রিউমাটোলজি-১৫

♣ নমুনা প্রশ্ন:

● A 35 yrs old female patient presented with keratitis, diarrhoea and dementia for 1 month. What is the most probable cause?
a. Thiamine deficency
b. Niacin deficiency
c. Riboflavia deficiency
d. Pyriabxine deficieny
e. Vit-A deficiency
উত্তর: B

** পেপার ১ এবং ২ পরীক্ষা একই দিনে অনুষ্ঠিত হয়, তবে ২ পরীক্ষার মাঝে ১.৫ ঘন্টা বিরতি দেওয়া হয়।

** ২ পেপারের মার্কস যোগ করে রিজাল্ট দেওয়া হয়। ৯৯৯ নম্বার এর পরীক্ষায় নূন্যতম পাস মার্ক ধরা হয় ৫২৮।

** কোশ্চেনের মার্কস ডিস্ট্রিবিউশন কোশ্চেন অনুযায়ী ভিন্ন ভিন্ন হয়ে থাকে।

♦MRCP Part1 এর প্রুস্তুতির জন্য কি কি বই পড়তে হবে?
▪Oxford handbook of clinical medicine
অথবা Davidson
▪বেসিক অংশের জন্য:
▪Philippa
▪Suda Medica

▪এছাড়া বাজারে অনেক কোশ্চেন ব্যাংকের কালেকশন পাওয়া যায় যেগুলো সলভ করলে প্রশ্ন এবং উত্তর সম্পর্কে ধারনা পাওয়া যায়।

♦MRCP Part 2:

Part 2 এর আবার ২ টি অংশ :
▪ লিখিত পরীক্ষা
▪ ক্লিনিকেল পরীক্ষা

♦ লিখিত পরীক্ষা:

২ টা পেপার পরীক্ষা একই দিনে অনুষ্ঠিত হয়

▪পেপার ১: ১০০ টি সিঙ্গেল এন্সার কোশ্চেন- সময় ৩ ঘন্টা
▪পেপার ২: ১০০ টি সিঙ্গেল এন্সার কোশ্চেন-সিময় ৩ ঘন্টা

** পেপার ১ এবং ২ এর মধ্যে ১.৫ ঘন্টার বিরতি দেওয়া হয়।

♦ক্লিনিকেল পরীক্ষা:

এটি PACES নামে পরিচিত

■ এতে ৫ টি স্টেশন থাকে:

▪স্টেশন ১: এবডোমেন (১০ মি.) এবং রেস্পিরেটরি সিস্টেম এক্সামিনেশন(১০ মি.)
▪স্টেশন ২: হিস্টরি টেকিং (২০ মি.)
▪স্টেশন ৩: কার্ডিওলজি(১০ মি.) এবং নিওরোলজি এক্সামিনেশন(১০মি.)
▪স্টেশন ৪: ইথিক্স এবং কমুনিকেশন স্কিল(২০ মি.)
▪স্টেশন ৫: সংক্ষিপ্ত ক্লিনিকেল কন্সাল্টেশন-২ টা
(১০ মিনিট+১০ মিনিট)

▪▪বাই রোটেশন সবাই কে স্টেশন গুলো ফেস করতে হয়

▪▪প্রতিটা স্টেশনের মাঝে ৫ মিনিটের বিরতি দেওয়া হয়।

** MRCP Part 1 কমপ্লিট করার ৭ বছরের মধ্যে PACES কমপ্লিট করতে হবে।

** MRCP Part 1 এবং Part 2 লিখিত পরীক্ষা বাংলাদেশ এর ব্রিটিশ কাউন্সিল এই অনুষ্ঠিত হয়

** Part 2 ক্লিনিকেল ( PACES) এর এক্সাম সেন্টার আমাদের দেশে নেই।

♦MRCP Part 1 এ বসার যোগ্যতা:

** MBBS শেষ করার ১ বছর পর অথবা ইন্টার্নশীপ শেষ করার পর একজন চিকিৎসক MRCP Part 1 এক্সামে বসতে পারে।

** পরীক্ষা বছরে ৩ বার অনুষ্ঠিত হয়( জানুয়ারি, মে এবং সেপ্টেম্বর)

** অনলাইনে এপ্লিকেশন করতে হয় - mrcpuk.org ওয়েব সাইট টির মাধ্যমে।

** এক্সাম ফি: ৫৯৪ পাউন্ড ( প্রায় ৬০ হাজার টাকা)

♦প্রয়োজনীয় পেপারস হাতে রাখুন :
▪সত্যায়িত MBBS সার্টিফিকেট-( প্রিন্সিপাল, মেডিসিনের ডীন, রোটারি বা ব্রিটিশ হাই কমিশনার সত্যায়িত করতে পারবে)
▪একটা RCP account@ mrcpuk.org
▪পাসপোর্ট

□ আরোও বিস্তারিত তথ্যের জন্য ভিজিট করুন:
mrcpuk.org ওয়েব সাইট টি।

সংবাদটি শেয়ার করুন:

 


আরো সংবাদ














জনপ্রিয় বিষয় সমূহ:

দুর্যোগ অধ্যাপক সায়েন্টিস্ট রিভিউ সাক্ষাৎকার মানসিক স্বাস্থ্য মেধাবী নিউরন বিএসএমএমইউ স্বাস্থ্যমন্ত্রী ঢামেক গবেষণা ফার্মাসিউটিক্যালস স্বাস্থ্য অধিদপ্তর