৩১ জানুয়ারী, ২০১৮ ০৮:২৭ এএম

জরায়মুখ ও স্তন ক্যান্সার রোগী বছরে বাড়ছে ২৬,৭৯২ জন

জরায়মুখ ও স্তন ক্যান্সার রোগী বছরে বাড়ছে ২৬,৭৯২ জন

বাংলাদেশে মহিলাদের মধ্যে জরায়ুমুখ ও স্তন ক্যান্সার অন্যতম প্রধানতম ক্যান্সার। প্রতিবছর নতুনভাবে জরায়মুখ ও স্তন ক্যান্সারে নতুন আক্রান্ত হয় ২৬৭৯২ জন। এরমধ্যে ১১৯৫৬ জন মহিলা জরায়ু-মুখ ক্যান্সারে এবং ১৪৮৩৬ জন মহিলা স্তুন ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়। মারা যায় প্রায় ১৪ হাজার। এদের মধ্যে ৬৫৮২ জন মহিলা জরায়ুমুখ ক্যান্সারে এবং ৭১৪২ জন মহিলা স্তন ক্যান্সারে মারা যায়।

দেশে তৃণমুল পর্যায়ে জরায়ু-মুখ ও স্তন ক্যান্সার কমিয়ে আনার লক্ষ্যে মঙ্গলবার স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সহায়তায় পরিচালিত বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের “জরায়ুমুখ ও স্তন ক্যান্সার স্ক্রীনিং ও প্রশিক্ষণের জন্য জাতীয় কেন্দ্র স্থাপন প্রকল্প”-এর উদ্যোগে প্রকল্পের অগ্রগতি পর্যালোচনার লক্ষ্যে আয়োজিত ডেসিমিনেশন সেমিনার ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে এসব তথ্য প্রকাশ করা হয়।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে আয়োজিত অনুষ্ঠানে আরো জানানো হয়, ২০১৭ সাল পর্যন্ত প্রায় ৩২ লাখ ভায়া ও সিবিই স্ক্রিনিং পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে। এরমধ্যে ১৬,৪৭,৩৮০ জন মহিলার ভায়া স্ক্রীনিং করা হয়েছে। ১৬,৪৭,৩৮০ জন মহিলার মধ্যে ১৫,৪৪,২৮৬ জন মহিলার সিবিই স্ক্রীনিং সম্পন্ন করা হয়েছে। পজেটিভ প্রায় ১ লাখ। এরমধ্যে জরায়ুমুখ ক্যান্সার নির্ণয়ের পরীক্ষায় ৭৫২২৭ জন মহিলার ভায়া পজিটিভ ও স্তন ক্যান্সার নির্ণয়ের পরীক্ষা ২১,২৫০ মহিলার সিবিই পজেটিভ সনাক্ত হয়েছে। ২৩৫৮৮ জন মহিলা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের অবস এন্ড গাইনী বিভাগ ও সার্জারি বিভাগ হতে কল্পোস্কোপি পরীক্ষাসহ প্রয়োজনীয় চিকিৎসা সেবা গ্রহণ করেছেন।

জাতীয় গুরুত্বপূর্ণ এই অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে ছিলেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী জাহিদ মালেক এমপি। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বিএসএমএমইউয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ডা. কামরুল হাসান খান।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্য শিক্ষা ও পরিবার কল্যাণ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব মিসেস বদরুন্নেসা, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম আজাদ, নার্সিং ও মিডওয়াইফারি অধিদপ্তরের মহাপরিচালক তন্দ্রা শিকদার। অনুষ্ঠানে সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপ-উপাচার্য (গবেষণা ও উন্নয়ন) অধ্যাপক ডা. মোঃ শহীদুল্লাহ সিকদার, উপ-উপাচার্য (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. মোঃ শারফুদ্দিন আহমেদ, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. মোহাম্মদ আলী আসগর মোড়ল। স্বাগত বক্তব্য রাখেন অবস এন্ড গাইনী বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. পারভীন ফাতেমা। বাংলাদেশে জরায়মুখ ও স্তন ক্যান্সার স্ক্রিনিং ও প্রতিরোধ কার্যক্রম উপস্থাপন করেন অধ্যাপক ডা. আশরাফুন্নেসা।

অনুষ্ঠানে ভায়া ও সিবিই স্ক্রিনিংসহ জারায়ুমুখ ক্যান্সার ও স্তন ক্যান্সার নির্ণয়সহ চিকিৎসা সেবায় অবদান ও ভূমিকা রাখায় সংশ্লিষ্ট বিষয়ে নীতি নির্ধারণী পর্যায়ে ঊর্ধ্বতন ব্যক্তিবর্গ, পরিবার পরিকল্পনা পরিদর্শিকা, সিভিল সার্জন, উপজেলা পর্যায়ের স্বাস্থ্য কেন্দ্র, মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্র, কল্পোস্কপিস্ট ও সিনিয়র স্টাফ নার্সবৃন্দকে পুরস্কার প্রদান করা হয়।

 

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
নিবন্ধনহীন ওষুধ লিখলে চিকিৎসকের শাস্তি
জাতীয় ওষুধনীতি-২০১৬’ এর খসড়ার নীতিগত অনুমোদন

নিবন্ধনহীন ওষুধ লিখলে চিকিৎসকের শাস্তি