তানযিম উল হক

তানযিম উল হক

শিক্ষার্থী, কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ


০৩ মার্চ, ২০১৮ ১০:০৩ পিএম

স্বর্ণালী হাতের মানুষ

স্বর্ণালী হাতের মানুষ

আজ আপনাদের যার গল্প বলবো তার নাম জেমস ক্রিস্টোফার হ্যারিসন। যিনি ডাক্তার না হয়েও বাঁচিয়েছেন হাজার মানুষের জীবন। জন্ম তার সুদূর অস্ট্রেলিয়ায় ১৯৩৬ সালের ডিসেম্বর মাসে। ১৪ বছর বয়সে দূর্ঘটনার কারণে তাকে প্রায় ১৩ লিটার রক্ত দিতে হয়। সার্জারির পরে তাকে প্রায় ৩ মাস হাসপাতালে থাকতে হয়। সেই সময়ে তিনি শপথ করেন যে তিনি যতদিন বেঁচে থাকবেন ততদিন অন্যকে রক্ত দিয়ে যাবেন।

তারপর ১৮ বছর বয়স থেকে তার রক্তদান শুরু। কয়েক বার রক্তদানের পর ডাক্তাররা আশ্চর্যজনক ভাবে আবিষ্কার করেন যে তার রক্তে বিরল এক প্রকার এন্টিবডি আছে যা 'Resus Disease' নামে একপ্রকার প্রাণঘাতী রক্তরোগের বিরুদ্ধে মারাত্মক রকম কার্যকর। এই আবিষ্কার বিজ্ঞান মহলে আলোড়ন সৃষ্টি করে। আর এই আবিষ্কারের মাধ্যমে নবজাতকদের এই রক্তরোগের হাত রক্ষার জন্য প্রতিষেধক তৈরি করা হয় যা হাজারো নবজাতকের প্রাণ বাঁচিয়েছে।

এরপর থেকে তিনি নিয়মিত প্রতি ২ সপ্তাহ অন্তর রক্তদান করা শুরু করেন। তার রক্ত থেকে যে এন্টিবডি তৈরি করা হয়েছে তা থেকে এখন পর্যন্ত প্রায় ২৪ লাখ নবজাতকের জীবন রক্ষা করা সম্ভব হয়েছে। তিনি ১০০০ (এক হাজার) এর বেশি বার রক্তদান করেছেন। 'গিনেজ বুক অব ওয়ার্ল্ড রেকর্ডস' অনু্যায়ী সবচেয়ে বেশিবার রক্তদানকারী ব্যক্তি। যেজন্য তাকে 'Man with the Golden Arm' বা স্বর্ণালী হাতের মানুষ নামে ডাকা হয়। এই বিষয়ে তিনি বলেন- "আমি চাই আমার এই রেকর্ড কেউ না কেউ ভাঙুক, কারণ যদি তা হয় তাহলে তাকেও এক হাজারের বেশি বার রক্তদান করতে হবে"।

মানবসেবায় অবদানের জন্য তাকে অস্ট্রেলিয়ার সর্বোচ্চ বেসামরিক পুরষ্কার 'মেডেল অব দ্যা অর্ডার অব অস্ট্রেলিয়ায়' ভূষিত করা হয়।

তথ্যসূত্র: উইকিপিডিয়া

দাবি পেশাজীবী সংগঠনের, রিট পিটিশন দায়ের

‘বেসরকারি মেডিকেলের ৮২ ভাগের বোনাস ও ৬১ ভাগের বেতন হয়নি’

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত