ডা. আহমাদ হাবিবুর রহিম

ডা. আহমাদ হাবিবুর রহিম

লেখক, কলামিস্ট

বিসিএস (স্বাস্থ্য), রেসিডেন্ট, বিএসএমএমইউ।


২৮ ডিসেম্বর, ২০১৭ ০৮:৪১ পিএম

বিতর্কে জিততে পারলেই কি আমরা সফল?

বিতর্কে জিততে পারলেই কি আমরা সফল?

এক সময় ঐক্যের অভাব নিয়ে ডাক্তারদের মধ্যে বেশ হতাশা ছিলো। ঐক্যের অভাবে আমরা আমাদের ন্যায্য দাবী দাওয়াগুলো আদায় করতে পারি না এই অভিযোগ অনেক দিনের। সাম্প্রতিক সময়ে অফলাইনের অবস্থা যাইহোক অনলাইনে আমরা ডাক্তাররা যথেষ্ট ঐক্যবদ্ধ হতে পেরেছি; এ নিয়ে কোন সন্দেহ নেই।

যেখানেই চিকিৎসা নিয়ে কোন বিতর্ক উঠুক আমরা দলবল নিয়ে তার খবর করে দেই। আমরা যে নিজেদের কথাগুলো জোর দিয়ে বলতে পারছি এটা অত্যন্ত আনন্দের ব্যাপার। কিন্তু কথা হলো বিতর্কে জিততে পারলেই কি আমরা সফল? তাহলেই কি স্বাস্থ্যখাতের সমস্যা গুলো উধাও হয়ে যায়। আমাদের আচরণ কি বিভেদ উস্কে দেয়ার কারণ হওয়া উচিত? আমাদের অনেক কষ্ট, অনেক না পাওয়া আছে জানি কিন্তু তাই বলে কি এগুলো আমাদের অবহেলা করার অজুহাত কোন হিসেবে যথেষ্ট? নিজেরা হয়তো কাজে অবহেলা করি না কিন্তু ঠিক বেঠিক নির্বিশেষে অন্যের পক্ষে সাফাই গাইতে আমরা কেমন যেন জাতীয়তাবাদী আচরণ করতে শুরু করি।

দয়া করে কেউ রেগে যাবেন না আমার কথায়। আমরা ছোট মানুষ। ছোট ডাক্তার। জিপি হিসেবে চেম্বার করি কেউ কেউ। অধিকাংশের ক্ষেত্রেই হৃদয়ের সজীবতা এখনও অটুট আছে আমাদের। রোগীর সাথে ভালো আচরণ করি, একজন রোগীর পেছনে আধাঘন্টা সময় দিতেও কার্পণ্য করি না। পারলে ফ্রি দেখে দেই সবাইকে। এতো কিছু করেও যখন ফেসবুক, পত্রিকা খুললেই দেখি ডাক্তাররা কসাই, ডাক্তাররা টাকার কুমির, নিষ্ঠুর প্রেমিকার মতোই হৃদয়হীনা(!) যাদের মন মানবতার জন্য একটুও কাঁদে না... এত্তো এত্তো অভিযোগ! তখন মাথা একটুও ঠিক থাকে না। মনে চায় গালাগালি করে সবার গোষ্ঠী উদ্ধার করে দেই! শালার জনগণ মনে করে আমরা টাকার বস্তা নিয়ে বসে আছি; আমি তো মাস চালানোর টাকাই পাই না! এই মিথ্যা কথাগুলো কেন বলবে ওরা?

কিন্তু কথা হলো সবগুলো কথাই কি মিথ্যা? কেউই কি কোন দুর্নীতি অনিয়ম করছে না? আপনি নাহয় টাকা নিয়ে দুর্নীতি করেন না; রোগীর সাথে হাসিমুখে কথা বলেন; হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের চোখ রাঙানি উপেক্ষা করেও বাড়তি কোন ইনভেস্টিগেশন দেন না; কিন্তু তাই বলে কি সবাই এমন? কেউ দালাল দিয়ে রোগী এনে ভুল অপারেশন করে রোগীর জীবন নষ্ট করে না? ক্লিনিকের ৩০-৪০% ইনভেস্টিগেশনের জন্য লালায়িত কুকুরের মতো অপেক্ষা করে না? অসহায় রোগীদের সাথে রাস্তার নেড়ি কুকুরের মতো আচরণ করে না? মাত্র ৮০০-১০০০ টাকা ওটি চার্জের জন্য শহরতলীর হাসপাতালগুলোতে পাইকারী দরে সিজার করে না?

আসলেই কি হয় না এগুলো বাংলাদেশে? আমরা অস্বীকার করতে পারবো এগুলো? তাহলে জুলুমের স্বীকার হয়ে, ভুল চিকিৎসার মুখোমুখি হয়ে কখনও বা আমাদের কাউন্সেলিং এর অভাবে ভুল বুঝে যখন রোগী বা তার স্বজনেরা ডাক্তারদের অসদাচরণের সমালোচনা করে সব কথা কেন আমরা নিজ গায়ে টেনে নিই?

আপনি যদি ভালো আচরণ করে থাকেন মানুষের সাথে, ভালোভাবে তাদের চিকিৎসা দিয়ে থাকেন আপনি নিশ্চিত থাকুন দুনিয়ার তাবত ডাক্তারকে খারাপ বললেও আপনাকে তারা খারাপ বলবে না। আপনাকে ঠিকই ভালো ডাক্তার বলে মেনে নিবে। আপনার জন্য তারা ঠিকই দোয়া করবে। আপনি তবে কার গালিগুলো নিজের কাঁধে নিচ্ছেন?

দাবি পেশাজীবী সংগঠনের, রিট পিটিশন দায়ের

‘বেসরকারি মেডিকেলের ৮২ ভাগের বোনাস ও ৬১ ভাগের বেতন হয়নি’

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত