০৩ মার্চ, ২০১৮ ১০:০৪ এএম

চিতলমারীতে ১৭টি কমিউনিটি ক্লিনিক বন্ধ

চিতলমারীতে ১৭টি কমিউনিটি ক্লিনিক বন্ধ

চিতলমারী (বাগেরহাট) প্রতিবেদক :: বাগেরহাটের চিতলমারী উপজেলার ১৭টি কমিউনিটি ক্লিনিকে কর্মরত কমিউনিটি হেলথ কেয়ার প্রোভাইডাররা (সিএইচসিপি) ক্লিনিক বন্ধ রেখে চাকরি জাতীয়করণের দাবি করছেন। এতে চরম দুর্ভোগে পড়ছে গ্রামীণ জনগোষ্ঠীর হতদরিদ্র রোগীরা।

জানা যায়, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গ্রামীণ জনগোষ্ঠীর দোরগোড়ায় স্বাস্থ্যসেবা পৌঁছে দেয়ার জন্য অগ্রাধিকার ভিত্তিতে  এ প্রকল্পটি চালু করেন। এতে গ্রামীণ জনগোষ্ঠীর মধ্যে বেশ সাড়া পড়ে। তবে দু’মাসেরও বেশি সময় এসব ধরে ক্লিনিক বন্ধ রেখে কর্মরত সিএইচসিপিরা তাদের চাকরি জাতীয়করণের দাবিতে আন্দোলনে নামায় ব্যাহত হচ্ছে স্বাস্থ্যসেবা। এর ফলে সাধারণ রোগীরা বিপাকে পড়েছেন। যার কারণে তাদের টাকা ও সময় অপচয় করে উপজেলা সদরের স্বাস্থ্যকেন্দ্রে গিয়ে চিকিৎসা নিতে হচ্ছে।

উপজেলার চরচিংগড়ী গ্রামের ইসাহাক জানান, কয়েক দিন ধরে ঠাণ্ডা জ্বরের ওষুধ নিতে এসে গ্রামের কমিউনিটি ক্লিনিক বন্ধ পাচ্ছেন। নিরুপায় হয়ে উপজেলা সদরে যেয়ে স্বাস্থ্য কেন্দ্র থেকে ওষুধ নিতে হচ্ছে। 

চিতলমারী উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আলমগীর জানান, সিএইচসিপিরা তাদের চাকরি জাতীয়করণের দাবিতে ক্লিনিক বন্ধ রেখে আন্দোলন করছে। এতে স্বাস্থ্যসেবা ব্যাহত হচ্ছে। তবে কমিউনিটি ক্লিনিকগুলোতে স্বাস্থ্যসেবা অব্যাহত রাখতে এলাকায় কর্মরত স্বাস্থ্য সহকারী ও পরিবার পরিকল্পনা সহকারীদের দিয়ে ক্লিনিক খোলা রেখে যথাসাধ্য সেবা প্রদান করা হচ্ছে।

Add
  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
নিবন্ধনহীন ওষুধ লিখলে চিকিৎসকের শাস্তি
জাতীয় ওষুধনীতি-২০১৬’ এর খসড়ার নীতিগত অনুমোদন

নিবন্ধনহীন ওষুধ লিখলে চিকিৎসকের শাস্তি