ঢাকা      সোমবার ২২, অক্টোবর ২০১৮ - ৬, কার্তিক, ১৪২৫ - হিজরী



ডা. কামরুল হাসান সোহেল

কার্যকরী সদস্য, স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদ


স্বাস্থ্যখাতের উন্নয়নের সুফল জনগণ পাচ্ছে না সমন্বয়হীন উন্নয়নের জন্য

স্বাস্থ্যখাতের উন্নয়নের সুফল জনগণ পাচ্ছে না সমন্বয়হীন উন্নয়নের জন্য। স্বাস্থ্য খাতের উন্নয়নের সুফল পেতে হলে সমন্বিত উন্নয়ন পরিকল্পনা গ্রহণ করতে হবে:

সরকার স্বাস্থ্য খাতের উন্নয়নে নানা পরিকল্পনা নিয়েছেন এবং তা বাস্তবায়ন করার চেষ্টা করছেন। যেমন: অবকাঠামোগত উন্নয়ন,জনবল নিয়োগ, নার্স নিয়োগ, চিকিৎসক নিয়োগ, সিএইচসিপি নিয়োগ, পরীক্ষা নিরীক্ষার জন্য আধুনিক যন্ত্রপাতির ব্যবস্থা করছেন, অস্ত্রোপচারের জন্য আধুনিক সুযোগ সুবিধা সম্বলিত ওটি চালু করেছেন। কিন্তু এই উন্নয়নগুলো হচ্ছে সমন্বয়হীনভাবে।

কোথাও কোথাও অবকাঠামোগত উন্নয়ন হয়েছে অনেক দিন হয়ে গেছে কিন্তু সেখানে পর্যাপ্ত জনবল নেই,পর্যাপ্ত চিকিৎসক নেই, পর্যাপ্ত নার্স আছে কিন্তু তৃতীয় ও চতুর্থ শ্রেণীর কর্মচারী নেই,পরীক্ষা নিরীক্ষার আধুনিক যন্ত্রপাতি নেই। পর্যাপ্ত জনবল না থাকার কারণে এবং রক্ষণাবেক্ষণের অভাবে অবকাঠামো ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে, কোথাও কোথাও ফাটল দেখা দিয়েছে নব নির্মিত স্থাপনায়। আবার কোথাও কোথাও পর্যাপ্ত জনবল আছে কিন্তু অবকাঠামোগত দুর্বলতা আছে, পরীক্ষা নিরীক্ষার আধুনিক যন্ত্রপাতি না থাকার কারণে জনগণ কাংখিত সেবা পাচ্ছেনা। ফলে এই পর্যাপ্ত জনবলের কর্মশক্তিকে কাজে লাগানো যাচ্ছেনা।

কোথাও কোথাও অবকাঠামোগত সুযোগ সুবিধা আছে, পর্যাপ্ত চিকিৎসক ও নার্স আছে, আধুনিক যন্ত্রপাতি আছে কিন্তু যন্ত্রপাতি চালানোর জন্য টেকনিশিয়ান নেই, যন্ত্রপাতি চালানোর জন্য সার্বক্ষণিক বিদ্যুৎ সুবিধা নেই। ফলে আধুনিক যন্ত্রপাতিগুলো রক্ষণাবেক্ষণের অভাবে বস্তাবন্দী পরে থেকে থেকে নস্ট হয়ে যাচ্ছে।

কোথাও কোথাও এম্বুলেন্স আছে, ড্রাইভার নেই।ড্রাইভার না থাকায় এম্বুলেন্স অচল পরে থেকে নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। কোথাও কোথাও ওটি আছে কিন্তু ওটির জন্য সিস্টার,ব্রাদার,ওটি বয় নেই। সার্জন বা গাইনিকোলজিস্ট আছেন কিন্তু এনেস্থেটিস্ট নেই।কোথাও কোথাও তার উল্টো অবস্থা বিরাজ করছে। এই সমন্বয়হীনতার জন্য উন্নয়ন হচ্ছে ঠিকই কিন্তু তার সুফল পাচ্ছেনা জনগণ।উন্নয়নের সুফল পেতে হলে সমন্বিত উন্নয়ন পরিকল্পনা গ্রহণ করতে হবে।

অবকাঠামোগত উন্নয়ন,পর্যাপ্ত জনবল নিয়োগ নিশ্চিত করতে হবে,পর্যাপ্ত চিকিৎসক, নার্স,সাপোর্টিং স্টাফ নিশ্চিত করতে হবে। ওটি চালু করলেই চলবেনা ওটির সাপোর্টিং স্টাফ নিশ্চিত করতে হবে। শুধু গাইনিকোলজিস্ট বা সার্জন থাকলেই চলবেনা এনেস্থেটিস্ট ও থাকতে হবে। এম্বুলেন্স থাকলেই হবেনা এম্বুলেন্স ড্রাইভার ও নিশ্চিত করতে হবে। আধুনিক যন্ত্রপাতি দিলেই হবে না তা চালু রাখা এবং রক্ষণাবেক্ষণের জন্য টেকনিশিয়ান ও থাকতে হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন:

 


সম্পাদকীয় বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিদেশে ডাক্তারি পড়তে গেলে যেসব সমস্যার সম্মুখীন হবেন

বিদেশে ডাক্তারি পড়তে গেলে যেসব সমস্যার সম্মুখীন হবেন

প্রিয় বন্ধুগণ বাংলাদেশের মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষা শেষ। অনেকেই সরকারি মেডিকেল কলেজে চান্স পেয়েছেন আর…

গুগলে সার্চ দিয়ে রোগের লক্ষণ জানার আগে যা জানা উচিত

গুগলে সার্চ দিয়ে রোগের লক্ষণ জানার আগে যা জানা উচিত

প্রায় সবার হাতের নাগালে ইন্টারনেটের সুবিধা চলে আসায় আমরা অনেকেই অসুস্থ হলে…

‘অধিকার অর্জন করতে হলে আন্দোলনের পথে হাঁটো’

‘অধিকার অর্জন করতে হলে আন্দোলনের পথে হাঁটো’

৭ অক্টোবর চিকিৎসক সম্মিলনীতে সরকার প্রধান বুঝিয়ে দিলেন– ‘অধিকার অর্জন করতে হলে…

শব্দযুদ্ধ?

শব্দযুদ্ধ?

ভদ্র মোরা, শান্ত বড়ো, পোষ-মানা এ প্রাণ বোতাম-আঁটা জামার নীচে শান্তিতে শয়ান।" …

আরো সংবাদ














জনপ্রিয় বিষয় সমূহ:

দুর্যোগ অধ্যাপক সায়েন্টিস্ট রিভিউ সাক্ষাৎকার মানসিক স্বাস্থ্য মেধাবী নিউরন বিএসএমএমইউ স্বাস্থ্যমন্ত্রী ঢামেক গবেষণা ফার্মাসিউটিক্যালস স্বাস্থ্য অধিদপ্তর