০৮ ফেব্রুয়ারী, ২০১৮ ০৭:০৯ পিএম

ক্ষোভে উত্তাল আলজেরিয়ার চিকিৎসকরা

ক্ষোভে উত্তাল আলজেরিয়ার চিকিৎসকরা

ভূমধ্যসাগরের সাগরের কোল ঘেঁষে অবস্থিত উত্তর আফ্রিকার দেশ আলজেরিয়া। ১ মাসেরও অধিক সময় ধরে সেখানে কর্মবিরতি চালিয়ে যাচ্ছেন চিকিৎসকরা। সরকারের কাছে তারা বেশকিছু দাবি পেশ করেছেন। এরমধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো কর্মস্থলের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা, কর্মস্থলের পরিবেশ উন্নতকরণ, ন্যূনতম চিকিৎসা সেবা প্রদানের জন্য প্রয়োজনীয় ওষুধ ও যন্ত্রপাতি সরবরাহ করা, বিদেশি ডাক্তারদের সাথে বেতন বৈষম্য দূরীকরণ, বাধ্যতামূলক সিভিল সার্ভিস রহিতকরণ যার আওতায় রয়েছে চিকিৎসা শিক্ষায় স্নাতক ডিগ্রি অর্জনের পর ২-৪ বছর দুর্গম এলাকায় চাকরি করা।

আলজেরিয়ার রাজধানী আলজিয়ার্স দেশটির একদম উত্তর প্রান্তে অবস্থিত। দেশটির দক্ষিণাংশে আছে পৃথিবীর বৃহত্তম মরুভূমি সাহারার অংশবিশেষ। শহর থেকে দূরবর্তী অঞ্চলগুলোর হাসপাতালসমূহে রয়েছে অবকাঠামোগত দূর্বলতা। নেই চিকিৎসকদের বাসস্থানের ব্যবস্থা। সুযোগ নেই প্রতিদিন শহর থেকে যাতায়াত করার। কর্মস্থলে চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভোগেন চিকিৎসকরা। এরচেয়েও প্রকট অভাব চিকিৎসা সেবা সামগ্রীর। এই সমস্যাগুলোর সমাধান না করে চিকিৎসকদের শহর থেকে দূরবর্তী এলাকায় পদায়নকে কেন্দ্র করে প্রতিবাদমুখর হয়ে ওঠে আলজেরিয়ার চিকিৎসক সমাজ।

চিকিৎসকদের আরো ক্ষুব্ধ করেছে আলজেরিয়া সরকারের সাম্প্রতিক আরো বেশ কিছু সিদ্ধান্ত। সংকট নিরসনে জানুয়ারির শেষ সপ্তাহে কিউবার সাথে ‘ডাক্তারের বিনিময়ে তেল’ শীর্ষক চুক্তি করে আলজেরিয়া। এতে করে কিউবা আলজেরিয়া থেকে জ্বালানি তেল আমদানি করবে এবং বিনিময়ে আলজেরিয়াতে আরো বেশি সংখ্যক চিকিৎসক পাঠাবে কিউবা। উল্লেখ্য আলজেরিয়াতে ইতোমধ্যে প্রায় ১০০০ জন কিউবান চিকিৎসক আছেন। যাদের গড় প্রারম্ভিক মাসিক বেতন প্রায় ২০০০ ইউরো যেখানে সমযোগ্যতার আলজেরিয়ান চিকিৎসকরা পান মাত্র ৪০০ ইউরো। এছাড়া আলজেরিয়ার রাষ্ট্রভাষা ফ্রেঞ্চ হওয়ায় অনেক আলজেরিয়ান চিকিৎসক ফ্রান্সসহ বিভিন্ন দেশে উন্নত জীবন যাপনের জন্য অভিবাসন করে থাকে। বর্তমানে ফ্রান্সে আলজেরিয়ান চিকিৎসকদের সংখ্যা প্রায় ১৫০০০ যা তাদের দেশের মোট চিকিৎসক সংখ্যার এক চতুর্থাংশ। গত সপ্তাহে ফ্রান্স আলজেরিয়ান চিকিৎসকদের সরাসরি ফ্রান্সে কাজ করার সুযোগ ঘোষণা করে। এর ঠিক পর পরই আলজেরিয়ান কর্তৃপক্ষ তার দেশের চিকিৎসকদের অন্যদেশে চিকিৎসক হিসেবে অভিবাসন নিষিদ্ধ করে দেয়।

সরকারের এই নিপীড়নমূলক সিদ্ধান্তগুলোর পর চিকিৎসকদের প্রতিবাদ আরো জোরালো হয়। প্রায় ১৫০০০ চিকিৎসক রাস্তায় নেমে আসেন। পুলিশের সাথে তাদের সংঘর্ষে ২০ জন চিকিৎসক গুরুতর আহত হয়েছেন। মেডিকাল ছাত্ররা চিকিৎসকদের সাথে একাত্মতা পোষণ করে সবধরনের ক্লাস এবং পরীক্ষা বর্জন করেছে। চিকিৎসকদের অধীনস্ত প্যারামেডিকরাও গত ৫ ফেব্রুয়ারি থেকে কর্মবিরতির সাথে একাত্মতা ঘোষণা করেছেন।

গত ১ মাসে আলজেরিয়ার স্বাস্থ্যব্যবস্থা কার্যত ভেঙ্গে পড়েছে। হাসপাতালসমূহের জরুরি বিভাগে জরুরি চিকিৎসাসেবা ছাড়া সকল প্রকার সেবাদান বন্ধ রয়েছে। দাবি আদায় না হলে জরুরি বিভাগের সেবা কার্যক্রমও বন্ধ করে দেয়ার হুশিয়ারি দিয়েছেন চিকিৎসক আন্দোলনের নেতৃবৃন্দ।

করোনা ও বার্ধক্যজনিত অসুস্থতা

এক দিনে চিরবিদায় পাঁচ বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক

এক বছর প্রয়োগ হবে সেনা সদস্যদের দেহে

চীনে করোনার প্রথম ভ্যাকসিন অনুমোদন

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
করোনা ছড়ায় উপসর্গহীন ব্যক্তিও
একদিনেই অবস্থান বদল বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার

করোনা ছড়ায় উপসর্গহীন ব্যক্তিও