ঢাকা      শুক্রবার ২১, সেপ্টেম্বর ২০১৮ - ৫, আশ্বিন, ১৪২৫ - হিজরী

পরামর্শ ফি ৫০০ টাকা, কষ্ট হলে নির্দ্বিধায় বলুন

চেম্বারে রোগী দেখা মানেই হাজার হাজার টাকা ভিজিট আপনার এমন ধারণা হয়তো পাল্টে যেতে পারে চিকিৎসকের চেম্বারে ঢুকলে। বাংলায় লিখা এবং মার্কার দিয়ে হাইলাইট করে টেবিলের উপরে রাখা “পরামর্শ ফি ৫০০ টাকা, কষ্ট হলে নির্দ্বিধায় বলুন” প্রতি মঙ্গলবার গরীব রোগী ফ্রি দেখা হবে।

প্রায় পত্র পত্রিকায় বা ফেইসবুকে আমরা দেখি মানবসেবার নামে অনেক চিকিৎসক রোগীর সাথে নাকি খারাপ আচরণ করছেন। খারাপ খবরের ভিড়ে ভালো খবরগুলি হারিয়ে যায় কেউ খোঁজ রাখেও না। কিন্তু অধিকাংশ ডাক্তারাই তাদের লালিত স্বপ্ন পূরণের লক্ষ্যে মানবসেবার কাজ চালিয়ে যান নীরবে নিভৃতে।

একটু পেছন ফিরে তাকালেই মনে পরে ছোটবেলার কথা! এসএসসি পরিক্ষায় এ প্লাস বা ভালো রিজাল্ট করলে কেউ যখন জিজ্ঞাসা করত তুমি বড় হয়ে কি হতে চাও? তখন বেশিরভাগরের উত্তর ডাক্তার হতে চাই। অনেকেই স্বপ্ন দেখতো বড় হয়ে চিকিৎসক হবে, ভালো একজন চিকিৎসক হয়ে গরিব অসহায় মানুষের সেবায় নিজেকে নিয়োজিত করবে কিন্তু অনেকেই পারেননা তবে তারাই পারেন যারা ছোটবেলা থেকে লেখাপড়ায় সফল একমাত্র তারাই কাঙ্গিত স্বপ্ন পূরণের লক্ষ্যে পৌঁছতে পারেন।

অনেক চিকিৎসক হয়তো বাস্তবতার মুখোমুখি হওয়ার পরে আবেগে বলা সেই কথার সবটুকু আর রক্ষা করতে পারেন না কিন্তু যাদের মন ছোটবেলা থেকে গরীব দুঃখী অসহায় মানুষের কষ্ট গুলো মনের বারান্দায় জায়গা দিয়েছিলেন তারা তাদের সেই লালিত স্বপ্ন পূরণে দিনরাত কাজ করে যাচ্ছেন। চেষ্টা করে যাচ্ছেন। সবাই হয়তো সমানভাবে পারছেন না।

আজকে আপনাদের সাথে পরিচয় করিয়ে দিবো তেমনি একজন মহান মানুষের সাথে যিনি সিলেটে দীর্ঘদিন থেকে মানবতার সেবায় নিজেকে নিয়োজিত রেখেছেন। উনাকে পরিচয় করিয়ে দেওয়ার জন্য কোন বিশেষণের দরকার আছে বলে মনে করিনা। উনার বিশেষণের স্বাক্ষর তিনি কাজের মাধ্যমে বহুবার দিয়ে রেখেছেন। ডাঃ হোসাইন আহমদ, এমবিবিএস, (সিসিডি) ডায়াবেটিস, বারডেম – ঢাকা, এম.ফিল বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা। ডায়াবেটিস ও হরমোন রোগ বিশেষজ্ঞ। বর্তমান তরুন প্রজন্মের জন্য আল্লাহর অশেষ নিয়ামত। আর্ত মানবতার সেবায় নিজেকে আত্মনিয়োগ করেছেন পাশাপাশি একজন সুচিকিৎসক গড়ার কারিগর তিনি। বর্তমানে ভয়াবহ আকার ধারণ করা রোগ ডায়াবেটিস রোগ বিশেষজ্ঞ হিসাবে চিকিৎসা সেবার কাজ শুরু করেছেন। সিঙ্গাপুর, ইন্ডিয়া ও ইন্দোনেশিয়া থেকে ডায়াবেটিস রোগের চিকিৎসায় তিনি উচ্চতর প্রশিক্ষণ গ্রহণ করেছেন। ডায়বেটিস বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক হিসেবে তিনি ইতোমধ্যে সিলেটের চিকিৎসা জগতে নিজেকে স্বরুপে তুলে ধরতে সক্ষম হয়েছেন সেবার মাধ্যমে। সিলেট উইমেন্স মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সহকারী অধ্যাপক হিসেবে তিনি কৃতিত্বের সাথে দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন।

পরামর্শ ফি ৫০০ টাকা, কষ্ট হলে নির্দ্বিধায় বলুন লিখা সংবলিত সাইনবোর্ড টেবিলের উপরে রাখা যে কেউ চেম্বারে ঢুকলেই চোখে পড়বে। কষ্ট হলে নির্দ্বিধায় বলুন এই চার শব্দের বাক্যটি মানুষকে বলে দিচ্ছে মানবতা আছে, মরে নাই। জয় হোক মানবতার, এগিয়ে যাক সিলেট ডায়াবেটিস সেন্টার, রিকাবীবাজার, সিলেট।

সংবাদটি শেয়ার করুন:

 


জীবন ও কর্ম বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

ভুটানের প্রধানমন্ত্রী হচ্ছেন ময়মনসিংহ মেডিকেলের শিক্ষার্থী!

ভুটানের প্রধানমন্ত্রী হচ্ছেন ময়মনসিংহ মেডিকেলের শিক্ষার্থী!

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট: ভুটানের প্রধানমন্ত্রী হতে যাচ্ছেন ডা. লোটে শেরিং। ৫০ বছর বয়সী ডা.…

প্রতি মাসে বিনামূল্যে অন্তত ৩০০ রোগী দেখেন তিনি

প্রতি মাসে বিনামূল্যে অন্তত ৩০০ রোগী দেখেন তিনি

গ্রামের গরিব অসহায় মানুষের টাকার অভাবে চিকিৎসাহীনতা ও তাদের দুঃখ-দুর্দশা দেখে বড়…

আরো সংবাদ














জনপ্রিয় বিষয় সমূহ:

দুর্যোগ অধ্যাপক সায়েন্টিস্ট রিভিউ সাক্ষাৎকার মানসিক স্বাস্থ্য মেধাবী নিউরন বিএসএমএমইউ স্বাস্থ্যমন্ত্রী ঢামেক গবেষণা ফার্মাসিউটিক্যালস স্বাস্থ্য অধিদপ্তর