০৪ মার্চ, ২০১৮ ১১:১১ এএম

বিশ্বে ৫ শতাংশের বেশি মানুষ শ্রবণে অক্ষম: বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা

বিশ্বে ৫ শতাংশের বেশি মানুষ শ্রবণে অক্ষম: বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা

বিশ্বের মোট জনসংখ্যার ৫ শতাংশের বেশি (৩৬০ মিলিয়ন মানুষ) শ্রবণে অক্ষম। বংশগত কারণ, জন্মগত জটিলতা, নির্দিষ্ট সংক্রামক রোগ, ক্রনিক কানের সংক্রমণ, ওষুধের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া, অত্যধিক শব্দ এবং বার্ধক্যজনিত কারণে সাধারণত শ্রবণশক্তি হ্রাস হয় বা শ্রবণশক্তি হারিয়ে ফেলে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মতে, শ্রবণশক্তি হ্রাসের বিষয়ে মনোযোগের অভাবে বিশ্বব্যাপী ৭৫০ বিলিয়ন ডলারের বার্ষিক খরচ হয় যা ক্ষতিগ্রস্তদের জীবনে মারাত্মক প্রভাব ফেলে। বিশ্বে ৪৬৬ মিলিয়ন মানুষের শ্রবণশক্তি হ্রাস হয় যাদের মধ্যে ৩২ কোটি শিশু। অথচ এই শিশুদের শ্রবণশক্তি হ্রাস বেশিরভাগই প্রতিরোধযোগ্য। শৈশবে শ্রবণ শক্তি হারানোদের ৬০ ভাগই প্রতিরোধযোগ্য। আর যারা শ্রবণশক্তি হারিয়েছেন তারা প্রাথমিক সনাক্তকরণ এবং উপযুক্ত ব্যবস্থা গ্রহণের মাধ্যমে ব্যাপকভাবে উপকৃত হতে পারে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার জানিয়েছে, আনুমানিক ৪৬৬ মিলিয়ন মানুষ শ্রবণহ্রাস নিয়ে বেঁচে আছেন। সঠিক ও সময়োপযোগী ব্যবস্থা না নিলে ২০৩০ সালের মধ্যে এ সংখ্যা দাঁড়াবে প্রায় ৬৩০ মিলিয়ন। তাই আগামী বছরগুলিতে এই বিপুলসংখ্যক শ্রবণশক্তি হ্রাস ঠেকাতে যথাযথ প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থা গ্রহন, শ্রবণশক্তি হ্রাসকারীর প্রয়োজনীয় পূনর্বাসন সেবা এবং যোগাযোগ সরঞ্জাম সহজভাবে নিশ্চিত করা জরুরি। 

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
করোনা ছড়ায় উপসর্গহীন ব্যক্তিও
একদিনেই অবস্থান বদল বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার

করোনা ছড়ায় উপসর্গহীন ব্যক্তিও